channel 24

সর্বশেষ

  • পৃথক ধর্ষ‌ণের ঘটনায় বৃদ্ধ ও কথিত প্রেমিক গ্রেপ্তার

  • সড়ক দুর্ঘটনায় দেশের বিভিন্ন স্থানে নিহত ৮

  • ডুবে যাওয়া শিশুর মরদেহ ভে‌সে উঠ‌লো কুমার নদীতে

  • সমন্বয় না থাকলে ডেঙ্গু থেকে বাঁচা দুঃসাধ্য: সুলতানা কামাল

  • বান্দরবানে পর্যটকবাহী গাড়িতে গু'লি, আহত ২

  • ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে থাকবে যেসব এক্সারসাইজে

  • মায়ের দেনা শোধে 'বক্সিং রিংয়ে' ৯ বছরের শিশু টাটা

  • ১৬৫০ কৃষি কর্মকর্তা নিয়োগ: আপিল শুনানি ২০ সেপ্টেম্বর

  • কক্সবাজার সৈকতে দুই কলেজ শিক্ষার্থীর রহস্যজনক মৃ'ত্যু

  • দিনাজপুরে ট্রাকের ধাক্কায় কাস্টমস কর্মকর্তা নিহত

  • পর্যাপ্ত পরিমাণ পানি পানের উপকারিতা

  • তৃণমূলে যোগ দিলেন বিজেপি সাংসদ বাবুল সুপ্রিয়

  • পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রীর পদত্যাগ

  • কুড়িগ্রামে করোনাকালে বেড়েছে বাল্যবিবাহ

  • ইভ্যালিতে ক্ষতিগ্রস্ত গ্রাহকের টাকার সন্ধানে পুলিশ

বিশ্বকাপের ফ্লপ কিক্রেটার যারা

বিশ্বকাপের ফ্লপ কিক্রেটার যারা

বিশ্বকাপ ক্রিকেটের পর্দা নামার পরপরই দলগুলোতে চলছে ক্রিকেটারদের পারফরমেন্সের চুলচেড়া বিশ্লেষণ। কার কারণে হেরেছে দল। আর কাদের ব্যর্থতায় প্রত্যাশা মেটাতে ব্যর্থ নিজের প্রিয় দল। দ্বাদশ আসর শেষে আমরাও দেখে নেবো এবারের বিশ্বকাপে ফ্লপ ক্রিকেটার ছিলেন কারা।

বিশ্বকাপ। যে মঞ্চে জন্ম নেন আগামীর তারকা। আবার প্রত্যাশার ভারে নুয়ে পড়েন কেউ কেউ। হয় কক্ষচ্যুতি। দ্বাদশ আসরও তার ব্যতিক্রম নয়। 

ইংল্যান্ড আসরেই যেখানে ক্যারিয়ারের সোনালী সময় পার করেছেন সাকিব। সেখানে ভুলে যাওয়ার মতো এক অধ্যায় পার করেছেন স্বতীর্থ মাশরাফি বিন মোর্ত্তজা। কবছর ধরে যিনি কিনা বাংলাদেশের সবচেয়ে ধারাবাহিক বোলার, তিনি কিনা ৮ ম্যাচে পেয়েছেন মাত্র ১ উইকেট? আর দশ ওভারের কোটাতো পেরুতে পেরেছেন মাত্র একবার। ফ্লপদের একাদশে চাইলেই অধিনায়ক হতে পারেন নড়াইল এক্সপ্রেস। 

একই হাল থিসারা পেরেরার। দুই ম্যাচ কম খেলে রান আর উইকেটে মাশরাফির সমান লঙ্কান অলরাউন্ডার। 

তবে সবচেয়ে দুর্ভাগা বোধহয় মার্টিন গাপটিল। সেমিফাইনালে এক ধনির রান আউট বাদে বলার মতো কিছু করে দেখাতে পারেননি কিউই ওপেনার। ব্যাড প্যাচের বিশ্বকাপে ৮ ম্যাচে তার সংগ্রহ ১৮৬ রান।

টুর্নামেন্টের আগে যতটা গর্জেছেন ততটা বর্ষাননি রশিদ খান। দলের মতো আসরের সবচেয়ে সুপার ফ্লপ আফগান সুপার স্টার। ৯ ম্যাচে ৬ উইকেট বড্ড বেমানান তার সাথে।

অভিজ্ঞতার জোরে বিশ্বকাপ দলে টিকলেও ফর্মহীনতা পিছু ছাড়েনি হাশিম আমলার। শেষ তিন ম্যাচে ২ ফিফটি করেও ব্যর্থতা ঢাকতে পারেননি প্রোটিয়া ওপেনার। সঙ্গী ডি ককেরও একই হাল।

আমলার মতো শেষ বিশ্বকাপটা রাঙ্গাতে পারেনি ক্রিস গেইলও। ৯ ম্যাচে ২৪২ রান করলেও একবারও দেখা যায়নি সেই গেইলকে। যার জন্য অপেক্ষায় ছিলো পুরো ক্রিকেট বিশ্ব।

প্রত্যাশার প্রতিদান দিতে ব্যর্থ মহেন্দ্র সিং ধনিও। একেতো রান খরা তার ওপর ধীর গতির ব্যাটিংয়ে উল্টো সমালোচিত সাবেক বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক। 

ধোনি গেইল মাশরাফীদের মত বিদায়ী বিশ্বকাপ ছিলো ডেল স্টেইনেরও। তবে ইনজুরিতে কোন ম্যাচ না খেলেই বাড়ী ফেরার দুর্ভাগ্য বরন করতে হয়েছে প্রোটিয়া স্পিডস্টারকে।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

স্পোর্টস 24 খবর