channel 24

সর্বশেষ

  • সিরাজগঞ্জে যুবলীগ নেতা ডিজে শাকিলের প্রতারণায় নিঃস্ব অনেকে

  • নতুন মোড় নিচ্ছে সিনহা হত্যা মামলা

  • প্রথমবারের মত চ্যাম্পিয়ন্স লিগ সেমিতে লাইপজিগ

  • সিনহা হত্যা: অভিযুক্ত পুলিশ সদস্য ও সাক্ষিদের র‍্যাবের জিজ্ঞাসাবাদ শুরু

  • দেশে ন্যায়পরায়ণতা প্রতিষ্ঠায় কাজ করছে সরকার: প্রধানমন্ত্রী

  • ১৫ আগস্টের নৃশংস হত্যাকাণ্ডে ছিল নানা ষড়যন্ত্র

  • কর্তৃপক্ষের মারধরে যশোর শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রে ৩ কিশোর নিহত

  • মহাখালী থেকে বশেমুরবিপ্রবি'র চুরি হওয়া ৩৪টি কম্পিউটার উদ্ধার

  • বদলে যাচ্ছে ইউনিয়ন পরিষদ, পৌরসভা ও সিটি করপোরেশনের নাম

  • রাজধানীতে লাইসেন্সবিহীন গ্লোবাল গেইনে র‍্যাবের অভিযান, আটক ৮

  • সিলেটে সড়ক দুর্ঘটনায় একই পরিবারের ৩ জনসহ ৬ জন নিহত

  • ফেসবুক এজেন্ট এইচটিটিপুলের বিরুদ্ধে ভ্যাট আইনে মামলা

  • যশোর শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রে দু'গ্রুপের সংঘর্ষে ৩ কিশোর নিহত

  • দুটি পেশাদার বাহিনীকে মুখোমুখি দাঁড় করানোর অপচেষ্টা অপ্রত্যাশিত: পুলিশ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশন

  • শ্রীলঙ্কা সফর ঘিরে সেরা প্রস্তুতি নিতে চান সৌম্য

পরিত্যাক্ত প্লাস্টিক পুড়িয়ে জ্বালানী তেল উৎপাদন

পরিত্যাক্ত প্লাস্টিক পুড়িয়ে জ্বালানী তেল উৎপাদন

রাঙ্গামাটির বাঘাইছড়িতে পরিত্যাক্ত পলিথিন ও প্লাস্টিকের বোতল পুড়িয়ে জ্বালানী তেল উৎপাদন করে ব্যাপক সাড়া ফেলেছেন শফিকুল ইসলাম নামে এক যুবক। তার উৎপাদিত জ্বালানী তেল ব্যবহার করে গাড়ি চলাচলেরও প্রমাণ মিলেছে। তার এমন উদ্ভাবন তেলের আমদানি নির্ভরতা কমাবে বলে আশা অনেকের।

শফিকুল ইসলাম, পেশায় গাড়ি চালক। রাঙ্গামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলার মাস্টার পাড়া গ্রামের মুখ। পরিত্যক্ত পলিথিন ও প্লাস্টিকের বোতল পুড়িয়ে পেট্রোল, অকটেন, ডিজেল ও এলপি গ্যাস তৈরী করে রীতিমত সাড়া ফেলে দিয়েছেন এলাকায়।

মূলত ইউটিউবে ভিডিও দেখেই এমন কিছু করতে উদ্বুদ্ধ হন শফিকুল। বাড়ির উঠানেই একটি আবদ্ধ তেলের ড্রামে বেশকিছু পরিত্যক্ত পলিথিন রেখে আগুন জ্বালিয়ে তাতে পলিথিন গলিয়ে তৈরি করেন ডিজেল, পেট্রোল, অকটেন ও এলপি গ্যাস।

শফিকুল ইসলাম বলেন, পরিত্যক্ত প্লাস্টিক থেকে আমি তেল উৎপাদন করছি যা দিয়ে এলাকার প্রায় সব গাড়ি চলছে। সরকারি পৃষ্টপোষকতা পেলে আমি এটি আরও বড় আকারে তৈরি করতে পারি।

শফিকুলের উদ্ভাবিত তেল ব্যবহার করে উপকৃত হচ্ছেন বলে জানান মোটর সাইকেল আরোহীরা। তারা বলেন, দোকান থেকে যে তেল কিনি তা দিয়ে ১ কিলো যাওয়া যায় না অথচ শফিকুলের তেলে নিলে ১.৫ কিলোর বেশি যাওয়া যায়। দামও কম আর গাড়ীতেও সমস্যা হয় না।

এমন উদ্ভাবন দেখতে বাঘাইছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আহসান হাবীব জিতু নিজেই যান শফিকুলের বাসায়। তেলের উৎপাদন দেখে আশ্বাস দেন সহায়তার। তিনি বলেন, প্রযুক্তিটি আমি দেখেছি। আমার কাছে খুবই ভালো লেগেছে। এই বিষয়ে আমার উধ্বতন কর্মকর্তার সাথে আমি কথা বলবো।

সরকারি পৃষ্ঠপোষকতা পেলে বাণিজ্যিকভাবে তেল উৎপাদন বাড়াতে চান শফিকুল। তবে তার এই জ্বালানী উৎপাদন পদ্ধতি কতটা পরিবেশবান্ধব তা নিশ্চিত করতে পারেননি কেউ।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

তথ্য প্রযুক্তি খবর