channel 24

সর্বশেষ

  • চীনের তৈরি ভ্যাকসিন ট্রায়ালের অনুমতি দিলে বাংলাদেশ লাভবান হতো: ডা. জাফরুল্লাহ

  • সারা দেশে পালিত হচ্ছে জাতীয় শোক দিবস

  • হাসপাতালে আইজি, ডিআইজির পরিচয়ে অভিনব প্রতারণা

  • খাগড়াছড়িতে দুর্বৃত্তদের গুলিতে ভূমি রক্ষা কমিটির সভাপতির স্ত্রী নিহত

  • করোনায় বরেণ্য চিত্রশিল্পী মুর্তজা বশীরের মৃত্যু

  • সাগরের ইলিশে ভরপুর মোকামগুলো, রপ্তানীর অনুমোদন চান বিক্রেতারা

  • যশোর শিশু উন্নয়ন কেন্দ্রের সহকারী পরিচালকসহ গ্রেফতার ৫

  • রাজবাড়ি জেলা রেজিস্ট্রারের বিরুদ্ধে চাকরির প্রলোভনে প্রতারণার অভিযোগ

  • অবিশ্বাস্য হারে কোয়ার্টার ফাইনাল থেকে বিদায় বার্সেলোনার

  • শোকাবহ ১৫ আগস্ট আজ, বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা

  • বঙ্গবন্ধুর পলাতক ৫ খুনির ফাঁসি এখনও কার্যকর হয়নি

  • বাঙালীর কলঙ্কময় দিন আজ

  • চট্টগ্রামের পাহাড়তলি বস্তিতে আগুন, শিশুসহ নিহত ২

  • গোপালগঞ্জে বিয়ের আসরে গুলি!

  • বেরিয়ে আসছে যুবলীগ নেতা ডিজে শাকিলের নানা অপকর্ম

সন্ধ্যার পর অপকর্মের অভয়াশ্রম বিমানবন্দর সড়ক, ঘটছে নানা অপরাধ

সন্ধ্যার পর অপকর্মের অভয়াশ্রম বিমানবন্দর সড়ক, ঘটছে নানা অপরাধ

কুর্মিটোলা বিমানবন্দর সড়কের দুপাশে সুরক্ষিত এলাকা, মাঝখান দিয়ে ব্যস্ত সড়ক। ঢাকার অন্য সড়কে ৫২ ফিট পরপর লাইট থাকলেও, এখানে দুই লাইটের ব্যবধান ৮৪ ফিট। ফলে অন্ধকারে ঘটছে নানা অপরাধ। পথিকরা জানান, ঢাবি শিক্ষার্থী ধর্ষণের ঘটনার পর সড়কটি আলোচনায় আসলেও, আড়ালে থেকেছে আগের অনেক ঘটনা।

রাজধানীর বনানীর থেকে এয়ারপোর্ট পর্যন্ত ৮ কিলোমিটার এই সড়কটিতে যানবাহন নির্বিগ্নে যাতায়াত করতে পারে। তবে তার বিপরীত পাশে একটি সাইনবোর্ডে দেখে যায় লেখা আছে, 'নিরাপত্তার স্বার্থে সন্ধ্যার পর ফুটপাত ব্যবহারে সতর্ক থাকুন'। তবে এই সাইনবোর্ড কে বা কারা লাগিয়েছে তা লেখা নাই। তাহলে সন্ধ্যার পর এই সড়ক দিয়ে কেউ যাতায়াত করলে এর দায় কে নেবে?

পথিকরা জানান, এই সাইনবোর্ড দেয়া হয়েছে সাবধান করার জন্য। আইনশৃঙ্খলা বাহিনী হয়ত এটা নিয়ন্ত্রণ করতে পারছেন না। বলেন, 'আমরা কি তাহলে সন্ধ্যার পর এই রাস্তা দিয়ে চলাচল করবো না'।

পুরো সড়কের ফুটপাতের পাশে যে ঝোপঝাড় তাতে অনুমেয় রাতের আধারে কি হতে পারে এর পেছনে। আর রেল লাইনের পাশের পরিত্যক্ত বগি গুলোও আতঙ্ক ছড়ায় এই পথের যাত্রীদের।

সন্ধ্যা পেরিয়ে রাত নামে, ছুটে চলা যানবাহনের আলোর গতিতে ভিন্ন একরূপ পায় এই সড়ক; সাথে দুশ্চিন্তা বাড়ে মানুষের।

ঢাকার অন্য প্রধান সড়কে ৫২ ফিট পর পর রাস্তার মাঝ বরাবর লাইট থাকলেও সড়ক ও জনপদ অধিদপ্তরের দায়িত্বে থাকা ঢাকার অন্যতম চওড়া এই পথে তা আছে ৮৪ ফিট পরপর। ফলে পুরো সড়কজুড়ে পর্যাপ্ত আলোর অভাব। তাই পথিকের ভরসা যানবাহনের আলোই। আর ফুটপাত জুড়ে থাকা সৌন্দর্য্যবর্ধনের এই বাতিতে, মনে এতোটুকু জোর বাড়ে না সাধারণ মানুষের।

পথিকরা জানান, এই রাস্তা দিয়ে সন্ধ্যার পর পার হওয়ার সময় কেউ আক্রমণ করলে কিছুই করার থাকে না।

এখানে যে যাত্রী ছাউনি আছে সেখানে তা পুরোপুরি অন্ধকার, একটি বাতিরও ব্যবস্থা নাই।

রোববার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ধর্ষণের ঘটনার পর আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতায় রেললাইন কেন্দ্রীক দুষ্কৃতিতে আনাগনা কমে গেলেও এখানে যে নানা অবৈধ কর্মকান্ড ঘটে তা স্পষ্ট হয় নানা আলামতে।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর