channel 24

সর্বশেষ

  • সুপার লিগ নিয়ে রিয়ালের পাশে বার্সেলোনা

  • একদিনে ভারতে করোনায় প্রাণহানি ২২৬৩

  • করোনায় দেশে আরো ৮৮ জনের মৃত্যু

  • লঙ্কান ঘাঁটিতে প্রথম আঘাত মিরাজের

  • ঈদকে সামনে রেখে ঝুঁকি নিয়ে দোকান খুলছেন গোপালগঞ্জের ব্যবসায়ীরা

  • একক দেশের সাথে ভ্যাকসিনের চুক্তি ছিল বোকামি

  • করোনার দুঃসময়ে অসুস্থতার প্রতি মুহূর্ত কাটে অজানা আতঙ্কে

  • বোরোর ফলন ভালো হলেও শ্রমিক সংকটে দুঃশ্চিন্তায় সুনামগঞ্জ ও নওগাঁর কৃষকরা

  • ২৫ এপ্রিল খুলছে দোকানপাট ও শপিংমল

  • ৪০ লাখ টাকায় মিলবে 'পাবনার বস'

  • করোনায় খেয়ে না খেয়ে দিন কাটছে পথশিশুদের

  • ভারতে ভয়াবহ হচ্ছে করোনা পরিস্থিতি, ভেঙ্গে পড়েছে স্বাস্থ্য ব্যবস্থা

  • ক্যান্ডিতে ৫০০ রানের কোটা পেরিয়েছে বাংলাদেশ

  • নানা সংকটে নাটোর সদর হাসপাতাল, নেই আইসিইউ ও সেন্ট্রাল অক্সিজেন

  • ধর্ষণ মামলার পর আত্মগোপনে বরিশাল মহানগর ছাত্রলীগ সভাপতি

লঞ্চ দুর্ঘটনায় দায়ীরা সব সময়ই সৌভাগ্যবান!

লঞ্চ দুর্ঘটনায় দায়ীরা সব সময়ই সৌভাগ্যবান!

লঞ্চ দুর্ঘটনায় দায়ীরা সব সময়ই সৌভাগ্যবান। মামলা হলেও তাদের বিচার হয় না। কখনও রাষ্ট্রপক্ষের উদাসীনতা, কখনোবা সাক্ষী হাজির করতে না পারা। তবে কিছুটা দায় রয়েছে দেশের সর্বোচ্চ আদালতেরও।

লঞ্চ ডোবে; লাশ ভাসে। মামলা হয়, কিন্তু হয় না বিচার। অবহেলাজনিত মৃত্যু ও বেপরোয়া জাহাজ চালানোর অভিযোগে মামলায় ধারা দেয়া হয় ২৮০ ৩০৪ ক ও ৪৩৭ ধারায়। যার সর্বোচ্চ সাজা ১০ বছর কারাদণ্ড। কিন্তু চার্জশিট হওয়ার পর দেখা যায় সবাইকে অভিযুক্ত করা হয় ৩০৪ ক ধারায় যার সাজা আরও কম মাত্র ৫ বছর।

দেশে লঞ্চ ও নৌ দুর্ঘটনার ১৮ টি মামলা নৌ আদালতে চলমান। সবশেষ গেলে বছর জুনে ময়ূর ২ লঞ্চ দুর্ঘটনা ঘটে। মারা যায় ৩৪ জন। মালিকসহ বেশকজনকে আসামি করে চার্জশিট দেয়া হয়েছে, তবে ধারা সেই আগেরগুলোই।

নৌ আদালতে বিচারাধীন মামলাগুলোর মধ্যে পিনাক-৬, এমভি মিরাজ, এমভি বন্ধন, এমভি সারথী মতো বড় বড় মামলার কার্যক্রম উচ্চ আদালতে স্থগিত রয়েছে। এসব মামলা শুরুর কোন উদ্যোগ নিতে দেখা যায়নি রাষ্ট্রপক্ষকে।

চাঁদপুরে ২০০২ সালে এমভি সালাউদ্দিন ডুবে যায় মারা যান ৩৬৩ যাত্রী। ২০০৩ সালে ডোবে এমভি নাসরিন। মারা যায় ৬৪১ জন। ২০০৪ সালে এমভি লাইটিং সান লঞ্চ দুর্ঘটনায় মারা যান ৮১ জন। এমভি দিগন্ত লঞ্চ দুর্ঘটনায় মারা গিয়েছিলো শতাধিক যাত্রী। এছাড়া ভৈরবের মেঘনা নদীতে এমএল মজলিসপুরে ডুবে মারা যান ৯০ জন। তবে এসব মামলার কোনটিরই সাক্ষীরা ঠিক মত আসেননি সাক্ষ্য দিতে। আর তাই চূড়ান্তভাবে নিষ্পত্তি হয়নি কোন মামলা।

গেলো ২৫ বছরে প্রায় ৪ শতাধিকেরও বেশি নৌ দুর্ঘটনা ঘটে। এতে সব মিলিয়ে নিহত হয়েছে চার হাজারের বেশি মানুষ।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর