channel 24

সর্বশেষ

  • বাংলাদেশের বিপক্ষে সিরিজ আয়োজনে মরিয়া শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট

  • দেশে কওমি শিক্ষার প্রসারে অবদান রাখেন আল্লামা শফি

  • নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ালেন সভাপতি প্রার্থী বাদল রায়

  • মিয়ানমার থেকে পেঁয়াজ আমদানি শুরু

  • আল্লামা শফী মারা গেছেন

  • মানিকগঞ্জে শ্রমিক জুলহাসকে পায়ুপথে বাতাস দিয়ে হত্যার ঘটনায় মামলা

  • বাঁশের চেয়ে কঞ্চি বড়!

  • নারায়ণগঞ্জে মসজিদে বিদ্যুৎস্পৃষ্টে নিহত ১

  • মাগুরায় দুই বাস-মাইক্রোবাসের ত্রিমুখি সংঘর্ষ, নিহত ৪

  • রংপুরে একই বাড়ি থেকে দুই বোনের মরদেহ উদ্ধার

  • বাংলাদেশ-শ্রীলঙ্কা সফর: বিসিবির চিঠির উত্তর দেয়নি এসএলসি

  • ক্রিকেটারদের দ্বিতীয় ধাপের করোনা পরীক্ষা শুরু

  • পচাত্তরের কুশীলবরা এখনো আশপাশে ওৎ পেতে আছে: শ ম রেজাউল

  • দেশে করোনায় আরও ২২ জনের মৃত্য, শনাক্ত ১৫৪১

  • ইসরায়েলের সাথে আরব রাষ্ট্রের সম্পর্ক স্বাভাবিক করার উদ্যোগের প্রতিবাদ

খিচুড়ি নয়, স্কুলের টিফিন কার্যক্রম দেখতে বিদেশ ভ্রমণের প্রস্তাব: সচিব

খিচুড়ি নয়, স্কুলের টিফিন কার্যক্রম দেখতে বিদেশ ভ্রমণের প্রস্তাব: সচিব

খিচুড়ি রান্না প্রশিক্ষণের জন্য নয়, স্কুলের দুপুরের খাবার ব্যবস্থাপনার প্রশিক্ষণ নিতে সরকারি কর্মকর্তাদের ভারতের দিল্লি এবং কেরালায় যাবার প্রস্তাব করা হয়েছে। মঙ্গলবার এমন ব্যাখ্যা-ই দিয়েছে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়। জানানো হয়, এটা অপচয় নয়, দক্ষতা বাড়ানো জন্য এই কর্মসূচি।

পুকুর খনন, মাছচাষ, লিফ্ট কেনা-এমন নানা বিষয়ে প্রশিক্ষণের নামে সরকারি কর্মকর্তাদের বিদেশ ভ্রমণের খবর জন্ম দিয়েছে মুখরোচক আলোচনার। এবার সেই আলোচনায় ঘি ঢেলেছে, স্কুলে দুপুরের খাবার ব্যবস্থাপনার প্রশিক্ষণ নিতে ১ হাজার কর্মকর্তার ভারত সফরে যাবার খবর। খিচুড়ি রান্না শিখিতে এ সফর-খবরের এমন শিরোনামই, রসদ যুগিয়েছে আলোচনার।

দারিদ্র্য পীড়িত ১০৪টি উপজেলার স্কুলে বিস্কুট আর ১৬টি উপজেলায় রান্না করা খাবার দিয়ে আসছিলো সরকার। যার মেয়াদ শেষ হচ্ছে চলতি বছর। কিন্তু সরকারের নির্বাচনি ওয়াদা, ২০২৩ সালের মধ্যে দেশের সব স্কুলেই দুপুরের কাবার দেয়া হবে। যা শুরু হওয়ার কথা ২০২১ সাল থেকে। প্রায় ১৯ হাজার কোটি টাকার এই প্রকল্পে, প্রশিক্ষণের জন্য বরাদ্দ চাওয়া হয়েছে ৫ কোটি টাকা। তবে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব আকরাম আল হোসেন জানান, খিচুড়ি না, দুপুরের খাবার ব্যবস্থাপনার প্রশিক্ষণ নিতে ভারতের দিল্লি ও কেরালায় যাবার কথা কর্মকর্তাদের।

সচিবের দাবি, ব্যবস্থাপনায় দক্ষতা বাড়াতে, এমন প্রশিক্ষণের প্রয়োজন রয়েছে। একনেকে অনুমোদন মিললে, প্রশিক্ষণের জন্য যাবেন ১ হাজার কর্মকর্তা।

টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ইফতেখারুজ্জামানের মতে, জনগণের টাকায় এমন প্রশিক্ষণ অনৈতিক।

এ ধরনের প্রশিক্ষণে অর্থ ছাড়ের আগে, যৌক্তিকভাবে পুনর্বিবেচনার পরামর্শ টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামানের।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

জাতীয় খবর