channel 24

সর্বশেষ

  • ক্রমেই অসহায় হয়ে উঠছে বিশ্ব

  • স্বাস্থ্যকর্মীদের সুরক্ষা সরঞ্জাম দিলো স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস

  • আকিজ গ্রুপের হাসপাতাল তৈরিতে জনতার ক্ষোভ

  • জনগণকে সচেতন হবার আহ্বান জানিয়েছেন মাহমুদউল্লাহ

  • শৈশব থেকেই বলিষ্ঠ নেতৃত্বের অধিকারী ছিলেন বঙ্গবন্ধু

  • স্পেনে আরও ৮৩২ জনের প্রাণহানি

  • কাল থেকে সংসদ টেলিভিশনে শ্রেণী ভিত্তিক পাঠদান চলবে

  • ৭ দিন নিষেধাজ্ঞা বাড়লো বাংলাদেশে আন্তর্জাতিক ফ্লাইট চলাচলের

  • রাঙ্গামাটিতে জীবাণুনাশক ছিটিয়েছে সেনাবাহিনী

  • ফাঁকা ঢাকা; মানুষের সচেতনতায় কাজ করছে সেনা সদস্যরা

  • শারীরিক প্রতিবন্ধকতাকে জয় করে স্বাবলম্বী লালমনিরহাটের হাফিজুর

  • 'অর্থনীতি পুনরুদ্ধার প্যাকেজ' বিলে সই করেছেন ট্রাম্প

  • মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের নাগরিকের সঙ্গে সম্মানজনক আচরণ করার নির্দেশ

  • বন্ধ হচ্ছে কারখানা; চাকরি হারানোর ঝুঁকিতে ২০ লাখ শ্রমিক

  • চট্টগ্রামে করোনা প্রতিরোধে সেনাবাহিনী ও জেলা প্রশাসনের অভিযান

সিটি নির্বাচনে অংশ নিলেও বিএনপির মূল লক্ষ্য কর্মীদের সক্রিয় রাখা

সিটি নির্বাচনে অংশ নিলেও বিএনপির মূল লক্ষ্য কর্মীদের সক্রিয় রাখা

সিটি নির্বাচনে অংশ নিলেও ফলাফলের দিকে তাকিয়ে নেই বিএনপি। তাদের মূল লক্ষ্য রাজধানীতে দলকে আরো শক্তিশালী করে তোলা। যাতে আন্দোলনের সময় ঢাকার রাজপথে নেতাকর্মীদের সক্রিয় করা যায়। এ জন্য এই সময় টুকু নির্বাচনের পাশাপাশি, সাংগঠনিক কাজেও লাগাতে চান তারা।

জাতীয় নির্বাচনের ধাক্কা সামলে উঠতে না উঠতেই, আরেকটি নির্বাচনের মুখোমুখি বিএনপি। ঢাকা সিটি নির্বাচন হওয়ায় এর গুরুত্বও অনেক। তাই হেলাফেলা করারও কোন সুযোগ নেই। এতে দলের ভরসা, দুই তরুণের ওপর।

ভোটে গুরুত্ব দিলেও প্রার্থী ও দলের নেতাদের আস্থা নেই নির্বাচনী ব্যবস্থায়। প্রশ্ন তুলেছেন ইভিএম নিয়েও। বলছেন, সরবে নয় এবার কারচুপি হবে, নীরবে।

বিএনপির স্থায়ী কমটির সদস্য আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলছেন, জনগনকে নির্বাচনের বাইরে রাখতে হলে তো ভয়ভীতির সৃষ্টি করতে হবে, ইভিএমের মত একটী ভোটচুরির যন্ত্র ব্যবহার করতে হবে। এগুলো সব কিছুই প্রকল্পের অংশ।

স্থায়ী কমটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু বলছেন, ইভিএমে ভোট সঠিক হতে পারে না। গত নির্বাচনে মধ্যরাতে পুলিশসহ অন্যান্য বাহিনী একসাথে যেয়ে ভোট কেটে দিয়েছে সবাই দেখেছে। এবার ইলেকট্রনিক ভোটের মাধ্যমে বাতাসে ভোট চলে যাবে কেউ দেখবে না। বলবে স্বাধীন নির্বাচন হয়েছে।

তাহলে নির্বাচনে কেন? যার সরাসরি জবাব দিচ্ছেন না কোনো নেতা। ২০১৩ সালে সারা দেশে আন্দোলন জোরদার হলেও ঢাকায় তেমন তৎপরতা ছিল না বিএনপির। উল্টো প্রায় দুই মাস নিজ বাড়িতে অবরুদ্ধ ছিলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন। দুই বছর হতে চললো, কারাগারে অন্তরীণ তিনি। এ বিষয়েও বড় কোনো আন্দোলন করতে পারেনি দলটি। সেই লক্ষ্যেই প্রস্তুতি চলছে, নির্বাচনে থেকেই।

ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু বলছেন, নির্বাচনকে ঘিরে তৃণমুল কর্মীরা এক হচ্ছে। আমরা তো এখন কোণ মিটিং-মিছিল করতে পারি না। সেজন্য আমরা নির্বাচন উপলক্ষে যে জায়গাটা পাচ্ছি তা কাজে লাগানোর চেষ্টা করছি।

আর আমীর খসরু বলছেন, যেহেতু নির্বাচন ব্যবস্থার উপর কোন আস্থা নাই জনগণের তাই এটাকে আমরা আন্দোলনের অংশ হিসেবে বলছি। যেন এই আন্দোলনের মাধ্যমে জনগণ তাঁদের ভোটাধিকার ফিরে পায়।

বিএনপি নেতারা বলেন, দেশের মানুষ আন্দোলনের জন্য প্রস্তুত আছেন, এখন শুধু নিজেদের গুছিয়ে রাজপথে নামার পালা।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর