channel 24

সর্বশেষ

  • দিল্লিতে সহিংসতার প্রতিবাদ জানিয়েছে ছাত্র অধিকার পরিষদ

  • অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের সময় র‍্যাবের হাতে লাঞ্ছিত ম্যাজিস্ট্রেট

  • ব্যাংক খালি হয়ে গেছে: হাইকোর্ট

  • ডাকঘর সঞ্চয়ে সুদহার আগের মতোই থাকছে: অর্থমন্ত্রী

  • দুদককে নিয়ে টিআইবির প্রতিবেদন সত্য নয়: দুদক সচিব

  • একে একে বেরিয়ে আসছে পাপিয়ার নানা পাপ

  • উন্নত চিকিৎসায় সম্মত হননি খালেদা জিয়া

  • দিল্লিতে গুজরাটের ছায়া; শিশু ও গোয়েন্দা কর্মকর্তাসহ প্রাণ গেছে ২৩ জনের

  • কোনো ব্যাংক বা আর্থিক প্রতিষ্ঠান বন্ধ হলে গ্রাহকরা সব টাকা পাবেন

  • ঢাকা মেডিকেলে পরজীবী শিশু আলাদা করে সফল অস্ত্রোপচার

  • ভর্তি পরীক্ষা হবে ৪টি গুচ্ছ পদ্ধতিতে, থাকছে না ঢাকাসহ ৫টি বিশ্ববিদ্যালয়

  • কোনো নারী বিয়ে পড়াতে পারবেন না: হাইকোর্ট

  • কাপ্তাই হ্রদের পানি কমছে ধীরগতিতে, ফসল নিয়ে দু:চিন্তায় চাষীরা

  • দেশের পুঁজিবাজারে বড় পতন

  • অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে কঠিন পরীক্ষায় নামছে বাংলাদেশ নারী দল

যানজট আর ঘিঞ্জি পরিবেশে বসবাস ঢাকার লালবাগ এলাকাবাসীর

যানজট আর ঘিঞ্জি পরিবেশে বসবাস ঢাকার লালবাগ এলাকাবাসীর

লালবাগ এলাকা যার অলিগলিতে মোঘল ঐতিহ্যের ছাপ, শতবছরের পুরোনো নির্দশন। যা পর্যটনে সমৃদ্ধ হওয়ার সুযোগ থাকলেও হয়ে ওঠেনি। উল্টো সরু রাস্তার যানজট আর ঘিঞ্জি পরিবেশে পর্যটকের নাগালের বাইরেই থেকে যাচ্ছে এসব স্থাপনা। অভিযোগ রয়েছে, মশার উৎপাত, পার্কিং সুবিধাসহ পর্যাপ্ত ফুটপাত নিয়েও।

ইতিহাস ঐতিহ্য সংস্কৃতির মিশেলে চারশো বছরেরও বেশি পুরোনো নগরী ঢাকা।

পুরান ঢাকার লালবাগ কেল্লা, মোঘল আমলের এই পুরাকীর্তির পরিচিতি দেশ ছাড়িয়ে বিশ্বজুড়ে। যার প্রতিটি ইট পাথরে রয়েছে প্রত্নতাত্ত্বিক নানা নিদর্শন।

ঐশ্বর্যের ছোঁয়াতেও বদলায়নি নগর ব্যবস্থাপনা। কর্তৃপক্ষের বিজ্ঞপ্তিতেও সিটি নির্বাচনের পোস্টারসহ নানা বিজ্ঞাপনে ছেয়েছে দেয়াল। রঙ হারাচ্ছে পুরাকীর্তি। রয়েছে ময়লা আবর্জনার স্তূপও।

লালবাগ কেল্লার দর্শনার্থীরা বলছেন, পার্কিং এর জন্য কোন জায়গা নেই এখানে, তাই গাড়ি দাড়ালেই রাস্তায় জ্যাম পরে যায়।

লালবাগ কেল্লা থেকে সামান্য দূরত্বে, মোঘল আমলের আরেক স্থাপনা হোসেনি দালান। প্রায় সাড়ে তিনশো বছরের পুরোনো এই স্থাপনার সৌন্দর্য এখন নীল রঙের টাইলসে। বুড়িগঙ্গার তীর ঘেষা অনন্য আরেক স্থাপত্য শৈলি আহসান মঞ্জিল। একসময়ের ঢাকার নবাবদের আবাসস্থল ও জমিদারির সদর কাচারি। পুরান ঢাকায় এমন অসংখ্য প্রত্নতাত্ত্বিক নির্দশন এখনও টিকে আছে ইতিহাসের সাক্ষী হয়ে।

শতবছরের পুরোনো বিভিন্ন ঐতিহাসিক নির্দশন থাকা সত্ত্বেও পর্যটনে পিছিয়ে রাজধান ঢাকার বিভিন্ন  স্থাপনা। প্রয়োজনীয় সংস্কার আর প্রচারণার মাধ্যমে এই নগরীতে পর্যটন শিল্প বিকাশের অপার  সম্ভাবনা দেখছে পর্যটন সংশ্লিষ্টরা।

ঢাকা দক্ষিণ সিটির ২৫ ও ২৭ নম্বর ওয়ার্ডে এমন সব স্থাপনার ঐতিহ্য ছাপিয়ে, নিত্যদিনের সঙ্গী সরু রাস্তায় যানজট আর ঘিঞ্জি পরিবেশ। তাই পর্যটন খাতের অর্থনীতি সমৃদ্ধ হওয়ার সুযোগ থেকেও যেনো নেই।

দর্শনার্থীরা বলছেন, রাস্তাঘাটের যে অবস্থা, চিপা গলি তাঁর মধ্যে আবার নোংরা আবর্জনা পরা রয়েছে, যেখান থেকে অনেক দূর্গন্ধ বের হয়। আমার মনে হই সেই জায়গাগুলোর দিকে আমাদের একটু নজর দেওয়া উচিত। এছাড়া ঐতিহাসিক নির্দশনগুলো কাছাকাছি হওয়া সত্ত্বেও রাস্তার যাঞ্জটের কারণে অনেক সময় নষ্ট হয়। এগুলো যদি পদক্ষেপ নেওয়া হয় তবে আমাদের বিদেশি পর্যটক আরও বাড়বে।

এর পাশেই, আজিমপুরে ২৬ নম্বর ওয়ার্ডের বাসিন্দাদের নিত্যযুদ্ধ মশার বিরুদ্ধে। নেই পার্কিং সুবিধা কিংবা পর্যাপ্ত ফুটপাত। আসছে সিটি নির্বাচনে নতুন করে সমাধান কি মিলবে?

এলাকাবাসী বলছে, আমাদের মূল দাবি কবরস্থানের রাস্তাটা বড় করার। স্থানীয়দের প্রত্যাশা, দায়িত্বে যে-ই আসুক নজর দেবেন এলাকার উন্নয়নে। 

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর