channel 24

সর্বশেষ

  • ঢাকা সিটি নির্বাচন: ৩১ জানুয়ারি রাত ১২টা থেকে ১ ফেব্রুয়ারি...

  • সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত সব যানবাহন এবং ৩০ জানুয়ারি রাত ১২টা থেকে...

  • ২ ফেব্রুয়ারি ভোর ৬টা পর্যন্ত মোটরসাইকেল চলাচলে নিষেধাজ্ঞা: ইসি

  • হালনাগাদকৃত খসড়া ভোটার তালিকা প্রকাশ...

  • সারা দেশে মোট ভোটার যুক্ত ৫৩ লাখ ৬৬ হাজার ১০৫ জন...

  • বর্তমানে ভোটার সংখ্যা ১০ কোটি ৯৬ লাখ ৬ হাজার ১৮৭...

  • এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ৫ কোটি ৫৩ লাখ ২৫ হাজার ২৯২...

  • নারী ভোটার ৫ কোটি ৪২ লাখ ৮০ হাজার ৫৪২ এবং হিজড়া ৩৫৩ জন

  • ১৬ বছরের ওপরে যাদের বয়স, তাদেরও জাতীয় পরিচয়পত্র দেবে ইসি

  • সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক নিয়োগে...

  • ১৪ জেলার ঘোষিত ফলাফল ৬ মাসের জন্য স্থগিত করেছেন হাইকোর্ট

  • যশোরের পুলেরহাটে ১১ কেজি স্বর্ণসহ ৩ জন আটক

  • নাইমুল আবরারের মৃত্যু: হাইকোর্টে প্রথম আলো সম্পাদকের আগাম জামিন...

  • আনিসুল হকসহ ৫ জনকে গ্রেপ্তার বা হয়রানি না করার নির্দেশ

  • সিপিবির সমাবেশে বোমা হামলা: ১০ জনের মৃত্যুদণ্ড; খালাস ২

  • ১৯৮৮ সালের চট্টগ্রাম গণহত্যা মামলায় ৫ জনের মৃত্যুদণ্ড

কেঁচো কম্পোস্টের প্রশিক্ষণ নিয়ে স্বাবলম্বী ঝিনাইদহের ফাতেমা

কেঁচো কম্পোস্টের প্রশিক্ষণ নিয়ে স্বাবলম্বী ঝিনাইদহের ফাতেমা

ঝিনাইদহের ফাতেমা। একজন স্বাবলম্বী নারী। একসময় অনাহার-অর্ধাহারে দিন কাটতো। এখন তার অধীনে কাজ করেন অনেকে। ফাতেমা বলছেন, আত্মবিশ্বাস আর পরিশ্রম তার ভাগ্য বদলে দিয়েছে।

এক সময় খেয়ে, না খেয়ে দিন যেত ঝিনাইদহের বলাকান্দর গ্রামের ফাতেমার। কঠোর পরিশ্রমে এখন তার দিন ফিরেছে।

অভাবের সংসারে বেড়ে ওঠা ফাতেমার বিয়ে হয় মাত্র ১১ বছর বয়সে। বছর দশেকের মাথায় দুরারোগ্য ব্যাধিতে মারা যান তার স্বামী। দুই সন্তানকে নিয়ে পড়েন অথৈ সাগরে। অনাহারে, অর্ধাহারে কেটেছে অনেকদিন। ২০০৫ সালে সরকারি সহায়তায় কেঁচো কম্পোসটের প্রশিক্ষণ নেন। এরপরই ফিরতে শুরু করে ভাগ্য।

ফাতেমা বলেন, পরের বাড়িতে ভাত চাইচি দেই নাই, আমি রস চুরি করেও খাইছি, অনাহারে দিন কাটাইছি দু-চার দিন। বাচ্চারা খাওয়ার জন্য খুব কষ্ট করতো, ক্ষুধার যন্ত্রনা সহ্য করতে পারতো না, কান্নাকাটিও করতো'

এখন ৩৫০টি চাড়িতে কেঁচো কম্পোস্ট রয়েছে ফাতেমার। সেখান থেকে উৎপাদিত জৈব সার ও কেঁচো বিক্রি করে হয়েছেন এক বিঘা জমির মালিক। এছাড়া প্রায় ৯ বিঘা জমি লিজ নিয়ে করছেন ধান, গমসহ বিভিন্ন শষ্য চাষ। তার এ সফলতা দেখে এখন গ্রামের অনেকেই আগ্রহী হচ্ছেন কম্পোস্ট সার উৎপাদনে।

কালীগঞ্জ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা  জানান, তার দেখাদেখি গ্রামের অন্যান্য লোকজনও কৃষি কাজ ও কম্পোস্ট সার উৎপাদনে এগিয়ে এসেছে।

ফাতেমা বলছেন, নিজের ওপর বিশ্বাস রেখে একগ্রতার সাথে কোনো কাজ করলে সে কাজে সফলা আসবেই। দূর হবে অভাব-অনটন।

 

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর