channel 24

সর্বশেষ

  • রামপুরায় বাসচাপায় এসএসসি পরীক্ষার্থী নিহত, চালকসহ আটক ২

  • রাশিয়ার নতুন হাইপারসনিক মি সা ই ল আটকানোর ক্ষমতা নেই কারো

  • ‘জিন্স ও সানগ্লাস পরা তালেবান গোয়েন্দারাই কাবুলের পতন ঘটিয়েছে’

  • রাজধানীর রামপুরায় বাসচাপায় শিক্ষার্থীর মৃত্যু, প্রতিবাদে বাসে আগুন

  • বেগম জিয়ার স্বাস্থ্য নিয়ে ডাক্তারদের বক্তব্য বিএনপির শেখানো: তথ্যমন্ত্রী

  • টুইটার প্রধানের পদ ছাড়লেন জ্যাক ডরসি, নতুন সিইও ভারতের পরাগ

  • ভারতকে হারিয়ে ত্রিদেশীয় সিরিজ শুরু টাইগার যুবাদের

  • নাঈমকে গাড়িচাপা দিয়ে মে রে ফেলার কথা স্বীকার করলেন রাসেল

  • মৌখিক আশ্বাসে আন্দোলন বন্ধ করবে না শিক্ষার্থীরা

  • ৫০ বার রূপ বদলেছে ‘ওমিক্রন’ (ভিডিও)

  • খালেদা জিয়ার বিদেশ থেকে চিকিৎসক আনার অনুমতি রয়েছে: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

  • আফগানিস্তান নিয়ে ওআইসিতে বিশেষ বৈঠক ডেকেছে সৌদি আরব

  • গণতন্ত্র সম্মেলনের প্রশ্ন এড়িয়ে গেলেন মার্কিন রাষ্ট্রদূত

  • বউ পেটানোর পক্ষে ৩০ শতাংশ ভারতীয় নারী

  • নির্বাচন কমিশনের উদাসীনতায় থামছে না সহিং সতা: বিশ্লেষক

লঞ্চ দুর্ঘটনায় দায়ীরা সব সময়ই সৌভাগ্যবান!

লঞ্চ দুর্ঘটনায় দায়ীরা সব সময়ই সৌভাগ্যবান!

লঞ্চ দুর্ঘটনায় দায়ীরা সব সময়ই সৌভাগ্যবান। মামলা হলেও তাদের বিচার হয় না। কখনও রাষ্ট্রপক্ষের উদাসীনতা, কখনোবা সাক্ষী হাজির করতে না পারা। তবে কিছুটা দায় রয়েছে দেশের সর্বোচ্চ আদালতেরও।

লঞ্চ ডোবে; লাশ ভাসে। মামলা হয়, কিন্তু হয় না বিচার। অবহেলাজনিত মৃত্যু ও বেপরোয়া জাহাজ চালানোর অভিযোগে মামলায় ধারা দেয়া হয় ২৮০ ৩০৪ ক ও ৪৩৭ ধারায়। যার সর্বোচ্চ সাজা ১০ বছর কারাদণ্ড। কিন্তু চার্জশিট হওয়ার পর দেখা যায় সবাইকে অভিযুক্ত করা হয় ৩০৪ ক ধারায় যার সাজা আরও কম মাত্র ৫ বছর।

দেশে লঞ্চ ও নৌ দুর্ঘটনার ১৮ টি মামলা নৌ আদালতে চলমান। সবশেষ গেলে বছর জুনে ময়ূর ২ লঞ্চ দুর্ঘটনা ঘটে। মারা যায় ৩৪ জন। মালিকসহ বেশকজনকে আসামি করে চার্জশিট দেয়া হয়েছে, তবে ধারা সেই আগেরগুলোই।

নৌ আদালতে বিচারাধীন মামলাগুলোর মধ্যে পিনাক-৬, এমভি মিরাজ, এমভি বন্ধন, এমভি সারথী মতো বড় বড় মামলার কার্যক্রম উচ্চ আদালতে স্থগিত রয়েছে। এসব মামলা শুরুর কোন উদ্যোগ নিতে দেখা যায়নি রাষ্ট্রপক্ষকে।

চাঁদপুরে ২০০২ সালে এমভি সালাউদ্দিন ডুবে যায় মারা যান ৩৬৩ যাত্রী। ২০০৩ সালে ডোবে এমভি নাসরিন। মারা যায় ৬৪১ জন। ২০০৪ সালে এমভি লাইটিং সান লঞ্চ দুর্ঘটনায় মারা যান ৮১ জন। এমভি দিগন্ত লঞ্চ দুর্ঘটনায় মারা গিয়েছিলো শতাধিক যাত্রী। এছাড়া ভৈরবের মেঘনা নদীতে এমএল মজলিসপুরে ডুবে মারা যান ৯০ জন। তবে এসব মামলার কোনটিরই সাক্ষীরা ঠিক মত আসেননি সাক্ষ্য দিতে। আর তাই চূড়ান্তভাবে নিষ্পত্তি হয়নি কোন মামলা।

গেলো ২৫ বছরে প্রায় ৪ শতাধিকেরও বেশি নৌ দুর্ঘটনা ঘটে। এতে সব মিলিয়ে নিহত হয়েছে চার হাজারের বেশি মানুষ।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর