channel 24

সর্বশেষ

  • ফেসবুক এজেন্ট এইচটিটিপুলের বিরুদ্ধে ভ্যাট আইনে মামলা

  • যশোর শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রে দু'গ্রুপের সংঘর্ষে ৩ কিশোর নিহত

  • দুটি পেশাদার বাহিনীকে মুখোমুখি দাঁড় করানোর অপচেষ্টা অপ্রত্যাশিত: পুলিশ সার্ভিস অ্যাসোসিয়েশন

  • শ্রীলঙ্কা সফর ঘিরে সেরা প্রস্তুতি নিতে চান সৌম্য

  • ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোর বার্সেলোনায় যাবার গুঞ্জন

  • শেয়ার কারসাজি: বিবিএস ক্যাবলসের চেয়ারম্যানের স্ত্রী ও এমডিকে জরিমানা

  • ক্যাম্প ছাড়লেন ফুটবলাররা, প্রস্তুত থাকতে চান পরবর্তী ডাকের জন্য

  • বাসমালিকরা ভাড়া কমালে তেলের দাম সমন্বয়ের চিন্তা করা যেতে পারে: প্রতিমন্ত্রী

  • ভারতে একদিনে সর্বোচ্চ ৬৭ হাজার করোনায় আক্রান্ত

  • এমপি পাপুল পরিবারের ৫৮৮টি ব্যাংক অ্যাকাউন্ট!

  • প্রতারণার মামলায় যুবলীগ নেতা ডিজে শাকিলসহ ৩ জন ৫ দিনের রিমান্ডে

  • করোনার নমুনা পরীক্ষার কার্যক্রম শুরু করতে যাচ্ছে গণস্বাস্থ্য

  • চাঁদাবাজি মামলার পরও বহাল তবিয়তে রাজশাহী রেঞ্জ এসপি

  • এ মাসেই নন-কোভিড হাসপাতাল ঠিক করে দেয়া হবে: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

  • যাত্রীদের নিজস্ব ব্র্যান্ডের পানি সরবরাহ করবে রেল

মঙ্গলগ্রহে উড়বে হেলিকপ্টার

মঙ্গলগ্রহে উড়বে হেলিকপ্টার

বায়ুমন্ডল নেই, অথচ উড়ে বেড়াবার মোটামুটি সকল সুত্রকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়েই উড়ছে হেলিকপ্টার। ভাবছেন, এমন আবিষ্কারের দরকারই বা কি? বায়ুমন্ডল আবার না থাকে নাকি? থাকে তো মঙ্গলগ্রহে। আর সেখানেই এবার হেলিকপ্টার ওড়াবার কথা ভাবছেন আমেরিকার মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসার বিজ্ঞানীরা।

মঙ্গলগ্রহে উড়বে হেলিকপ্টার। শুনে মনে হতেই পারে, এ আর এমন কি। কত রোবটই তো গিয়েছে সেখানে। কিন্তু যখন জানবেন সেখানকার বায়ুমণ্ডল এতোটাই পাতলা, যে তা প্রায় নেই বললেই চলে, তখন অবধারিতভাবেই প্রশ্ন চলে আসে বাতাসের চেয়ে ভারী একটি হেলিকপ্টার, বায়ুমণ্ডল ছাড়া উড়বে কি করে? বাতাসে উড়ে বেড়াবার সকল সুত্রই যে মঙ্গলে হার মানে!

তবে, 'মার্স ২০২০' অভিযানের জন্য এমনই এক অসম্ভবকে সম্ভব করতে যাচ্ছে আমেরিকার মহাকাশ গবেষণা সংস্থা নাসা। তাদের তৈরি করা হেলিকপ্টার উড়বে, মঙ্গলের লাল মাটির ১৫ ফুট উপর দিয়ে। তবে প্রতিবারে কখনোই দেড় মিনিটের বেশি নয়।

হেলিকপ্টারটিকে লাল গ্রহে ঘুরাবে এর লম্বা চার ফুটের দুজোড়া রোটর ব্লেড। প্রতি সেকেন্ডে যেই পাখা ঘুরবে প্রায় ৪২ বার। যার গতিবেগ পৃথিবীতে ওড়া যেকোন হেলিকপ্টারের চেয়ে অন্তত ১০ গুন। অ্যারোডাইনামিক্স ঠিক রাখতে এর চেহারা দেওয়া হয়েছে ছোট্ট একটি বলের মতো। ওজন মাত্র ৪ পাউণ্ড। মঙ্গলে নামার পর মোট ৫ বার উড়েই হেলিকপ্টারটি তার শক্তিশালী ক্যামেরায় ধারণ করবে লাল গ্রহের চিত্র।

মজার ব্যপার হল, হেলিকপ্টারটিকে কোনো গ্রাউন্ড স্টেশনের কন্ট্রোল রুম থেকে কমান্ড পাঠিয়ে চালাতে হবে না। মঙ্গল মুলুকে ঢুকে পড়লে আপনাআপনিই চলবে এটি। আবার নির্দিষ্ট সময় পরই তা নেমে আসবে মঙ্গলের মাটিতে নামা ল্যান্ডারে।

নাসা আরভিএলটি প্রজেক্ট ম্যানেজার সুজান গর্টন বলেন, 'এটা আমাদের কাছে অনেক রোমাঞ্চকর, এর জন্য আমরা রাত-দিন অনেক পরিশ্রম করেছি। ভবিষ্যতে পরিবহন খাতেও যুগান্তকারী পরিবর্তন আনবে এ হেলিকপ্টার।'

মোনাস ইউনিভার্সিটির জ্যোর্তিবিজ্ঞান লেকচারার ড. জেসমিনা গ্যালওয়ে বলেন, মঙ্গল গ্রহের বিস্তারিত জানাতে সাহায্যে করবে এটি। মঙ্গল গ্রহের সুস্পষ্ট ছবি পাওয়ার জন্য এই হেলিকপ্টারের সাথে যুক্ত করা হয়েছে শক্তিশালী ক্যামেরা।'

প্রাথমিকভাবে কপ্টারটির দক্ষতা বুঝতে আপাতত একটিই পাঠানো হচ্ছে মঙ্গলে। যা মূলত অনুসন্ধান করবে গ্রহের ইতিহাস বোঝার চেষ্টা করবে কি কি পরিবর্তন এসেছে সেখানে। কিংবা আদৌ কি কখনো কোন প্রাণের অস্তিত্ব ছিল মঙ্গলে!

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

তথ্য প্রযুক্তি খবর