channel 24

সর্বশেষ

  • পিছিয়ে যেতে পারে বন্ধবন্ধু আন্তর্জাতিক গোল্ড কাপ

  • মৌসুমে প্রথমবারের মত ঢাকার বাইরে প্রিমিয়ার লিগ

  • দ্বিতীয় ম্যাচে দল নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষার বিপক্ষে শাহরিয়ার নাফীস

  • মুক্তিযুদ্ধে জিয়াউর রহমানের অবদানকে খাটো করে তুলে ধরা হচ্ছে: ফখরুল

  • সিরিজ নিশ্চিতের মিশনে কাল মাঠে নামবে বাংলাদেশ

  • করোনার টিকা সংরক্ষণের জোর প্রস্তুতি চলছে সারা দেশে

  • ভারতকে প্রধানমন্ত্রীর ধন্যবাদ

  • ভারতে সেরাম ইনস্টিটিউটের নির্মাণাধীন ভবনে অগ্নিকাণ্ডে ৫ জনের মৃত্যু

  • লুটপাটের জন্যই বৃদ্ধাকে নির্মম নির্যাতন, পরিকল্পনায় রেখার স্বামী

  • চসিক নির্বাচন: সেনা মোতায়েনের দাবি, বিএনপির প্রার্থীর

  • উচ্ছেদ অভিযান ঘিরে রণক্ষেত্র মিরপুর

  • ৭০ হাজার গৃহহীন পরিবার পাচ্ছে প্রধানমন্ত্রীর উপহার

  • বিনাদোষে ৫ বছর জেল খাটার পর মুক্তি পেল আরমান

  • ফেসবুকে পরিচয়, তারপর জিম্মি করে মুক্তিপণ দাবি

  • নীলফামারীতে ধর্ষণের দায়ে একজনের মৃত্যুদণ্ড

এবার পেঁয়াজ, রসুন, মরিচসহ ১৪টি কৃষিপণ্যের উৎপাদন খরচ নির্ধারণ

এবার পেঁয়াজ, রসুন, মরিচসহ ১৪টি কৃষিপণ্যের উৎপাদন খরচ নির্ধারণ

ধানের বাইরে দেশের ইতিহাসে এই প্রথম ১৪টি কৃষিপণ্যের উৎপাদন খরচ ঠিক করলো সরকার। চ্যানেল টোয়েন্টিফোরকে এ খবর নিশ্চিত করেছে কৃষি বিপণন অধিদপ্তর। তারা জানান, ক্রমান্বয়ে ৩৭টি পণ্যের দাম নির্ধারণ করবে সরকার। আশা, এতে ন্যায্য মূল্য পাবেন কৃষকরা।

হাড়ভাঙা পরিশ্রমে বারো মাসেই দেখা মিলে বাহারি রং আর নানান পুষ্টিকর খাবারের বিস্তীর্ণ ক্ষেত। কিন্তু কখনো কখনা কৃষকের এই স্বপ্নভরা ফসলগুলো হয়ে ওঠে দুস্বপ্নের। উৎপাদন খরচ তুরতে না পারলে প্রতিবাদ করেন ফসলগুলোকে রাস্তায় ফেলে। যদিও খোরপোষ কৃষিতে তারা জানেন না, তাদের উৎপাদিত ফসলের ব্যয়।

তবে আশার কথা হল, স্বাধীনতার পর এবারই প্রথম ১৪টি ফসলের উৎপাদন খরচ নির্ধারণ করেছে সরকার। যদিও ধানেরটা দেয়া অনেক আগে থেকেই।

এমন পদক্ষেপকে সাধুবাদ জানিয়েছে কৃষি বিশেষজ্ঞরা বলছেন, শুধু উৎপাদন খরচ নয়, নির্ধারণ করতে হবে বিক্রয়মূল্য। কৃষকরা এর চেয়ে কম দাম পেলে সরকার কি পদক্ষেপ নিবে তারও ঘোষণা থাকা উচিত।

কৃষি বিপণন অধিদপ্তরের সিদ্ধান্ত মোতাবেক, চলতি বছর আলোচিত পেঁয়াজের কেজিতে উৎপাদন খরচ ১৯ টাকা ২৪ পয়সা। রসুনের ৩০ টাকা ৮৭ পয়সা, মরিচ ১৯ টাকা, সরিষা ৩৩ টাকা ৮৪ পয়সা, মসুর ৪০ টাকা ৩২ পয়সা।

এদিকে এক বিপণন বিশেষজ্ঞ বলছেন, যোগান এবং চাহিদার বিষয়টি নিশ্চিত করতে না পারলে সরকারের এমন পদক্ষেপ কার্যকর হবে না।

তবে ধারাবাহিকভাবে সবকিছুই হবে বলে আশা কৃষি বিপনন অধিদপ্তরের শীর্ষ কর্তার।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

জাতীয় খবর