channel 24

সর্বশেষ

  • মধ্যরাত থেকে যেসব এলাকায় মোটরসাইকেল চলাচল বন্ধ

  • যশোরে স্বতন্ত্র প্রার্থীর কর্মীদের হামলায় নৌকার ২০ কর্মী আহত

  • পান্থপথে ময়লার গাড়ির ধাক্কায় মৃত্যু : ডিএনসিসির সেই চালক গ্রেপ্তার

  • রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ক্রমবর্ধমান সহিংসতা সীমান্তের বাইরেও ছড়িয়ে পড়তে পারে: প্রধানমন্ত্রী

  • আমতলীতে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান রাফেজা বেগম

  • ২২ কোটি টাকা লোকসানের বোঝা মাথায় নিয়ে আখ মাড়াই শুরু

  • শেরপুরে আ.লীগ নেতাকে বহিষ্কারের দাবিতে মহাসড়ক অবরোধ

  • করোনার নতুন ধরন ‘ভয়ংকর’, দেশে দেশে সতর্কতা

  • আকর্ষণীয় বেতনে চাকরি দিচ্ছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়

  • নতুন সময়ে মাঠে গড়াবে দ্বিতীয় দিনের খেলা

  • সন্ত্রাসীদের কোনো ধর্ম নেই: ভারতের হাইকমিশনার

  • চরের অবশিষ্ট মানুষকে দ্রুত বিদ্যুৎ দিতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ

  • যাদের কারণে হুমকির মুখে শোয়েবের ১৮ বছরের রাজত্ব

  • পাকিস্তান ম্যাচ শুরুর আগে ভয়ে কাঁপছিলেন কোহলিরা: ইনজামাম

  • মারা গেলেন পৃথিবীর প্রবীণতম নারী

ফেসবুকে রচনা লেখার ফাঁদ, হাতিয়ে নিয়েছে লাখ টাকা

ফেসবুকে রচনা লেখার ফাঁদ, হাতিয়ে নিয়েছে লাখ টাকা

ফেসবুকে জব অফার দিয়ে একটি গ্রুপ থেকে বেকার কিশোর-কিশোরীদের কাছ থেকে হাতিয়ে নেয়া হয়েছে লাখ টাকা। প্রতিটি রচনা লেখার জন্য ২০০ টাকা করে দেবে বলে তাদের গ্রুপে অ্যাড করতে বলা হয়। শুধু তাই নয়, গ্রুপে অ্যাড ফি ধার্য করা হয় ১৫০টাকা। যার মধ্যে ১০০ টাকা গ্রুপ কর্তৃপক্ষ এবং বাকি ৫০ টাকা যার মাধ্যমে ওই গ্রুপে যোগ দেবে, তাকে দেওয়া হবে বলে জানানো হয়।

গত ১০ সেপ্টেম্বর ফেসবুকের এমনই একটি গ্রুপে যুক্ত হন ফাহিমা আক্তার নামে এক কিশোরী। প্রতিটি রচনা লেখার জন্য ২০০ টাকা এবং মাস শেষে ৬ হাজার টাকা পাবে এমন প্রতিশ্রুতি পেয়েই গ্রুপে যুক্ত হন তিনি।

আরও পড়ুন: বিদেশ ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা কাটছে অস্ট্রেলিয়ানদের

ফেসবুকের সেই গ্রুপ কর্তৃপক্ষ তাদের জানায়, ১৫টি গ্রুপ আছে এবং প্রত্যেক গ্রুপে সদস্যসংখ্যা ৪০০। এক মাস পর, অর্থাৎ ১৬ অক্টোবর তারা রাতে পেমেন্ট দেয়া হবে এবং পেমেন্ট রেজিস্ট্রেশনের জন্য আরও ১০০ টাকা দিতে হবে। 

টাকা পাওয়ার লোভে পড়ে সবাই আবারও ১০০ টাকা দিয়ে রেজিস্ট্রেশন করে। কথা ছিল, ১৭ অক্টোবর সকাল আটটায় টাকা দেবে, কিন্তু সকালে উঠে তারা দেখে যে গ্রুপ থেকে সবাইকে রিমুভ করা হয়েছে। গ্রুপ মেম্বারদের ফেসবুক আইডিও ডিঅ্যাকটিভ। 

হিসাব করলে দেখা যাবে, ১৫টি গ্রুপে ৪০০ জন সদস্য হলে সর্বমোট সদস্য ৬ হাজার; টাকা সর্বমোট ১২ লাখের মতো। এভাবেই ফাহিমা আক্তারসহ আরও ৬ হাজার সদস্য প্রতারণার শিকার হন। 

ফাহিমা আক্তার বলেন, এই প্রতারণাকারীদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া না হলে তারা আরও বেশি মানুষের সঙ্গে প্রতারণা করবে। এ অবস্থায় আর কেউ যাতে প্রতারণার শিকার না হয়, সেদিকে কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

এফএইচ/

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

জাতীয় খবর