channel 24

সর্বশেষ

  • পাবনায় বিদ্যুতের খুঁটি থেকে পড়ে শ্রমিকের মৃত্যু

  • একই দিনে পালিত হল তিন ধর্মের ধর্মীয় উৎসব

  • সহিংসতার আশঙ্কায় ভারতে স্থগিত ‘বাংলাদেশ ফিল্ম ফেস্টিভেল’

  • বাংলাদেশের সংবাদ সম্মেলন বয়কট করলেন সাংবাদিকরা

  • বাড়িতে মাদকের আসর, স্ত্রীর অভিযোগে স্বামীসহ আটক ২

  • আসামিকে ফেসবুক লাইভে জিজ্ঞাসাবাদ, ওসি প্রত্যাহার

  • মালদ্বীপ দূতাবাসে শেখ রাসেল দিবস উদযাপিত

  • ডেঙ্গুতে ২৪ ঘণ্টায় আরও ১১২ জন হাসপাতালে

  • সরকার অরাজকতা সৃষ্টি করে বিএনপির নেতাকর্মীদের নামে মামলা দিচ্ছে: ফখরুল

  • তিস্তা ব্যারেজে রেকর্ড পরিমাণ পানি ছাড়লো ভারত

  • কেরানীগঞ্জে পুলিশ কর্মকর্তার ম র দে হ উদ্ধার

  • কুমিল্লা ঘটনার মূল অভিযুক্ত সীমান্তে ঘোরাঘুরি করছে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

  • বাংলাদেশকে হারাতে পাপুয়া নিউগিনির অনুপ্রেরণা স্কটল্যান্ড

  • ট্রাকের সঙ্গে ইজিবাইকের মুখোমুখি সংঘর্ষ, নি হ ত ২

  • থানায় ছাত্রলীগ নেতার আ ত্ম হ ত্যা র চেষ্টা!

বর্ণ জটিলতায় এবারও ছাপা হচ্ছে না সাঁওতাল ভাষার প্রাক-প্রাথমিকের বই

বর্ণ জটিলতায় এবারও ছাপা হচ্ছে না সাঁওতাল ভাষার প্রাক-প্রাথমিকের বই

বাংলা, রোমান নাকি অলচিকি? কোন হরফে ছাপা হবে সাঁওতাল ভাষার পাঠ্যবই। এমন গ্যাঁড়াকলে এবারও ছাপা হচ্ছে না সাঁওতাল ভাষার প্রাক-প্রাথমিকের বই। বর্ণ নিয়ে এমন জটিলতার ফাঁদে দেশের লাখ-খানেক সাঁওতাল শিশু। বিশ্বব্যাপী প্রচলিত অলচিকি বর্ণমালা চান সাঁওতালরা। যদিও মিশনারিদের দাবি বাংলা অথবা রোমান হরফ। প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রীর আশ্বাস সংশ্লিষ্টদের সাথে আলোচনা করে শিগগিরই সমাধান।

বর্ণ নিয়ে অবর্ণনীয় কষ্টে সাঁওতাল শিশুরা। গত দুই বছরে ৫টি ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর শিশু, যখন নিজ ভাষায় পড়াশুনা শুরু করছেন, তখন সাঁওতাল শিশুদের নিজ ভাষায় বই পড়ার আকুতি ঝুলে আছে তিনটি আলাদা হরফের শিকেয়।

২০১৬ সাল থেকে ৬টি নৃগোষ্ঠীর ভাষার বই ছাপার উদ্যোগ নেয় সরকার। আর দুবছর হলো ৫ ভাষাই প্রাকপ্রাথমিকের বই ছাপা হচ্ছে। কিন্তু, বাংলা, রোমান আর অলচিকি, হরফের গ্যাঁড়াকলে বাড়ছে সাঁওতাল শিশুদের অপেক্ষা।

সাওতালিরা বলছেন, ছোট ছোট ছেলেমেয়েতো বাংলাভাষা কম বোঝে। তাই তাদের জন্য সাঁওতাল ভাষায় বই না হলে তারা বুঝতে পারে না।

সাঁওতাল মূলত কথ্য ভাষা। ১৮৬০ এর দশকে এ আর ক্যাম্পবেল, লার্স স্ক্রফেসরুড ও পল বোডিং- এই তিন ইউরোপীয় নৃবিজ্ঞানী ও ধর্মযাজক মিলে রোমান হরফে প্রথম সাঁওতাল ভাষার লিখিত রূপ প্রকাশ করেন। পরে ১৯২৫ সালে সাঁওতাল কবি রঘুনাথ মুর্মু এ ভাষার জন্য অলচিকি নামের নতুন বর্ণমালা প্রবর্তন করেন। তারপর থেকে ভারত, নেপাল ও ভুটানসহ দেশের আদি সাঁওতালরা অলচিকি হরফেই সাঁওতাল লেখে। তবে, ধর্মান্তরিত সাঁওতালরা বাংলা ও রোমান হরফ ব্যবহার করে।

জাতীয় আদিবাসী পরিষদের কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য খোকন সুইটেন মুরমু বলেন, অলচিকি ভাষাতে মূলত সাঁওতালদের সঠিক সংস্কৃতি এবং তাদের ধর্ম সম্পর্কে জ্ঞান প্রকাশ করা হয়। ভারতে যেখানে ২কোটি সাঁওতাল যেখানে বসবাস করে সেখানে তাই কেজি থেকে পিএইচডি পর্যন্ত অলচিকি ভাষাতে হচ্ছে।

তাই এবছরও হচ্ছে না সাঁওতাল ভাষার প্রাক প্রাথমিকের বই। দুই পক্ষের সাথে আলোচনার পর সমস্যা সমাধানের আশ্বাস প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী জাকির হোসেনের।

এনসিটিবির চেয়ারম্যান নারায়ণ চন্দ্র পাল বলেন, আমরা ৫টি ভাষায় দিতে পেরেছি আর একটী ভাষা আমাদের সাঁওতাল, তারা বর্ণ বিষয়ে এখনও একমত না হওয়ায় এই বইটি আমরা এখনও দিতে পারি নাই।  

এমন জটিলতা দেশের বসবাস করা সাঁওতাল শিশুদের স্কুলে গিয়ে শিখতে হচ্ছে বাংলা। এভাবে নতুন ভাষা শেখার ভয়ে আগ্রহ হারাচ্ছে অনেক শিশু।

সাঁওতাল ভাষার হরফ নিয়ে দ্রুত একমত হতে না পারলে ক্ষতি হবে সাঁওতালদেরই। তাই সরকার চাচ্ছে এ বিষয়ে দ্রুতই সিদ্ধান্ত নেবে সাঁওতালরা।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর