channel 24

সর্বশেষ

  • মন্ত্রণালয়ের নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও রাবিতে ভিসির নিয়োগের ঘটনায় তদন্ত কমিটি

  • পবিত্র জুমাতুল বিদা আজ

  • ইপিএলে আজ লেস্টারের মুখোমুখি নিউক্যাসেল

  • খালেদা জিয়ার বিদেশে চিকিৎসা অনুমতির সুরাহা হতে পারে আজ

  • লরিয়াস স্পোর্টস অ্যাওয়ার্ড জিতলেন নাদাল-ওসাকা

  • ফেনীতে মাদ্রাসাছাত্রীর গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার

  • ইউরোপা লিগ ফাইনালে ম্যান ইউর প্রতিপক্ষ ভিয়ারিয়াল

  • প্রবাসী আয়ে প্রণোদনা দ্বিগুণের প্রস্তাব

  • নেপালে ভয়াবহ আকারে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ

  • হতদরিদ্রদের মাঝে স্বেচ্ছাসেবক লীগের ঈদ উপহার বিতরণ

  • পশ্চিমবঙ্গে নির্বাচন পরবর্তী সহিংসতায় ১৬ জন নিহত

  • আইপিএল মাঠে ফেরাতে উঠেপড়ে লেগেছে বিসিসিআই

  • শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে অনিশ্চিত কোয়ারেন্টিনে থাকা সাকিব-মোস্তাফিজ

  • অনিশ্চয়তায় বসুন্ধরা কিংসের এএফসি কাপ অভিযান

  • মেয়াদের শেষ দিনে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে শতাধিক নিয়োগ উপাচার্যের

নানা অনিয়মের পরও ষষ্ঠ মেয়াদে নিয়োগ পেতে ওয়াসার এমডির তোড়জোড়

নানা অনিয়মের পরও ষষ্ঠ মেয়াদে নিয়োগ পেতে ওয়াসার এমডির তোড়জোড়

তাকসিম এ খান। টানা ১১ বছর ধরে ঢাকা ওয়াসার এমডি। মেয়াদ শেষে মেয়াদ বাড়ে। বাড়ে অনিয়মের ফিরিস্তিও। প্রথমবার অভিজ্ঞতা ছাড়াই নিয়োগের পর মন্ত্রণালয়ের সতর্কবার্তাও উবে গেছে। শেষবার আইন ভেঙে ওয়াসা বোর্ডের কাছে উল্টো প্রস্তাব পাঠানোর নির্দেশ আসে মন্ত্রণালয় থেকেই। তাই এখন শুরু হয়েছে ষষ্ঠ মেয়াদে নিয়োগের তোড়জোড়।

২০০৯ সালে ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক নিয়োগের বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ হয় সংবাদপত্রে। এমডি পদের জন্য চাওয়া হয় পানি সরবরাহ ও স্যানিটেশনে ২০ বছরের অভিজ্ঞতা অথবা সাধারণ প্রশাসনে সিনিয়র পর্যায়ের অভিজ্ঞতা।

কিন্তু পানি সরবরাহ ও স্যানিটেশন বিষয়ক কোনো অভিজ্ঞতা না থাকলেও আবেদন করেন প্রকৌশলী তাকসিম এ খান। আছে কেবল দেশি বিদেশি প্রতিষ্ঠানের পরামর্শক হিসেবে কাজের খতিয়ান, যাদের সাথে পানি ব্যবস্থাপনা সংক্রান্ত কোন সংশ্লিষ্টতাই নেই।

যোগ্যতা না থাকলেও ৩ বছরের জন্য তাকেই নিয়োগের সুপারিশ করে বোর্ড। অনুমোদনও দেয় স্থানীয় সরকার বিভাগ। কিন্তু ১৪ অক্টোবর দেয়া অনুমোদনপত্রেই ভবিষ্যতের নিয়োগের ক্ষেত্রে পরীক্ষা আর নম্বর দেওয়ায় সতর্ক হওয়ার নির্দেশনা ছিল। যদিও সতর্কতার নজির মেলেনি।

পরে ২০১২ সালে ৩ বছরের সুপারিশের বিপরীতে মেয়াদ বাড়ে ১ বছর। তৃতীয় দফা নিয়োগে ঘটে তেলেসমাতি। তৎকালীন স্থানীয়সরকারমন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম দেশের বাইরে থাকায় নিয়োগ প্রক্রিয়া স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নেয় বোর্ড। কিন্তু ১ বছর আগের সুপারিশ আমলে নিয়ে আরো ২ বছরের জন্য নিয়োগ পায় তাকসিম এ খান।

ওয়াসা বোর্ডের বৈঠকে এ বিষয়ে সমালোচনা হয়। আইনের সাথে সামঞ্জস্য নয় বলেও মত দেয় বোর্ড কর্তারা। কিন্তু অতীত বিবেচনা কোনো সিদ্ধান্ত নিতে বিব্রত বোধ করেন তারা।

পঞ্চম মেয়াদে ঘটে নজিরবিহীন ঘটনা। আইন অনুযায়ী ওয়াসা বোর্ড নিয়োগের প্রস্তাব দেবে, অনুমোদন করবে সরকার। কিন্তু ২০১৭ সালে স্থানীয় সরকার বিভাগ-ই উল্টো তাকসিম এ খানকে আরো ৩ বছরের জন্য নিয়োগের প্রস্তাব পাঠানোর নির্দেশ দেয়। ঘটেও তাই। এভাবে গত ১১ বছর ধরে নানা অনিয়মের পাহাড়ে বসেও দোর্দণ্ড প্রতাপে স্বীয় পদে বহাল তাকসিম এ খান। জানা গেছে ৬ষ্ঠ মেয়াদে নিয়োগ পেতেও এরইমধ্যে তোড়জোড় শুরু করেছেন তিনি।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর