channel 24

সর্বশেষ

  • পণ্টনে নব্য জেএমবির সিলেট সেক্টর কমান্ডারসহ আটক ৫

  • গেল অর্থবছরে জিডিপি প্রবৃদ্ধি নিয়ে অর্থমন্ত্রীর সন্তোষ প্রকাশ

  • বছরের দ্বিতীয় প্রান্তিকে বিপুল কর্মসংস্থান কমেছে যুক্তরাজ্যে

  • বাজে ভাষার জেরে জরিমানার মুখে স্টুয়ার্ট ব্রড

  • সাকিবের শ্রীলঙ্কা সফরে থাকা নিয়ে মিশ্র প্রতিক্রিয়া

  • ফুটবল ফেডারেশনের আলোচিত নির্বাচন ৩ অক্টোবর

  • 'সিনহাকে গুলি করা ব্যক্তিরা ছিলেন সিভিল পোশাকে'

  • অ্যাজমা ও ব্রংকাইটিস প্রতিরোধ করে চুইঝাল

  • ঝিনাইদহে বেড়েছে প্লাস্টিকের তৈরী ওয়ান টাইম প্লেট ও গ্লাসের ব্যবহার

  • কুড়িয়ানার শত বছরের ভাসমান পেয়ারার হাট

  • যশোরে কাভার্ডভ্যান চাপায় মোটরসাইকেল আরোহী দুই যুবক নিহত

  • ইয়াবাসহ আটক ৪ জনকে ঘুষ দিয়ে ছাড়াতে এসে যুবলীগ নেতাসহ আটক ২

  • করোনার ভ্যাকসিন আবিস্কার হলে বাংলাদেশও পাবে: ডা. খুরশীদ আলম

  • গোপালগঞ্জে সন্ত্রাসী হামলায় যুবলীগ নেতা নিহত

  • সিনহা হত্যা: পুলিশের মামলার ৩ সাক্ষীকে গ্রেপ্তার করেছে র‍্যাব

সৌদিতে নারী শ্রমিক নির্যাতন: ধরাছোঁয়ার বাইরে রয়ে যাচ্ছে অভিযুক্তরা

সৌদিতে নারী শ্রমিক নির্যাতন: ধরাছোঁয়ার বাইরে রয়ে যাচ্ছে অভিযুক্তরা

সৌদি থেকে নির্যাতিত নারী শ্রমিকরা দ্রুত দেশে ফিরতে চাওয়ায় ধরাছোঁয়ার বাইরে রয়ে যাচ্ছে অভিযুক্তরা। এ পর্যন্ত বিচারের মুখোমুখি করা গেছে মাত্র দুই সৌদি নাগরিককে। দেশটির যে সব এলাকায় নির্যাতন বেশি সেটির তালিকা তৈরির পরামর্শ দিয়েছেন অভিবাসন বিশেষজ্ঞরা।

কয়েক বছর ধরে নারী শ্রমিক বিদেশে শারীরিক নির্যাতনের শিকার হয়ে, নিয়মিতভাবেই দেশে ফিরে আসছেন। সমালোচনা আছে, এনিয়ে সরকারের তেমন উদ্যোগ নেই। তবে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়ের শীর্ষ কর্মকর্তাদের দাবি, নির্যাতন কিংবা লাঞ্ছনার অভিযোগ করেই বেশিরভাগ নারী দেশে ফিরতে চান। ফলে শুরু করা যায় না অপরাধীর বিচার প্রক্রিয়া। যদিও এরই মধ্যে বাংলাদেশি দূতাবাসে অভিযোগের পর দুই সৌদি নাগরিককে আইনের আওতায় এনেছে দেশটির সরকার।

প্রবাসি কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব আহমেদ মনিরুস সালেহিন বলেন, এই অপরাধীদের আমরা আইনের আওতায় আনতে চাই। যারাই অপরাধ করবে তাদেরকে আমরা ঐদেশের আইনের আওতায় এনে শাস্তির ব্যবস্থা করতে চাই। কিন্তু এর জন্যে আমাদের অভিযোগকারী মা-বোন যা আছেন তাদেরকে একটু কষ্ট সহ্য করে আমাদের সহযোগিতা করতে হবে।

নারী শ্রমিকদের অভিযোগ অনুযায়ী, যেসব এলাকায় নির্যাতন বেশি হয়, তার তালিকা তৈরির পরামর্শ অভিবাসন বিশেষজ্ঞদের।

অভিবাসন ও শণার্থী বিশেষজ্ঞ আসিফ মুনির বলেন, এখন যখন দ্বীপাক্ষিক আলোচনা হচ্ছে, এই সরজমিনে দেখার জায়গাটা সরকার তৈরি করতে পারে কিনা। একদম তালিকা করে যে, কোন এলাকায় কোন বাসায় বাংলাদেশের কোন মেয়ে কাজ করছে। এবং গিয়ে তার সাথে আলাদা ভাবে কথা বলার সুযোগ তৈরি করা।

তবে সরকার বলছে, সেসব রিক্রটিং এজেন্সি বয়স বাড়িয়ে নারী শ্রমিক বিদেশে পাঠাচ্ছে, তাদের কালো তালিকাভুক্ত করা হচ্ছে।  

এ বিষয়ে প্রবাসি কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব আহমেদ মনিরুস সালেহিন বলেন, যেকোন কর্মী যখন বিদেশ যায়, তার পিছনে একজন রিক্রুটিং এজেন্ট থাকেন। আমারা তাকে চিহ্নিত করতে চাচ্ছি, যা এতে তার কোন যোগ সাজোস আছে কিনা।

সচিব আরও জানান, শিগগিরই এ বিষয়ে আরো বেশ কিছু ব্যবস্থা নেয়া হবে, এতে কমে আসবে নারী শ্রমিকদের অভিযোগ।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর