channel 24

সর্বশেষ

  • চিঠি পাঠিয়ে তাইওয়ানকে সতর্ক করলেন জিনপিং

  • গ্রামে বেড়ে ওঠার সময়গুলো খুব মিস করি: শফিক তুহিন

  • বাংলা সিনেমায় প্রথম অ্যানিমেশন টিজার প্রকাশ করলো ‘পদ্মাপুরান’

  • ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় এবার ৫৮০ মণ্ডপে দুর্গাপূজা

  • পার্বত্য চট্টগ্রামের পথ কুকুর পাচার হচ্ছে মিজোরামে

  • 'নদী বাঁচলে মানুষ বাঁচবে'

  • শিরোপা অক্ষুণ্ন রাখার মিশনে প্রস্তুত টাইগার যুবারা

  • দুর্নীতির মামলায় সাবেক প্রতিমন্ত্রী মান্নান খান ও তার স্ত্রীর বিচার শুরু

  • সোমবার থেকে লাখ লাখ স্মার্টফোনে বন্ধ হচ্ছে গুগলের সেবা

  • খুলেছে ঢাবি গ্রন্থাগার, কর্তৃপক্ষের নির্দেশ উপেক্ষা চাকরিপ্রার্থীদের

  • সাড়ে ১০ হাজার শ্রমিককে ভিসা দেবে যুক্তরাজ্য

  • নাসিরনগরে পানিতে ডুবে যমজ ভাই-বোনের মৃত্যু

  • এক ধাপ এগিয়েছে বাংলাদেশ, পিছিয়েছে বিএনপি: কাদের

  • বিমানবন্দরে পরীক্ষামূলকভাবে আরটিপিসিয়ার ল্যাব চালু

  • তেলের মিলের পাশে পড়ে ছিলো আনসার কমান্ডারের লাশ

জাপানি দুই শিশুর কী হবে?

জাপানি দুই শিশুর কী হবে?

জাপানি দুই শিশুর কী হবে? সাত সমুদ্র তেরো নদী পেরিয়ে আসা মা পাবেন; নাকি দেশের নাগরিকত্ব আইন অনুযায়ী বাবার কাছেই থাকবে। শিশু অধিকার নিয়ে এমন জটিল মামলা আগে না আসায় অদ্ভুত এক আইনি সমীকরণের সামনে দাঁড়িয়ে দেশের সর্বোচ্চ আদালত।

সন্তানের অধিকার নিয়ে বাবা মায়ের দ্বন্দ্ব জাপান থেকে গড়িয়ে বাংলাদেশের আদালতে। এ নিয়ে গেলো দুই সপ্তাহে দ্বিধাবিভক্ত সামাজিক যোগাযোগ। দোষ কার? তা খুঁজতেই যেন ব্যস্ত সব মহল। কেউ খোঁজেনি ছোট্ট দুই শিশুর অধিকার যে কেড়ে নিয়েছে দুপক্ষই।

ভারতের সুপ্রিম কোর্টে প্রথম এমন মামলার নজির আসে ১৯৮৪ সালে। এরপর একে একে আটটি মামলা হয়েছে দেশটির সুপ্রিম কোর্ট। সব ক্ষেত্রেই শিশুদের অধিকারকে প্রাধান্য দিয়েছেন দেশটির সুপ্রিম কোর্ট। সবশেষ ২০২০ সালে আমেরিকা থেকে ২ সন্তান নিয়ে ভারতে চলে আসেন এক মা। আমেরিকান সেই বাবা নীলাঞ্জন ভট্টাচার্য ভারতের সুপ্রিম কোর্টে মামলা জিতে শিশু দুটি আমেরিকায় নিয়ে যেতে পেরেছিলেন। এক্ষেত্রে ভারতের সুপ্রিম কোর্ট গুরুত্ব দিয়েছিলো শিশু দুটি জন্ম, বেড়ে ওঠা, সামাজিকতা।

জাপান থেকে আনার পর শিশুদুটিকে রাজধানীর নবোদয় প্রি ক্যাডেট স্কুলে ভর্তি করেছেন তাদের বাবা। কিন্তু জাপানে তারা পড়তো আমেরিকান ইন্টারন্যাশনাল স্কুলে। দুটি স্কুলের পাশাপাশি ছবি হয়তো বলে দেবে বাস্তবতা কতটা ফারাক।

হাইকোর্টের আদেশের পর থেকেই দুই শিশু আছেন পুলিশের ভিক্টিম সাপোর্ট সেন্টারে। এনিয়ে দুপক্ষ অভিযোগ তুললেও শুরুতে কোনো সমাধানে পৌঁছাতে পারেনি কেউ। দেরিতে হলেও এখন ভিক্টিম সাপোর্ট সেন্টার থেকে তাদের বের করতে সম্মত দুই পক্ষই।

এদিকে শিশু দুটির বাবার ভয়, জাপানে গেলে আবার গ্রেপ্তার হবেন তিনি।

৩১ আগস্ট মঙ্গলবার শিশু দুটিকে হাজির করা হবে হাইকোর্টে। সেখানেই নির্ধারিত তাদের ভবিষ্যৎ।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর