channel 24

সর্বশেষ

  • দুর্নীতির মামলায় সাবেক প্রতিমন্ত্রী মান্নান খান ও তার স্ত্রীর বিচার শুরু

  • সোমবার থেকে লাখ লাখ স্মার্টফোনে বন্ধ হচ্ছে গুগলের সেবা

  • খুলেছে ঢাবি গ্রন্থাগার, কর্তৃপক্ষের নির্দেশ উপেক্ষা চাকরিপ্রার্থীদের

  • সাড়ে ১০ হাজার শ্রমিককে ভিসা দেবে যুক্তরাজ্য

  • নাসিরনগরে পানিতে ডুবে যমজ ভাই-বোনের মৃত্যু

  • এক ধাপ এগিয়েছে বাংলাদেশ, পিছিয়েছে বিএনপি: কাদের

  • বিমানবন্দরে পরীক্ষামূলকভাবে আরটিপিসিয়ার ল্যাব চালু

  • তেলের মিলের পাশে পড়ে ছিলো আনসার কমান্ডারের লাশ

  • স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে মাস্ক ও হ্যান্ড সেনিটাইজার পেল গার্ল গাইডস

  • কুষ্টিয়ায় ব্যাংক কর্মকর্তা খুন: বিচার চেয়ে পরিবারের সংবাদ সম্মেলন

  • ‘সঞ্চয়পত্রের সুদের হার কমানোর সিদ্ধান্ত সময়োপযোগী নয়’

  • রাজবাড়ীতে গাছ কাটতে গিয়ে বিস্ফোরণ, নারীসহ আহত ৩

  • দেশে করোনায় মৃত্যু কমলো, বাড়লো শনাক্ত

  • আসছে নুরের নতুন রাজনৈতিক দল, নেতৃত্বে রেজা কিবরিয়া

  • দক্ষিণ কোরিয়ার সঙ্গে আলোচনায় বসতে ‘আগ্রহী’ উত্তর কোরিয়া

ইভ্যালিসহ ১০ ই-কমার্স কোম্পানির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ

ইভ্যালিসহ ১০ ই-কমার্স কোম্পানির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ

ইভ্যালিসহ অনিয়মে অভিযুক্ত ১০টি  ই-কমার্স কোম্পানির বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা নিতে নির্দেশ দিয়েছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।

আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর মাধ্যমে এদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে সুপারিশ করেছে মন্ত্রণালয়ের এ সংক্রান্ত কমিটি।

মঙ্গলবার (১৪ সেপ্টেম্বর) সচিবালয়ে কমিটির বৈঠক শেষে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থা (ডব্লিউটিও) সেলের মহাপরিচালক ও ডিজিটাল ই-কমার্স সেলের প্রধান হাফিজুর রহমান সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, সভায় ইভ্যালি, ই-অরেঞ্জ, ধামাকাসহ বিভিন্ন ই-কমার্সের বিষয় উঠে এসেছে। এ প্রতিষ্ঠানগুলো যেহেতু ইতোমধ্যে আইন অমান্য করেছে, সুতরাং মিনিস্ট্রি সরাসরি কোনো দায়িত্ব না নিয়ে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে রেফার করে দেওয়া তারা যাতে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করে। এটা হলো কমিটির সুপারিশ।

এ জন্য স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাছে এ বিষয়ে চিঠি পাঠানো হবে বলেও জানান হাফিজুর রহমান।

এর আগে ৭ জুলাই ই-কমার্স কোম্পানি ইভ্যালির বিরুদ্ধে মামলা করতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে চিঠি দিয়েছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। মূল্য পরিশোধের পর পণ্য সরবরাহ না করার অভিযোগ রয়েছে ইভ্যালির বিরুদ্ধে।

একই সাথে, ইভ্যালির বিরুদ্ধে বাংলাদেশ ব্যাংকের পাওয়া আর্থিক অনিয়মগুলো তদন্ত করে দুদককে আলাদা চিঠি পাঠিয়েছে মন্ত্রণালয়।

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে দেয়া চিঠিতে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় বলেছে, ইভ্যালির চলতি সম্পদ দিয়ে মাত্র ১৬.১৪ শতাংশ গ্রাহককে পণ্য সরবরাহ করতে পারবে বা অর্থ ফেরত দিতে পারবে।

বাকি গ্রাহক এবং মার্চেন্টের পাওনা পরিশোধ করা ওই কোম্পানির পক্ষে সম্ভব নয়। তাছাড়া, গ্রাহক ও মার্চেন্টদের কাছ থেকে নেওয়া ৩৩৮.৬২ কোটি টাকার কোনো হদিস খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না, যা আত্মসাৎ কিংবা অবৈধভাবে অন্যত্র সরিয়ে ফেলার আশঙ্কা রয়েছে।

গ্রাহকদের কাছ থেকে ২১৪ কোটি টাকা অগ্রিম নিয়ে পণ্য ডেলিভারি দেয়নি প্রতিষ্ঠানটি। মার্চেন্টদের ১৯০ কোটি টাকা পাওনা রয়েছে।

এসব অর্থ ফেরতের বিষয়ে তদন্ত করে ব্যবস্থা নিতে, ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর ও বাংলাদেশ প্রতিযোগিতা কমিশনকে নির্দেশ দিয়েছে বাণিজ্য মন্ত্রণালয়।

এমএ/ 

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

জাতীয় খবর