channel 24

সর্বশেষ

  • লিবিয়া উপকূলে নৌকাডুবি, ৩৩ বাংলাদেশি উদ্ধার

  • ন্যায়বিচার পাওয়ার আশ্বাস আইনমন্ত্রীর

  • কোয়ারেন্টিন শেষে অনুশীলনে সাকিব-মোস্তাফিজ

  • নরসিংদীর রায়পুরায় দু’পক্ষের সংঘর্ষে নিহত ৩

  • করোনাকালেও সোয়া দুই লাখ কোটি টাকার এডিপি!

  • খিলক্ষেত ফ্লাইওভারে ‘বন্দুকযুদ্ধে দুই ছিনতাইকারী’ নিহত

  • বাংলাদেশের ভ্যাক্সিন তৈরিতে কিউবা বা ইরানের মডেল ফলো

  • নেত্রকোনায় বজ্রপাতে ৭ জনের মৃত্যু

  • রোজিনার মুক্তি দাবি সাংবাদিক অধিকার সংগঠন সিপিজের

  • দপ্তর বদল করা হয়েছে স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের উপসচিবের

  • করোনাভাইরাসে দেশে আরও ৩০ মৃত্যু

  • আমলার মামলায় কারাগারে সাংবাদিক রোজিনা

  • রাঙ্গামাটিতে প্রাণহানি রোধে ঝুঁকিপূর্ণ এলাকা চিহ্নিত প্রশাসনের

  • চট্টগ্রাম বন্দরে বাড়ছে কন্টেইনার খালাসের সংখ্যা

  • বান্দরবানে পাহাড়িদের ৭০ বসতঘর পুড়ে ছাই

রাজনৈতিক ক্যারিয়ার ধ্বংসে ইরফানের বাসায় রাখা হয় অস্ত্র

রাজনৈতিক ক্যারিয়ার ধ্বংসে ইরফানের বাসায় রাখা হয় অস্ত্র

রাজনৈতিক ক্যারিয়ার ও সুনাম নষ্টে ইচ্ছে করেই কেউ রেখে দেন অস্ত্র। র‍্যাব বলছে বিদেশী অস্ত্র আর পুলিশ বলছে দেশি। হাজী সেলিমপুত্র ইরফানের বিরুদ্ধে করা অস্ত্র আইনের র‍্যাবের মামলা ও পুলিশের তদন্ত প্রতিবেদনে এমন ফারাক আকাশ-পাতাল। এই প্রতিবেদনের ভিত্তিতেই মামলা থেকে অব্যাহতি পান ইরফান। যদিও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলছেন, কোন প্রভাব নয় নিজেদের মতো কাজ করছে আইনশৃংখলা বাহিনী।

গেল বছর ২৫ অক্টোবর রাজধানীর কলাবাগানে সংসদ সদস্যের স্টিকার ব্যবহৃত গাড়ি থেকে নেমে হাজি সেলিমের ছেলে ইরফান সেলিম সহ বেশ কয়েকজন নৌবাহিনির কর্মকর্তা ওয়াসিফ আহম্মেদকে মারধর করেন। পরে এই ঘটনায় ইরফান সেলিমকে আসামি করে ধানমন্ডি থানায় একটি হত্যাচেষ্টা মামলা দায়ের করে ওয়াসিফ আহম্মেদ। এরপরই অভিযান চালিয়ে গ্রেপ্তার করা হয় ইরফান সেলিম সহ তার সহযোগিকে। তখন একটি বিদেশি পিস্তলসহ গুলি ও মাদকদ্রব্য উদ্ধারের কথা জানায় র‍্যাব।  

২৮ অক্টোবর চকবাজার থানায় অস্ত্র আইনে মামলা করে র‍্যাব। তাতে বলা হয়, মেড ইন ইউএসএ লেখা বিদেশি পিস্তল উদ্ধার করেছেন তারা। পরে তদন্ত শুরু করে চকবাজার থানা পুলিশ।

ডিসেম্বরের শেষে আদালতে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেয় পুলিশ। চ্যানেল টুয়েন্টিফোরেরর হাতে আসা সেই চূড়ান্ত প্রতিবেদন বলা হয়, ইরফান সেলিমের বাসায় অভিযান পরিচালনাকারি ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়াল আলমকে, তদন্ত কর্মকর্তা নোটিশ দিলেও সাক্ষী দিতে আসেননি তিনি।

বাসা থেকে উদ্ধার হওয়া অস্ত্রটি পরীক্ষার জন্য সিআইডির ব্যালেস্টিক শাখায় পাঠানো হয়। পিস্তলটি দেশি এবং তা ইরফানের শয়ন কক্ষ থেকে উদ্ধার হয়নি।

তদন্তে প্রাপ্ত তথ্য থেকে পুলিশ জানায়, রাজনৈতিক ক্যারিয়ার, সামাজিক সুনাম নষ্ট করা এবং অসৎ উদ্দেশ্যে অস্ত্রটি ইরফান সেলিমের অতিথি কক্ষে রাখা হয়। তবে কে রেখেছেন তা জানা যায়নি। তাই কোন প্রমাণ না মেলায় অস্ত্র মামলা থেকে অব্যাহতি দিতে আবেদন করা হয় আদালতে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলছেন, সব সংস্থা স্বাধীনভাবেই তদন্ত করে।

পুলিশের প্রতিবেদনের পর বৃহস্পতিবার অস্ত্র মামলায় অব্যাহিত পান হাজী সেলিমপুত্র ইরফান সেলিম।

 

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

জাতীয় খবর