channel 24

সর্বশেষ

  • দেশ নয়, দুঃসময় পার করছে বিএনপি: কাদের

  • ভাসমান বেড পদ্ধতিতে সবজি চাষ

  • 'কোভিড মোকাবেলায় রোডম্যপ প্রণয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে জাতিসংঘ'

  • এ মৌসুমে বাংলাদেশের সঙ্গে টেস্ট খেলা সম্ভব নয়: পাকিস্তান

  • ফুটবল নির্বাচনে চ্যালেঞ্জের মুখে তিনবারের সহসভাপতি কাজী নাবিল

  • অলিম্পিক খেলার স্বপ্ন দেখালেন ফুটবল নির্বাচনে সভাপতি প্রার্থী শফিকুল

  • চেয়ারম্যানকে শপথ না পড়ানোয় গাইবান্ধার ডিসির বিরুদ্ধে রুল

  • কুয়েতের আমির শেখ সাবাহ মারা গেছেন

  • কথিত মৃত ব্যক্তি ফিরে আসলেন আদালতে

  • পিবিআই হেফজতে হত্যা আসামির মৃত্যুর অভিযোগ

  • পর্ণগ্রাফি মামলায় ভুক্তভোগীর প্রতিকি নাম দিয়ে ব্যতিক্রমী রায়

  • জাকারিয়া হত্যার বিচার দাবিতে লালমনিরহাটে মানববন্ধন

  • ভিসা ও ইকামার মেয়াদ নিয়ে সৌদি প্রবাসীদের জটিলতা কাটছেই না

  • সাতক্ষীরায় হত্যা মামলায় ইউপি চেয়ারম্যান গ্রেপ্তার

  • চট্টগ্রামে জসিম হত্যার ঘটনায় জড়িতদের শাস্তির দাবি স্বজনদের

মোবাইল অ্যাপ্লিকেশনে কমেছে বিদেশ নির্ভরতা, বিশ্ববাজারে খ্যাতি দেশীয় প্রতিষ্ঠানের

মোবাইল অ্যাপ্লিকেশনে কমেছে বিদেশ নির্ভরতা, বিশ্ববাজারে খ্যাতি দেশীয় প্রতিষ্ঠানের

মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন তৈরিতে কমেছে বিদেশ নির্ভরতা। বিভিন্ন দেশের বাজারে বেশ সুনামের সাথে কাজ করছে বেশকিছু দেশীয় প্রতিষ্ঠান। গত কয়েক বছরে গুগল প্লে স্টোরসহ অ্যপস প্লাটফর্মগুলোতে দেশীয় নির্মাতাদের তৈরি অ্যাপসের সংখ্যা কয়েক লাখ। এতে সফটওয়্যার খাতে বিলিয়ন ডলারের লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়েছে।

গ্রাহকের কাছে ব্যাংকিং কার্যক্রম সহজ করার ভাবনা থেকে তৈরি, মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন আইব্যাংক টুয়েন্টিথ্রি, যার নির্মাতা দেশীয় প্রতিষ্ঠান, ব্রেন স্টেশন টুয়েন্টিথ্রি। বেশ কিছু ব্যাংকের মতো সাত বছর আগে এটি ব্যবহার শুরু করে সিটি ব্যাংক। অ্যাপটির নাম দেয়া হয় সিটি টাচ। হংকংভিত্তিক নিউজপোর্টাল ফিন্যান্স এশিয়ার তথ্য মতে, এই অ্যাপের কারণে ২০১৭ সালে সিটি ব্যাংকের লেনদেন বেড়েছে প্রায় ৯০ শতাংশ।

তথ্যপ্রযুক্তির দুনিয়ায় সফটওয়্যারের অন্যতম ক্ষেত্র অ্যাপস তৈরিতে দেশীয় নির্মাতাদের অর্জন গত আট বছরে বেশ ঈর্শনীয়। ইউরোপ, যুক্তরাষ্ট্র, আফ্রিকা ও এশিয়ার বেশ কয়েকটি দেশের পাশাপাশি স্থানীয় বাজারেও অনেক অ্যাপস বানাচ্ছেন দেশীয় নির্মাতারা। সরকারি গুরুত্বপূর্ন কয়েকটি সংস্থার নিজস্ব কার্যক্রমের স্বয়ংক্রিয়তা আনার পাশাপাশি পরিবহন ব্যবস্থা, আর্থিক লেনদেনভিত্তিক বেশ কিছু অ্যাপস এখন বিশ্বজুড়ে সমাদৃত।

নির্মাতারা জানান, ২০১৭ সালের আগেও দেশে অ্যাপসের বাজার ছিল ৫শ কোটি টাকার নীচে। তবে মাত্র তিন বছরের ব্যবধানে ২০১৯ সাল নাগাদ এটি হাজার কোটি টাকা ছাড়িয়েছে। স্মার্ট ফোনের ব্যবহার বাড়ার ফলে এখন দেশীয় অ্যাপ ও কনটেন্টের চাহিদাও বেড়েছে।

বিশ্বে শক্তিশালী অবস্থান তৈরির পাশাপাশি দেশের বাজার পুরোপুরি নিজেদের দখলে আনতে সরকারের রয়েছে নানা পরিকল্পনা।

তথ্যপ্রযুক্তি ব্যবসায়ীদের সংগঠন-বেসিস বলছে, দেশে অ্যাপ্লিকেশন তৈরি করে এমন প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা কয়েক শ।

 

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

তথ্য প্রযুক্তি খবর