channel 24

সর্বশেষ

  • দেশের বিভিন্ন স্থানে সড়ক দুর্ঘটনায় ১৪ জন নিহত

  • রংপুরে তরুণীর বস্তাবন্দি মরদেহ উদ্ধার

  • ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠার জন্যই আ.লীগকে ভোট দিতে হবে: পরিকল্পনামন্ত্রী

  • রেললাইনে দাঁড়িয় সেলফি, অতঃপর ট্রেনের ধাক্কায় মৃত্যু

  • দিল্লির জামিয়া বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের ওপর পুলিশি হামলার নতুন ভিডিও নিয়ে তোলপাড়

  • তিন দিনেও রহস্য উদঘাটন হয়নি দক্ষিণখানে ট্রিপল মার্ডারের

  • মুখ দিয়ে লিখে এসএসসি পরীক্ষা দিলেন ঈশ্বর কুমার

  • কর্ণফুলি নদীতে নিখোঁজ মা-ছেলের সন্ধান মেলেনি ৩ দিনেও

  • ফিটনেস ও লাইসেন্সবিহীন গাড়ির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে টাস্কফোর্স গঠনের নির্দেশ

  • এ সপ্তাহে চট্টগ্রামে মেয়রপ্রার্থী চূড়ান্ত করবে বিএনপি

  • হুইপের বিরুদ্ধে ফেসবুক স্ট্যাটাস: সেই ইন্সপেক্টরকে জামিন দিয়েছে ট্রাইব্যুনাল

  • জাতীয় দিবসে ইংরেজির পাশাপাশি বাংলা তারিখ কেন লেখা হবে না: হাইকোর্ট

  • রাজধানীর মিরপুরে ডিস ব্যবসায়ী হত্যা মামলায় ৯ জনের যাবজ্জীবন

  • বিসিএসে প্রবেশের সর্বোচ্চ বয়স ৩২ কেন নয়, জানতে চেয়ে হাইকোর্টে রুল

  • দুর্নীতির ৩ মামলা: সাবেক এমপি আউয়াল ও তার স্ত্রীর আগাম জামিন বহাল

নির্বাচনি ইশতেহারে ওয়ার্ডভিত্তিক পরিকল্পনা চান নগরবিদরা

নির্বাচনি ইশতেহারে ওয়ার্ডভিত্তিক পরিকল্পনা চান নগরবিদরা

আগামীকাল রবিবার (২৬ জানুয়ারি) থেকে নির্বাচনি ইশতেহার দিতে পারেন মেয়র প্রার্থীরা। নগর পরিকল্পনাবিদরা মনে করেন, ইশতেহারে ওয়ার্ডভিত্তিক পরিকল্পনা থাকা উচিত। মশা, যানজট আর জলাবদ্ধতার মতো দুর্ভোগের হাত থেকে বাঁচাতেও প্রয়োজন সুনির্দিষ্ট কর্মপরিকল্পনা। তবে তারা আরও মনে করেন, সবকিছু মেয়রকেন্দ্রিক হওয়ায় কাউন্সিলরদের জবাবদিহিতার বিষয়টি অনেক সময়ই হারিয়ে যায়।

সিটি নির্বাচন ঘিরে ঢাকা এখন ভোটের নগর, সেই সাথে উৎসবের আমেজ। বাদ্য বাজনা বাজিয়ে যে গণসংযোগ চলছে, তাতে শুধুই প্রতিশ্রুতি আর উন্নয়নের বয়ান।

কিন্তু এই আশ্বাস আর প্রতিশ্রুতির ফল কি হয় ভোটের পর, তা নিয়ে বেশ ভালোই অভিজ্ঞতা আছে নগরবাসীর। তবুও আসছে ভোটে কিসের স্বপ্ন দেখাবেন নির্বাচিত নগর কর্তারা তা নিয়ে চলছে কথামালা।  

তবে, নগর পরিকল্পনাবিদরা বলছেন, সিটি নির্বাচন এলেই ঢাক ঢোল পিটিয়ে যে আয়োজন চলে তার সবটাই মেয়রকেন্দ্রিক। ফলে আড়ালে চলে যায় কাউন্সিলর পদ সেইসাথে তার জবাবদিহিতার জায়গাটুকু।

নগর পরিকল্পনাবিদ ইকবাল হাবীব বলেন, নির্বাচনী ইশতেহারের বাস্তব ভিত্তিকতা, অঞ্চলভিত্তিক সমস্যাভিত্তিকতা থাকা দরকার। যদি সেটা না থাকে তবে সেই মানুষের আস্থা অর্জন করা যায় না।

আরেক নগর পরিকল্পনাবিদ আক্তার মাহমুদ বলেন, আমরা যখন সমস্যা সমাধানের কথা বলি তখন মনে করি মেয়রই হয়তো সেন্টারে আছেন, তিনি সব করবেন। কিন্তু দীর্ঘদিন ধরেই ওয়ার্ড কাউন্সিলরকে অবহিত করা হয়েছে তবে তাঁদের সিদ্ধান্ত নেয়ার প্রক্রিয়ায় শক্তিশালী করা হয়নি।

অগোছালো এই রাজধানীকে ঢেলে সাজাতে বেশ কিছু পরামর্শ তাদের। যেখানে সবচেয়ে বেশি গুরুত্ব পাবে জলাবদ্ধতা, যানজট, বায়ুদূষণসহ বড় বড় নাগরিক দুর্ভোগের সব বিষয়।  

নগর পরিকল্পনাবিদ ইকবাল হাবীব বলেন, সিটি করপোরেশনের আইন অনুযায়ী ১৪টি স্থায়ী কমিটি করার সুযোগ রয়েছে। আমরা যদিও ওটাকে আর ৩টা বাড়াতে বলছি। একটি মাঠ, পার্ক ও খেলার জায়গা, আরেকটি হচ্ছে জলাধার এবং খাল, এবং আরেকটি হচ্ছে কমপ্লেইন।

তবে সবাই ই এক বাক্যে বলছেন, গৎবাধা ইশতেহারে আবদ্ধ না থেকে বিবেচনায় রাখতে হবে নারীবান্ধব নগরী কিংবা যাতায়ত ব্যবস্থার আমুল পরিবর্তনের মতো নাগরিক ইস্যু। সিসিটিভি ক্যামেরার পরিধি বাড়ানোসহ একগাদা পরামর্শ নগর পরিকল্পনাবিদদের।

ঢাকার দুই সিটিতে মেয়রপদে যারা প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন, তাদের সবার প্রতিশ্রুতিতেই আছে সবুজ ঢাকা গড়া। কিন্তু কাজটা ততটা সহজ নয় বলছেন, নগরপরিকল্পনাবিদরা। যদি না সারা বছর ধরে সিটি করপোরেশনের বাস্তব কোনো উদ্যোগ দেখা না যায়। সেই সাথে থাকতে হবে ওয়ার্ডভিত্তিক পরিকল্পনা, জনগণকে যুক্ত করতে হবে ডিজিটাল অ্যাপসের মাধ্যমে।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর