channel 24

সর্বশেষ

  • নতুন গান 'হাবিবি' নিয়ে আসছে নুসরাত ফারিয়া

  • রাজারবাগ পীরের সম্পদের তথ্য নিয়ে আপিলের শুনানি আজ

  • আগামীকাল আদালতে নেয়া হবে সম্রাটকে

  • শিশু ধর্ষণের অভিযোগে কিশোর আটক

  • ভারত-পাকিস্তান মহারণ: পরিসংখ্যান কি বলছে?

  • বিয়েতে গড়িমসি করায় প্রেমিকের জিহ্বা কেটে দিলেন প্রেমিকা

  • আজ জাতিসংঘ দিবস

  • চুরি করতে গিয়ে নুরুল দম্পতিকে হত্যা করে রিকশা চালক: পিবিআই

  • স্বপ্নের পায়রা সেতু উদ্বোধন আজ

  • বাবরদের ভারত বধের টোটকা দিয়েছেন ইমরান খান

  • মুহিবুল্লাহ হত্যা: আদালতে আজিজুলের স্বীকারোক্তি

  • প্রধানমন্ত্রীকে নিয়ে কটূক্তি পোস্ট ফেসবুকে শেয়ার, ক‌লেজ শিক্ষক আটক

  • নিয়ন্ত্রণে বাড্ডার আগুন

  • আপেল যখন বিপদের কারণ!

  • হজমের সমস্যা সমাধানের কার্যকরী ৬ উপায়

ফুটবলারদের সঙ্গে কেঁদেছেন প্রবাসী সমর্থকরাও

ফুটবলারদের সঙ্গে কেঁদেছেন প্রবাসী সমর্থকরাও

মালদ্বীপের রাশমিধানু স্টেডিয়াম যেন এদিন পরিণত হয়েছিল একখণ্ড বাংলাদেশে। মালদ্বীপে অবস্থানরত প্রবাসী বাংলাদেশিদের অকুণ্ঠ সমর্থন বাংলাদেশ শুরু থেকেই পেয়ে আসছিল। সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের অলিখিত সেমিফাইনালে সেই সমর্থন বৃদ্ধি পেয়েছে আরও কয়েকগুণ। তবে সবকিছু ছাপিয়ে ফুটবলপ্রেমী বাংলাদেশিদের মাঠ ছাড়তে হয়েছে অশ্রুসিক্ত নয়নে। 

১৬ বছরের অপেক্ষা শেষে ফাইনালে পৌঁছাতে জয়ের বিকল্প ছিলো না বাংলাদেশের সামনে। কোচ অস্কার ব্রুজনের শিষ্যরা সেই লক্ষ্যেই অবিচল ছিলো ম্যাচের ৮৬ তম মিনিট পর্যন্ত। তবে ৮৭ মিনিটে উজবেকিস্তানের রেফারির বিতর্কিত পেনাল্টি ভেস্তে দেয় সব। যে সিদ্ধান্তে কান্নায় ভেঙে পড়ে বাংলাদেশি ফুটবলাররা, তেমনি স্বপ্ন ভাঙায় চোখের পানি আটকাতে পারেনি মাঠে আসা বাংলাদেশি সমর্থকরাও। 

আরও পড়ুনঃ রেফারির বিতর্কিত সিদ্ধান্তে স্বপ্নভঙ্গ বাংলাদেশের

১-০ তে এগিয়ে থাকা বাংলাদেশ প্রথম ধাক্কা খায় আনিসুর রহমান জিকোর লাল কার্ডে। ১০ জনের বাংলাদেশও অবশ্য ভালোই প্রতিরোধ গড়ে তুলেছিল। তবে ম্যাচ শেষ হবার ৪ মিনিট আগে সেই সব প্রতিরোধ ভেঙে পড়ে। 

বাম পাশ থেকে আসা ক্রস নেপালের ফুটবলার হেড করার চেষ্টা করলে পিছন থেকে সাদউদ্দিন প্রেসার দিলে মাটিতে পড়ে যান তিনি। আর তাতেই পেনাল্টির বাঁশি বাজান রেফারি। রেফারির সিদ্ধান্ত মেনে নিতে পেরে প্রতিবাদ করতে দেখা যায় বাংলাদেশি ফুটবলারদের। তবে লাভ হয়নি। নিজের সিদ্ধান্তে অটল ছিলেন তিনি।

স্পট কিক থেকে গোল করতে ভুল করেনি অঞ্জন বিষ্ঠা। গোলের পর গ্যালারি হয়ে যায় নিশ্চুপ, তবে হাল ছাড়েননি ফুটবলাররা। শেষ মুহুর্ত পর্যন্ত লড়াই করেছে ১০ জনের দলে পরিণত হওয়া লাল-সবুজের প্রতিনিধিরা। 

নির্ধারিত সময়ের বাশি বাজার সাথে সাথেই মাটিতে লুটিয়ে পড়ে রাকিব-সাদরা। অন্যদিকে রেফারির সঙ্গে বাগবিতণ্ডায় লিপ্ত হতে দেখা যায় তপু বর্মণসহ কয়েকজন ফুটবলারকে। স্টেডিয়াম ভর্তি বাংলাদেশি সমর্থকরা দুয়ো দিতে থাকে রেফারিকে। পরিস্থিতির অবনতি ঘটতে থাকায় এক পর্যায়ে নিরাপত্তারক্ষীদের সাহায্য নিয়ে মাঠ ছাড়তে হয় রেফারিদের।  

এসএম

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

স্পোর্টস 24 খবর