channel 24

সর্বশেষ

  • নোয়াখালীর হাতিয়ার যুবলীগ কর্মীকে কুপিয়ে হত্যার অভিযোগ

  • শ্রীলঙ্কা ফেরত ক্রিকেটাররা অনুশীলনে যোগ দেবেন কাল

  • বাংলাদেশে আসছে না শ্রীলঙ্কার সিনিয়র ক্রিকেটাররা

  • ছন্দে ফিরতে চান মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন

  • ঈদ কেনাকাটায় মানুষের ঢল

  • চট্টগ্রামে ইবাদত বন্দেগির মাধ্যমে পালিত হচ্ছে জুমাতুল বিদা

  • সরকার আন্তরিক হলেও খালেদা জিয়াকে বিদেশ নেয়া সময় সাপেক্ষ

  • কুড়িগ্রামের শপিংমলে ক্রেতা সমাগম; মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি

  • সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে গাছ কাটার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ

  • দেশে করোনায় ৫ সপ্তাহের মধ্যে সর্বনিম্ন মৃত্যু

  • চট্টগ্রামে প্রতিবন্ধীদের মাঝে ঈদ উপহার

  • বন্দরনগরীর মার্কেটগুলোতে প্রচুর ক্রেতা সমাগম

  • সফল মেকআপ আর্টিস্ট প্রতিবন্ধী হান্না ওলেটেজুর

  • ব্যাকটেরিয়ার আক্রমণ চিংড়ি হ্যাচারিতে; ক্ষতির মুখে মালিকরা

  • হালিশহরে অজ্ঞাত যুবকের মরদেহ উদ্ধার

বিদ্রোহী সুপার লিগে অংশ নিলেই ক্লাব পাবে ৩৬ হাজার কোটি টাকা

বিদ্রোহী সুপার লিগে অংশ নিলেই ক্লাব পাবে ৩৬ হাজার কোটি টাকা

সুপার লিগের বিদ্রোহে টালমাটাল বিশ্ব ফুটবল। যে টুর্ণামেন্টে অংশ নিলেই ক্লাব পাবে ৩৬ হাজার কোটি টাকা। এর মাস্টার মাইন্ড রিয়াল মাদ্রিদ প্রেসিডেন্ট ফ্লোরেন্তিনো পেরেজ। আর অসীম অর্থ লগ্নি করছে আমেরিকান বিনিয়োগ ব্যাংক জেপি মরগ্যান। উয়েফা ও ফিফা দিয়েছে নিষিদ্ধের হুমকি। এর মাঝেই ইউরোপিয়ান ক্লাব এসোসিয়েশন থেকে বের হয়ে গেছে ম্যান ইউ, চেলসি ও আর্সেনাল।

২০০৯-এ আর্সেন ওয়েঙ্গার বলে গিয়েছিলেন এক দশকের মধ্যে বদলে যাবে ইউরোপিয়ান ফুটবল। সেই বদলটা আসতে চলেছে এগার বছরের মধ্যে। পরিবর্তন না বলে আসলে বলা উচিত ধাক্কা। ইউরোপ বড় ধাক্কা খেয়েছে রোববার রাতেই। যা গত কয়েক বছর ধরে ছিলো আলোচনায়। এবার ইউরোপিয়ান সুপার কাপ বাস্তবের আরো কাছে। রিয়াল মাদ্রিদ প্রেসিডেন্ট ফ্লোরেন্তিনো পেরেজ যার মাস্টার মাইন্ড। 

ইংল্যান্ড, স্পেন ও ইতালির শীর্ষ ১২ দল একজোট হয়ে ঘোষণা দিয়েছে নতুন এই ক্লাব টুর্নামেন্টের। যার মূলে শুধুই অর্থ। ডলার, ইউরো, পাউন্ডের ঝনঝনানি যার মূলে। টাকা যেন একটা সংখ্যা মাত্র। ২০ দলের টুর্নামেন্টে ১৫ দল প্রতি বছরই ঠিক থাকবে। বাকি পাঁচটি দলকে নেয়া হবে আমন্ত্রণের ভিত্তিতে। সেই হিসাবে তিনটি স্থায়ী ক্লাব এখনো শূণ্য। আলোচনায় আছে ফরাসী জায়ান্ট পিএসজির নামও। তবে পর্তুগিজ ক্লাব পোর্তো প্রত্যাখান করেছে এই আহবান। 

টুর্নামেন্ট শুধু অংশ নিলেই সাড়ে তিন বিলিয়ন ডলার করে পাবে প্রতিটি ক্লাব। বাংলাদেশি টাকায় যা ৩৫ হাজার ৭শ কোটি টাকা। এতো গেলো অংশগ্রহন ফি। গ্রুপ পর্ব পেরিয়ে নক আউটে গেলে অংক বাড়বে আরও। আর চ্যাম্পিয়ন হলে ৪০০ মিলিয়ন ইউরো। চ্যাম্পিয়ন্স লিগে যে সংখ্যাটা ১২০ মিলিয়ন।

কোথা থেকে আসবে এত টাকা? কে দেবে? আমেরিকান বিনিয়োগ ব্যাংক জেপি মরগ্যান পুরো প্রকল্পে অর্থ বিনিয়োগ করছে। স্পন্সর ছাড়াও টিভি স্বত্ত্ব থেকে আসবে টাকা। দশ বিলিয়ন ইউরো আশা করছেন আয়োজকরা। যেখানে মাত্র ৪ মিলিয়ন ইউরো আসে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ও ইউরোপা লিগ থেকে।

উয়েফা ও ফিফা বিবৃতি দিয়ে এই টুর্নামেন্টের বিপক্ষে অবস্থান নিয়েছে। এমনকি ফুটবলারদেরকেও নিষিদ্ধ করার হুমকিও দিয়েছে। কিন্তু এই শীর্ষ ক্লাবকে ছাড়া কিভাব হবে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ? থাকবে এই টুর্নামেন্টের আকর্ষণ?

আসন্ন চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ও ইউরোপা লিগের সেমিফাইনালের আট ক্লাবের পাঁচটিই খেলতে রাজি ইউরোপিয়ান সুপার লিগে। আপাতত তাই হার্ড লাইনে যেতে পারছে না সংস্থাটি। অনুমতি দিয়েছে সবাইকে শেষ চার খেলার।

যদিও পরিস্কার হুমকি উয়েফা প্রেসিডেন্ট আলেক্সন্ডার সেফেরিনের। যেসব ফুটবলার এই টুর্নামেন্ট খেলবে তারা খেলতে পারবে না বিশ্বকাপ। 

ফুটবলার, কোচ, ক্লাব কর্তা আর সমর্থকরা বিভক্ত দুই ভাগে। কোথাও কোথাও শুরু হয়েছে প্রতিবাদ। আবার কোথাও জয়গান।

 

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

স্পোর্টস 24 খবর