channel 24

সর্বশেষ

  • দেশের বিভিন্ন স্থানে সড়ক দুর্ঘটনায় ১৪ জন নিহত

  • রংপুরে তরুণীর বস্তাবন্দি মরদেহ উদ্ধার

  • ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠার জন্যই আ.লীগকে ভোট দিতে হবে: পরিকল্পনামন্ত্রী

  • রেললাইনে দাঁড়িয় সেলফি, অতঃপর ট্রেনের ধাক্কায় মৃত্যু

  • দিল্লির জামিয়া বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের ওপর পুলিশি হামলার নতুন ভিডিও নিয়ে তোলপাড়

  • তিন দিনেও রহস্য উদঘাটন হয়নি দক্ষিণখানে ট্রিপল মার্ডারের

  • মুখ দিয়ে লিখে এসএসসি পরীক্ষা দিলেন ঈশ্বর কুমার

  • কর্ণফুলি নদীতে নিখোঁজ মা-ছেলের সন্ধান মেলেনি ৩ দিনেও

  • ফিটনেস ও লাইসেন্সবিহীন গাড়ির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে টাস্কফোর্স গঠনের নির্দেশ

  • এ সপ্তাহে চট্টগ্রামে মেয়রপ্রার্থী চূড়ান্ত করবে বিএনপি

  • হুইপের বিরুদ্ধে ফেসবুক স্ট্যাটাস: সেই ইন্সপেক্টরকে জামিন দিয়েছে ট্রাইব্যুনাল

  • জাতীয় দিবসে ইংরেজির পাশাপাশি বাংলা তারিখ কেন লেখা হবে না: হাইকোর্ট

  • রাজধানীর মিরপুরে ডিস ব্যবসায়ী হত্যা মামলায় ৯ জনের যাবজ্জীবন

  • বিসিএসে প্রবেশের সর্বোচ্চ বয়স ৩২ কেন নয়, জানতে চেয়ে হাইকোর্টে রুল

  • দুর্নীতির ৩ মামলা: সাবেক এমপি আউয়াল ও তার স্ত্রীর আগাম জামিন বহাল

গ্রামীণ নারী উদ্যোক্তাদের সম্পৃক্ত করতে দরকার সমন্বিত ব্যবস্থা

গ্রামীণ নারী উদ্যোক্তাদের সম্পৃক্ত করতে দরকার সমন্বিত ব্যবস্থা

গ্রামীণ নারী উদ্যোক্তাদের মূল বাজার ব্যবস্থায় সম্পৃক্ত করতে, নেয়া হয়েছে সরকারি-বেসরকারি নানা উদ্যোগ। কিন্তু বাস্তবতা হলো প্রকল্প নির্ভর এসব উদ্যোগ, দীর্ঘমেয়াদে তেমন ফল বয়ে আনে না। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে একটি সমন্বিত ব্যবস্থা নেয়া হলে, নিশ্চিত করা যাবে নারীবান্ধব বিপনন ব্যবস্থা।

কৃষিনির্ভর অর্থনীতির এ দেশে, কৃষিকে যেমন উপেক্ষা করা যায় না, তেমনি অস্বীকারের  উপায় নেই এ খাতে নারীর অবদানও। আন্তর্জাতিক শ্রম সংস্থার ২০১৬ সালের জরিপ বলছে, দেশের ১ কোটি ২০ লাখ নারী শ্রমিকের, ৭৪ শতাংশই কোনো না কোনোভাবে কৃষি সঙ্গে সম্পৃক্ত।

তবে বাস্তবতা হলো, বিদ্যমান বাজারব্যবস্থায় নারীর অংশগ্রহণ এখনো বড় চ্যালেঞ্জ। সেই বাস্তবতা মাথায় রেখেই, বাজারে নারীর অংশগ্রহণ বাড়াতে ২০০১ সালে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকের অর্থায়নে, ৮ বছর মেয়াদী একটি প্রকল্প হাতে নেয় কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর। কিন্তু নানা কারণে তা দেখেনি, সাফল্যের মুখ।

কৃষিবিদ হামিদুর রহমান বলেন, প্রকল্পটির নাম ছিল নর্থ-ওয়েস্ট ক্রপ ডাইভারসিফিচাশন প্রজেক্ট। নারী-পুরুষ মিলিয়ে আমাদের যে প্রায় ৭টি গ্রোথ সেন্টারে ক্ররষকের বাজার একটা কর্ণার তৈরি করা হয় এবং সেখানে একটি দোকান মেয়েদের দ্বারা পরিচালিত হবে, সেই ধারণাটাও সেখানে পরীক্ষা করা হয়।

নারীবান্ধব বাজার নিশ্চিতে বিভিন্ন বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা নিয়েছে নানা পদক্ষেপ। সম্প্রতি শেষ হয়েছে, অ্যাকশন এইডের তেমনই একটি প্রকল্প। দীর্ঘ মেয়াদে কতটা কাজে আসছে এসব উদ্যোগ?

কৃষিবিদ হামিদুর রহমান বলছেন, যখন এনজিওর সাপোর্ট থাকে তখন কর্মকান্ড থাকে প্রকল্প চলে। কিন্তু যখনই
এনজিওর সাপোর্ট চলে যায় তখন আর ওগুলো ওভাবে চলে না। আমরা চারটি এগরিমল করেছিলাম যা ছিল নারী বান্ধব। কিন্তু দূর্ভাগ্যবশত যখন প্রকল্প সহায়তা চলে গেছে সেগুলো আর তাঁর উদ্দেশ অনুযায়ি চলছে না।

অর্থনীতিবিদ ড. হোসেন জিল্লুর রহমান মনে করেন, সার্বিক বাজার ব্যবস্থাপনার উন্নয়নই নিশ্চিত করতে পারে, একটি নারীবান্ধব বিপনন ব্যবস্থা।  

কৃষিভিত্তিক গ্রামীণ নারী উদ্যোক্তাদের জন্য নিরাপদ বাজার ব্যবস্থা গড়ে তুলতে, সমন্বিত পরিকল্পনার তাগিদ দেন বিশ্লেষকরা।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর