channel 24

সর্বশেষ

  • ঘোলাটে হচ্ছে রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় পরিস্থিতি, ভিসির কুশপুত্তলিকা পোড়ালো ছাত্রলীগ

  • দিনাজপুরে আইনজীবী সমিতির দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ১০

  • বনানী কবরস্থানে চিরশয়নে এইচ টি ইমাম

  • তিস্তা নিয়ে ভারতের অবস্থান অপরিবর্তিত: ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী

  • তদন্তে লেখক মুশতাকের মৃত্যু স্বাভাবিক: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

  • প্রধানমন্ত্রীর সাথে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্করের সৌজন্য সাক্ষাত

  • দক্ষিণাঞ্চলে আরেকটি পরমাণু বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ করা হবে: প্রধানমন্ত্রী

  • অপরাধ যাই হোক, শিশুদের সাজা সর্বোচ্চ ১০ বছর: হাইকোর্ট

  • দক্ষ নাবিক তৈরিতে চট্টগ্রামে আধুনিক শিপ ব্রিজ সিমুলেটর স্থাপন

  • করোনার ভ্যাকসিন নিলেন প্রধানমন্ত্রী

  • খাগড়াছড়িতে শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ চেষ্টা মামলায় শিক্ষক কারাগারে

  • ধনঞ্জয়ের হ্যাটট্রিক ছাপিয়ে কাইরন পোলার্ডের ছয় ছক্কা

  • আবারও কথিত 'ক্রসফায়ারে' রামুতে যুবকের মৃত্যু, মাদক কারবারি দাবি র‍্যাবের

  • নিউজিল্যান্ডে প্রথমবারের মত অনুশীলনে টিম বাংলাদেশ

  • 'উন্নয়নশীল তালিকাভুক্তির অপেক্ষায় থাকা ১২ দেশের মধ্যে বাংলাদেশেরই রপ্তারি কমবে'

আওয়ামী লীগ নেতা জামিন নিলেন বিএনপি কর্মী পরিচয়ে

আওয়ামী লীগ নেতা জামিন নিলেন বিএনপি কর্মী পরিচয়ে

নিজ এলাকায় আওয়ামী লীগের প্রভাবশালী নেতা কিন্তু হাইকোর্টে জামিন নিয়েছেন বিএনপি কর্মী হিসেবে। যদিও তাদের সবার নামে সোনা চোরাচালানের মামলা। ছয় সপ্তাহের আগাম জামিন নিলেও আদালতে হাজির হন এক বছরেরও বেশি সময় পরে। আবারও দিনমজুর পরিচয়ে জালিয়াতি করে জামিন নেন।

গোপালগঞ্জের মুকসুদপুরের এই আওয়ামী লীগ নেতা সাইফুল ইসলাম ও তার পরিবারের ৫ সদস্যের বিরুদ্ধে ২০১৮ সালে বিমানবন্দর থানায় স্বর্ণ চোরাচালানে একটি মামলা হয়। মামলায় ১৯৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইনের ২৫ বি এর ১ ধারা সংযুক্ত করা হয়। স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দিতে আসামি ইমরান, সাইফুল, পিকুল,শামীম, হাবিব, মেহেদী ও শেখ রনির নাম বলেন; যারা একই পরিবারের সদস্য।

২০১৯ সালের ৩০ এপ্রিল অভিযুক্তরা আগাম জামিন নেয় হাইকোর্টের একটি দ্বৈত বেঞ্চ থেকে। যেখানে উল্লেখ করেন, তারা বিএনপি নেতাকর্মী। তাদের রাজনৈতিকভাবে হয়রানির জন্য এ মামলা করা হয়েছে। গোপন করা হয় ১৬৪ ধারার জবানবন্দিও। জামিন পেয়ে দীর্ঘদিন পলাতক ছিলেন আসামিরা। এর ১ বছর ৭ মাস পর গত ১৮ ডিসেম্বর ঢাকার সিএমএম আদালতে এবার করোনার অজুহাতে জামিন নেন তারা। হাইকোর্টের আবেদন নিজেদের উচ্চ শিক্ষিত দাবি করলে, সিএমএম কোর্টের আবেদনে গরিব দিন মজুর হিসেবে মিথ্যা তথ্য দেন ওই ৫ আসামি।

তবে জামিন জালিয়াতির তথ্য অস্বীকার করলেন তাদের আইনজীবী মাসুদুল হক। দাবি, নিয়ম মেনেই জামিন হয়েছে।

এমন জামিন জালিয়াতির কথা শুনে হতবাক রাষ্ট্রের প্রধান আইন কর্মকর্তা এ এম আমিন উদ্দিন। বললেন, এটা ফৌজাদারি অপরাধ। এদের জামিন বাতিলের উদ্যোগ নেয়া হবে।

এ মামলার অন্যতম আসামি শেখ রনি এখনও ধরা ছোঁয়ার বাইরে।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর