channel 24

সর্বশেষ

  • হজম শক্তি বৃদ্ধি করে মিষ্টি কুমড়ার ফুল

  • আয়কর রিটার্ন দাখিল: চট্টগ্রামে বুথে বুথে ছিল করদাতাদের উপচেপড়া ভিড়

  • ওয়েস্ট ইন্ডিজ টেস্টের আগেই ফিরবেন মুমিনুল আশাবাদী প্রধান নির্বাচক

  • কালিয়াকৈর বাজারে আগুনে পুড়ে গেছে দেড়শো দোকান

  • মুজিব বর্ষ উপলক্ষে সবচেয়ে বড় অনলাইন কুইজ প্রতিযোগিতা

  • প্রেস টিমে ৭ নারী নিয়োগ দিয়ে ইতিহাস গড়লেন বাইডেন

  • নারীবাদী সংগঠনগুলোর সমালোচনার জবাব দিলেন হাইকোর্ট

  • বঙ্গবন্ধু টি টোয়েন্টিতে টানা তৃতীয় জয় চট্টগ্রামের

  • ডিআরইউ'র নতুন সভাপতি মুরসালিন নোমানী, সাধারণ সম্পাদক মসিউর

  • শিগগিরই ভাসানচরে যাচ্ছে ৫০০ রোহিঙ্গা পরিবার

  • ভারতে অমিত শাহ'র শর্ত নাকচ করে বিক্ষোভ চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা কৃষকদের

  • নদীতে 'খাঁচায় মাছ চাষ' করে স্বাবলম্বী সাইফুল

  • পি কে হালদারকে দেশে ফেরাতে ইন্টারপোলে দুদকের চিঠি

  • একটি উগ্র সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠী ভাস্কর্যের বিরোধিতায় নেমেছে: কাদের

  • সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের নবনিযুক্ত প্রিন্সিপাল স্টাফ অফিসারকে র‍্যাংক ব্যাজ পরিধান

ফলন ঠিক রেখে ধানী জমি কমাতে হাইব্রিড জাত চান কৃষিবিদরা

ফলন ঠিক রেখে ধানী জমি কমাতে হাইব্রিড জাত চান কৃষিবিদরা

সাড়ে ৫ কোটি টন ধান উৎপাদন করে বিশ্বে তৃতীয় এখন বাংলাদেশ। তবে ধান উৎপাদনে বিশ্বে তৃতীয় হলেও, হেক্টর প্রতি ফলনে অনেক পিছিয়ে। পুষ্টি নিরাপত্তা বলয় ঠিক রাখতে, শস্য বহুমুখীকরণ করতে হবে। সেক্ষেত্রে ধান উৎপাদনে উচ্চ ফলনশীল হাইব্রিড জাত চাষের পরামর্শ কৃষিবিদদের।

আমাদের দেশে ধান উৎপাদনে মোট আবাদি জমি লাগে ৮০ ভাগ অর্থাৎ ১ কোটি ২০ লাখ হেক্টর। অথচ চীন সমপরিমান ধান উৎপাদন করতে সক্ষম ৭৫ লাখ হেক্টরে, মিশর ৩৫ লাখ হেক্টরে এবং যুক্তরাষ্ট্র ৪৪ লাখ হেক্টরে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, তেল, ডাল, ফলমুলসহ বিভিন্ন পুষ্টিকর খাদ্যপণ্যের আমদানি নির্ভরতা কমাতে হলে বাংলাদেশকেও হাঁটতে হবে, মিশর, যুক্তরাষ্ট্র কিংবা চীনের পথে।

কৃষিবিদ কেএসএম মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, হাই ব্রিড ধান থেকে ২০ থেকে ২৫ ভাগ ধান বেশি উৎপাদন হবে। এতে ২০ থেকে ২৫ ভাগ জমি বেচে যাবে যেখানে আমরা  অন্য ফসল উৎপাদন করতে পারি।

কৃষিবিদদের এমন পরামর্শ আমলে নিয়ে, আসন্ন বোরো মৌসুমে প্রায় ১২ লাখ হেক্টর জমিতে হাইব্রিড ধান আবাদ করবে সরকার। যা গেল বছরের তুলনায় ২ লাখ হেক্টর বেশি।

কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর মহাপরিচালক মোহাম্মদ আসাদ উল্লাহ বলেন, ২ লক্ষ হেক্টর জমি মানে ২ লক্ষ মেট্রিকটন ফলন বৃদ্ধি করা। ২ লক্ষ মেট্রিকটন ফলন করতে আমার নরমাল যে জাত আছে তাতে জমি লাগবে ৫০ হাজার হেক্টর। তাহলে এই ৫০ হাজার হেক্টর জমি আমি পরিপূর্ণ পাচ্ছি। 

তবে দেশে উৎপাদিত হাইব্রিড ধানের মাতৃবীজ আসে বিদেশ থেকে। এই বিদেশ নির্ভরতা কমাতে দেশেই হাইব্রিড ধানের জন্য আলাদা গবেষণা প্রতিষ্ঠান চান সংশ্লিষ্টরা।

সুপ্রীম সীড কোম্পানী চেয়ারম্যান কৃষিবিদ মোহাম্মদ মাসুম বলেন, এই গবেষণায় দৃষ্টি আনার জন্য হাইব্রিড রাইস রিসার্চ ইনিস্টিউড জাতীয় কিছু একটা আমাদের এখানে হওয়া উচিত। যাতে একমাত্র হাইব্রিডের উপর গবেষনা করা যায়।

২০৫০ সালের মধ্যে দেশের মোট ধানের ৫০ ভাগ আসবে হাইব্রিড জাত থেকে। এজন্য একটি একটি হাইব্রিড ধান গবেষণা কেন্দ্র চালুর প্রস্তাব আছে মন্ত্রণালয়ে।

বাংলাদেশ ধান গবেষণা ইনস্টিউটের মহাপরিচালক ড. শাহজাহান কবির বলেন, 'আমরা আমাদের পরিকল্পনা অনুযায়ী এগুচ্ছি। আশা করি খুব দ্রুত বাস্তবায়ন হবে।'

আসন্ন বোরো মৌসুমে ৪৭ লাখ ৮৫ হাজার হেক্টরে জমিতে চাল উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে ২ কোটি ৪ লাখ টন।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর