channel 24

সর্বশেষ

  • অনিশ্চিত হয়ে পড়ছে ইউরোপিয়ান সুপার লিগের ভবিষ্যৎ

  • বাংলাদেশকে ভ্যাকসিন দিতে দ্রুত সিদ্ধান্ত চায় চীন

  • ফুরিয়ে আসছে করোনার টিকা, বিকল্প উৎসের খোঁজে সরকার

  • হেফাজত নেতা কোরবান আলী ৭ দিনের রিমান্ডে

  • বাংলাদেশিদের ইউরোপ-আমেরিকা যাবার বাধা কাটলো

  • ঠাকুরগাঁওয়ের শিশু জান্নাত এখন পুরোপুরি সুস্থ

  • এবছর সর্বনিম্ন ফিতরা ৭০ টাকা

  • বিএনপিকে জনগণের পাশে দাঁড়ানোর আহ্বান কাদেরের

  • জয় দিয়ে জিম্বাবুয়ে সিরিজ শুরু পাকিস্তানের

  • ব্যর্থতার বৃত্ত ভেঙে আলোয় উজ্জ্বল শান্ত

  • বিদায় মুখ ঢেকে যায় বিজ্ঞাপনের কবি শঙ্খ ঘোষ

  • শান্তর সেঞ্চুরিতে রাঙানো ক্যান্ডি টেস্টের প্রথমদিন

  • জীবিকার তাগিদ বোঝে না করোনা আতঙ্ক, বোঝে না লকডাউন

  • সুপার লিগে ভাঙনের সুর, চুক্তি অনুযায়ী খেলতে বাধ্য- দাবি পেরেজের

  • ক্যারিয়ারের প্রথম শতক তুলে নিলেন শান্ত

তদন্ত কর্মকর্তা কি আসামিকে অব্যাহতি দেয়ার ক্ষমতা রাখেন, প্রশ্ন হাইকোর্টের

তদন্ত কর্মকর্তা কি আসামিকে অব্যাহতি দেয়ার ক্ষমতা রাখেন, প্রশ্ন হাইকোর্টের

চাঞ্চল্যকর মামলার একি হাল। যে হত্যায় সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড, সেই মামলায় অভিযোগপত্র থেকে পাঁচ আসামিকে বাদ দিয়েছেন তদন্ত কর্মকর্তা। এরমধ্যে চার আসামি ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছিলেন। চট্টগ্রাম ও খুলনার দুটি হত্যা মামলার প্রধান আসামিদের অব্যাহতির আবেদনে প্রশ্ন তুলেছেন হাইকোর্ট। সেই সঙ্গে ওই মামলার তিন তদন্ত কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ বহাল রাখা হয়েছে।

স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি নিয়ে প্রায়ই প্রশ্ন ওঠে। এবারও অভিযোগের তীর, তদন্ত কর্মকর্তাদের দিকে। প্রশ্ন ওঠেছে, তারা চার্জশিট থেকে আসামিদের বাদ দিতে পারেন কি না।

২০১১ সালের ২৬ ডিসেম্বর, চট্টগ্রামের সাতকানিয়ার নুরুল আবছারকে হত্যা করা হয়। ঐ ঘটনায় নুরুল আবছারের বাবা থানায় মামলা করেন। পরে প্রধান আসামি আব্দুল মোনাফ ও ওসমান গনি চৌধুরীসহ ৬ জনকে অব্যাহতি দেন তদন্ত কর্মকর্তা। তবে চার্জশিটভুক্ত ৪ আসামি, স্বীকারোক্তীমূলক জবানবন্দিতে মোনাফ ওসমান গনি চৌধুরীর নাম বলেন। এরপরও ৬ জনের নাম কেন বাদ দেয়া হলো, তা নিয়ে প্রশ্ন তোলেন, চট্টগ্রামের সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত। নারাজি দেয়ার পর মোনাফসহ ৪ আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ আমলে নেন আদালত; যা চ্যালেঞ্জ করে উচ্চ আদালত আসেন আসামিরা। বিস্ময় প্রকাশ করে, উচ্চ আদালত প্রশ্ন তোলেন, মামলার তদন্ত নিয়ে। খারিজ করা হয় আসামিদের আবেদন।

২০১২ সালে খুলনার উজ্জ্বল হত্যায় প্রধান আসামি মেহেদী হাসান স্টার্লিনকেও অব্যাহতি দেয় ২ তদন্ত কর্মকর্তা। সাক্ষ্য নেয়ার সময় পুনতদন্তের আবেদন জানায় রাষ্ট্রপক্ষ। এক আসামি মামলা বাতিলের আবেদন করতে আসেন হাইকোর্ট। সেই মামলাও পুনঃতদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।

হত্যা মামলার এমন আসামিদের কোন প্রক্রিয়ায় চার্জশিট থেকে বাদ দেন তদন্ত কর্মকর্তা, তা নিয়ে ক্ষোভ জানান হাইকোর্ট। বলেন, মামলার বিচারের দায় তদন্ত কর্মকর্তাদের হতে পারে না।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

জাতীয় খবর