channel 24

সর্বশেষ

  • চাঁপাইনবাবগঞ্জে ধর্ষণের পর শিশু হত্যা, সিরাজগঞ্জে মুক্তিযোদ্ধার স্ত্রীর মরদেহ উদ্ধার

  • ঢাকায় মেট্রোরেলের মকআপ ট্রেন, মতিঝিল-দিয়াবাড়ি রুট চালু আগামী বছর

  • ইতিহাস বিভাগের দাবিতে আজও উত্তাল গোপালগঞ্জ বঙ্গবন্ধু বিশ্ববিদ্যালয়

  • চীনকে ১৮ লাখ মেডিকেল সামগ্রী দিলো বাংলাদেশ

  • করোনাভাইরাস: চীনে আটকা পড়া ১৯৮ বাংলাদেশি শিক্ষার্থীর দেশে ফেরার আকুতি

  • বেত্রাঘাতের প্রতিশোধ নিতে শিক্ষককে খুন, একজনের মৃত্যুদণ্ড

  • ‘কচুরিপানা খাওয়া’ নিয়ে বক্তব্যের ব্যাখ্যা দিলেন পরিকল্পনামন্ত্রী

  • রাজধানীর আরামবাগে ফ্ল্যাট থেকে বৃদ্ধার মরদেহ উদ্ধার

  • স্মার্ট এগ্রোরোবট উদ্ভাবন করেছেন ২ শিক্ষার্থী

  • টানা পাঁচদিন পর ফের পতন পুঁজিবাজারে

  • ফজলে কবিরকে গভর্নর পদে চুক্তিতে নিয়োগ

  • ময়মনসিংহে যুব বিশ্বকাপজয়ী রাকিবুলকে সংবর্ধনা

  • মোংলা বন্দরের সক্ষমতা বাড়াতে ৬ হাজার ১৪ কোটি টাকা বরাদ্দ

  • রাজধানীর ইএমকে সেন্টারে 'জীবনানন্দ উৎসব'

  • ব্যাংকগুলোতে খেলাপি ঋণ ৯৪ হাজার ৩৩১ কোটি টাকা

পরিত্যাক্ত প্লাস্টিক পুড়িয়ে জ্বালানী তেল উৎপাদন

পরিত্যাক্ত প্লাস্টিক পুড়িয়ে জ্বালানী তেল উৎপাদন

রাঙ্গামাটির বাঘাইছড়িতে পরিত্যাক্ত পলিথিন ও প্লাস্টিকের বোতল পুড়িয়ে জ্বালানী তেল উৎপাদন করে ব্যাপক সাড়া ফেলেছেন শফিকুল ইসলাম নামে এক যুবক। তার উৎপাদিত জ্বালানী তেল ব্যবহার করে গাড়ি চলাচলেরও প্রমাণ মিলেছে। তার এমন উদ্ভাবন তেলের আমদানি নির্ভরতা কমাবে বলে আশা অনেকের।

শফিকুল ইসলাম, পেশায় গাড়ি চালক। রাঙ্গামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলার মাস্টার পাড়া গ্রামের মুখ। পরিত্যক্ত পলিথিন ও প্লাস্টিকের বোতল পুড়িয়ে পেট্রোল, অকটেন, ডিজেল ও এলপি গ্যাস তৈরী করে রীতিমত সাড়া ফেলে দিয়েছেন এলাকায়।

মূলত ইউটিউবে ভিডিও দেখেই এমন কিছু করতে উদ্বুদ্ধ হন শফিকুল। বাড়ির উঠানেই একটি আবদ্ধ তেলের ড্রামে বেশকিছু পরিত্যক্ত পলিথিন রেখে আগুন জ্বালিয়ে তাতে পলিথিন গলিয়ে তৈরি করেন ডিজেল, পেট্রোল, অকটেন ও এলপি গ্যাস।

শফিকুল ইসলাম বলেন, পরিত্যক্ত প্লাস্টিক থেকে আমি তেল উৎপাদন করছি যা দিয়ে এলাকার প্রায় সব গাড়ি চলছে। সরকারি পৃষ্টপোষকতা পেলে আমি এটি আরও বড় আকারে তৈরি করতে পারি।

শফিকুলের উদ্ভাবিত তেল ব্যবহার করে উপকৃত হচ্ছেন বলে জানান মোটর সাইকেল আরোহীরা। তারা বলেন, দোকান থেকে যে তেল কিনি তা দিয়ে ১ কিলো যাওয়া যায় না অথচ শফিকুলের তেলে নিলে ১.৫ কিলোর বেশি যাওয়া যায়। দামও কম আর গাড়ীতেও সমস্যা হয় না।

এমন উদ্ভাবন দেখতে বাঘাইছড়ি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আহসান হাবীব জিতু নিজেই যান শফিকুলের বাসায়। তেলের উৎপাদন দেখে আশ্বাস দেন সহায়তার। তিনি বলেন, প্রযুক্তিটি আমি দেখেছি। আমার কাছে খুবই ভালো লেগেছে। এই বিষয়ে আমার উধ্বতন কর্মকর্তার সাথে আমি কথা বলবো।

সরকারি পৃষ্ঠপোষকতা পেলে বাণিজ্যিকভাবে তেল উৎপাদন বাড়াতে চান শফিকুল। তবে তার এই জ্বালানী উৎপাদন পদ্ধতি কতটা পরিবেশবান্ধব তা নিশ্চিত করতে পারেননি কেউ।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

তথ্য প্রযুক্তি খবর