channel 24

সর্বশেষ

  • প্রবাসীদের ভিসার মেয়াদ ২৪ দিন বাড়িয়েছে সৌদি সরকার

  • চট্টগ্রাম ওয়াসার এমডির দুর্নীতি বিরুদ্ধে কী ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে, জানতে চান হাইকোর্ট

  • পুঁজিবাজারে দেশের ইতিহাসে সবচেয়ে বড় আইপিও'র অনুমোদন

  • কক্সবাজারে হাত ও পায়ের রগ কেটে মাকে হত্যা

  • কক্সবাজারে প্রকাশ্যে অস্ত্রের মহড়া, ছাত্রলীগ নেতা বহিষ্কার

  • ২৭ সেপ্টেম্বর বাংলাদেশের শ্রীলঙ্কা সফর অনিশ্চিত: বিসিবি

  • স্পেনেই থাকছেন লুইস সুয়ারেজ

  • আদার যত গুণ

  • করোনায় দেশে আরও ৩৭ জনের মৃত্যু, নতুন শনাক্ত ১৬৬৬

  • শাপলা শুধু সৌন্দর্যই নয়, এখন রুটি-রুজির অংশ

  • ৫৪ হাজার রোহিঙ্গাকে পাসপোর্ট দিতে চাপ দিচ্ছে সৌদি আরব: পররাষ্ট্রমন্ত্রী

  • পাহাড়ে পিছিয়ে পড়া নারীদের কাছে এক স্বপ্নের নাম সুচরিতা চাকমা

  • সূচকের ইতিবাচক ধারায় শেষ হল চতুর্থ কার্যদিবসের লেনদেন

  • ক্রিকেটার আবু জায়েদ রাহী করোনায় আক্রান্ত

  • কক্সবাজার পৌর মেয়রের শ্যালকের ৪ কোটি টাকা জব্দ

শিডিউল বিপর্যয় ঠেকানো না গেলে রেলে আস্থা হারাবে মানুষ

শিডিউল বিপর্যয় ঠেকানো না গেলে রেলে আস্থা হারাবে মানুষ

ঈদযাত্রায় ট্রেনের শিডিউল বিপর্যয় এখন নিয়মিত ঘটনা। যার জন্য প্রধানত দায়ী অতিরিক্ত যাত্রীর চাপ ও দুর্ঘটনা। কিন্তু এসব পরিস্থিতি মোকাবিলায় থাকে না পর্যাপ্ত আগাম প্রস্তুতি। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, পশ্চিমাঞ্চলে ট্রেনের শিডিউল বিপর্যয় ঠেকানো না গেলে রেলের প্রতি মানুষের আস্থা কমবে। রেল সচিব জানান, ট্রেনের ছাদে ভ্রমণ ঠেকানো এবং লাইন মেরামতে বাড়তি নজর দেয়া হচ্ছে। বাকি সমস্যা সমাধানেও চলছে কাজ।

অপেক্ষাকৃত নিরাপদ ও স্বস্তির কারণে ভ্রমনে জনপ্রিয় হচ্ছে ট্রেনযাত্রা। কিন্তু গত দুই ঈদে এ যাত্রায় হয়ে ওঠে, অসহনীয় দুর্ভোগের নামান্তর। রাত জেগে টিকিট হাতে পেলেও, ভিড় ঠেলে ওঠায় যেন দায়। উঠলেও মেলে না নির্ধারিত আসন।

তবে বড় দুর্ভোগটা হয় তখন, যখন সময় মতো স্টেশনে এসেও, ঘণ্টা পর ঘণ্টা দেখা মেলে না কাঙ্খিত ট্রেনের। এই যেমন গত ১০ আগস্ট ঈদুল আজহার দুদিন আগে, রাত ১১টার রাজশাহীর আন্তঃনগর ট্রেন পদ্মা এক্সপ্রেস, ঢাকা ছাড়ে পরের দিন সকাল ১১টায়। আর রাজশাহীর ধূমকেতু সকাল ৬টার পরিবর্তে ছাড়ে সন্ধ্যা ৬টায়। শুধু রাজশাহী নয়, বিপর্যয়ে পড়ে পঞ্চগড়, খুলনা রংপুরসহ রেলের পশ্চিমাঞ্চলের বেশিরভাগ ট্রেনের সময়সূচিও। ১১ আগস্টের লালমনি এক্সপ্রেস ঈদ স্পেশাল ট্রেনটির যাত্রা তো বিলম্বের কারণে বাতিল করতে বাধ্য হয় রেলওয়ে কর্তৃপক্ষ।  

কিন্তু এত প্রস্তুতির পরও কেন এ বিপর্যয়? রেল সচিব জানান, নতুন বিরতিহীন ট্রেন, ঈদের আগে একটি ট্রেনের লাইনচ্যুতি আর পশ্চিমাঞ্চলে সিঙ্গেল লাইনের কারণে সময়সূচি ঠিক রাখা সম্ভব হয়নি। তবে আগামী বছর যাতে এমন না ঘটে, সেজন্য এখন থেকেই নেয়া হচ্ছে প্রস্তুতি।  

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ডাবল লাইন না করে, বিরতিহীন ট্রেন চালুর সিদ্ধান্ত সঠিক ছিলো না। এতে অন্যান্য আন্তঃনগর ট্রেনের পাশাপাশি কমিউটার ট্রেনের যাত্রা বিরতি বেড়েছে।

যাত্রা নিরাপদ ও সময়সূচি ঠিক রাখতে ট্রেনের ছাদে ভ্রমন বন্ধ ও রেলপথ মেরামতে চলতি মাসের প্রথম দিন থেকে বাড়ানো হয়েছে নজরদারি।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

চ্যানেল 24 বিশেষ খবর