channel 24

সর্বশেষ

  • বিএনপি বহিরাগত অস্ত্রধারীদের ঢাকায় জড়ো করছে: কাদের

  • পাল্টে যাচ্ছে নীলফামারীর ভূমির প্রকৃতি

  • তাপসের পাশে সাঈদ খোকন

  • 'আমাদের পার্টি' বলতে পুলিশ সদস্য নিজ বাহিনীকেই বুঝিয়েছেন: সিইসি

  • প্রকল্প বাস্তবায়নে যন্ত্রপাতি চালানোর দক্ষ কর্মী আছে কি না, লক্ষ্য রাখার নির্দেশ

  • কৃষিতে জিপিএসের ব্যবহার!

  • বাঁধাকপির পুষ্টিগুণ

  • রাঙামাটিতে যুবলীগ নেতার পায়ের রগ কেটে দিলো দুর্বৃত্তরা

  • যেভাবে পানির গুনাগুণ ও অক্সিজেন বাড়িয়ে মাছের উৎপাদন বাড়ানো যায়

  • করোনা ভাইরাস: চট্টগ্রামের তিনটি হাসপাতালে খোলা হচ্ছে বিশেষ ইউনিট

  • রাউজানে বাস উল্টে ২ জন নিহত, আহত চুয়েটের দুই শিক্ষক

  • আবারও সূচকের ইতিবাচক ধারায় পুঁজিবাজার

  • শুরু হচ্ছে 'মিস আর্থ বাংলাদেশ'

  • স্কুলছাত্রী সীমাকে ধর্ষণ ও হত্যা মামলায় ৮ জনের মৃত্যুদণ্ড বহাল

  • ইভিএমে অনিয়ম হওয়ার সম্ভাবনা শুন্য: ইসি সচিব

কফি হাউসের আয় দিয়েই নারী কল্যাণকেন্দ্র চালাচ্ছেন তসলিমা

কফি হাউসের আয় দিয়েই নারী কল্যাণকেন্দ্র চালাচ্ছেন তসলিমা

নওগাঁর তসলিমা ফেরদৌস নিজ উদ্যোগে চালাচ্ছেন নারী কল্যান কেন্দ্র। সমাজের অবহেলিত নারীদের থাকা-খাওয়া থেকে শুরু করে সব ধরনের সেবা দেয়া হচ্ছে এখানে। শুধু তাই নয় শহরের সবচেয়ে বড় কফি হাউসটি পরিচালনা করেন তাসলিমা। সেখানকার আয় দিয়েই চলে নারী কল্যান কেন্দ্র।

বেলা শেষে নারী কল্যান কেন্দ্রের আঙ্গিনায় বসে জীবনের পড়ন্ত বেলায় গল্পে মেতেছেন কয়েকজন মা। ফেলে আসা সুখ-দুঃখ ভাগাভাগী করেছেন একে অন্যের সাথে। আর নারী কল্যান এই কেন্দ্রটি গড়ে তুলে আরেক নারী।

২০০৫ সালে তসলিমা ফেরদৌস নামে নওগাঁর একজন নারী গড়ে তুলেন একটি নারী কল্যান এই বৃদ্ধাশ্রমটি। নিজ উদ্যোগেই পরিচালনা করতেন নারী কল্যান কেন্দ্রটি। সহযোগিতাও করতেন অনেকে। তবে বছর খানেক পড় একটি কফি হাউজ গড়ে তুলেন তসলিমা। বর্তমানে সেই কফি হাউজের আয়ের অর্থ দিয়েই চলছে বৃদ্ধাশ্রমটি।

তসলিমা ফেরদৌস বলেন, এমনিতে আমার লোক রাখা নাই, এটা পুরো পারিবারিক পরিবেশে চলে, কোন প্রাতিষ্ঠানিক পরিবেশে চলে না। আমার মনে হয় এখানে যারা থাকেন যারা আছেন তারা সবাই আমার আপন, আমার পরিবারের একজন।

এখানের বাসীন্দারা বলেছেন, তসলিমার আদর-অপ্যায়নে সমাজ-সংসারের কষ্ট ভুলে বেশ ভালই আছেন তারা। তারা বলেন, 'এখানে ঝামেলা নাই। খাওয়া দাওয়ার সমস্যা নাই আবার শান্তিও ভাল। এইরকম খাওয়া দাওয়া বাপের বাড়িতেও পাই নাই। আমরা মার সাথেই থাকি, মার খেয়াল করি।'

এসব অসহায় মানুষ গুলোর জন্য কিছু করার অদম্য ইচ্ছেতেই নারী হয়েও অবলিলায় সামলে নেন সব কিছু।

গত দুই বছরে এই নারী কল্যান কেন্দ্রে সেবা পেয়েছেন অন্তত ২শ নারী। আর বর্তমানে তার কফি হাউজে কাজ করে স্ববলম্বী হয়েছেন ১৪ জন মানুষ।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর