channel 24

সর্বশেষ

  • র‍্যাবের মহাপরিচালক হলেন চৌধুরী আব্দুল্লাহ আল-মামুন

  • বেনজীর আহমদকে পুলিশ মহাপরিদর্শক করে প্রজ্ঞাপন

  • করোনা সংক্রমণ রোধে ঢাকার ৫০টির বেশি এলাকার ও বাড়ি লক ডাউন

  • করোনায় ঘরবন্দি বেশিরভাগ মানুষ, সুস্থ থাকতে সুষম খাদ্যাভাস ও শরীর চর্চার পরামর্শ

  • দেশে করোনার সামাজিক সংক্রমণ শুরু, ১৫ জেলায় মিলেছে রোগী

  • মহামারি সংক্রমণ আইন প্রথমবারেরমতো কার্যকর, তবে মানছেন না কেউ

  • ঢাকা মেডিকেলে আইসোলেশনে চিকিৎসাধীন যুবকের মৃত্যু

  • বঙ্গবন্ধুর খুনি ক্যাপ্টেন (বরখাস্ত) মাজেদের মৃত্যু পরোয়ানা জারি

  • টাঙ্গাইলে করোনা রোগী শনাক্ত, আশেপাশের ৩৫ টি বাড়ি লকডাউন

  • বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার অর্থ তহবিল বন্ধের হুঁশিয়ারি ট্রাম্পের

  • চীনের উহানে খুলে দেওয়া হয়েছে বিমানবন্দর ও রেল স্টেশন

  • করোনা উপসর্গে কাপাসিয়ায় মেডিকেল ছাত্রের মৃত্যু

  • নিউইয়র্ক যেন মৃত্যুনগরী

  • করোনায় প্রাণহাণি ছাড়ালো ৮২ হাজার

  • হজযাত্রী নিবন্ধন সময় ১৬ এপ্রিল পর্যন্ত বৃদ্ধি

পি কে হালদার ও পরিবারের সদস্যদের পাসপোর্ট জব্দই থাকছে

পি কে হালদার ও পরিবারের সদস্যদের পাসপোর্ট জব্দই থাকছে

পি কে হালদার ও তার পরিবারের সদস্যদের পাসপোর্ট ও ব্যাংক হিসাব জব্দই থাকবে। মঙ্গলবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) সকালে প্রধান বিচারপতির নেতৃত্বে ৪ সদস্যের বেঞ্চ হাইকোর্টের এই রায় বহাল রাখেন।

একই সাথে পি কে হালদার ও তার পরিবারের সদস্যের স্থাবর ও অস্থাবর সম্পত্তি হস্তান্তরেও নিষেধাজ্ঞা জারি করেন। এছাড়াও পরিচালকদের সম্পত্তিও হস্তান্তরে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছেন আপিল বিভাগ।

এসময় বাংলাদেশ ব্যাংকের আইনজীবী বলেন কানাডা থেকে পিকে হালদার ও অর্থ দুটোই ফিরিয়ে আনা যাবে। এদিকে ইন্টারন্যাশনাল লিজিংয়ের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান ও পরিচালক হিসাবে থাকছেন ইব্রাহিম খালেদ।

এর আগে, গত ২১ জানুয়ারি এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংক ও রিলায়েন্স ফিন্যান্স লিমিটেডের সাবেক ব্যবস্থাপনা পরিচালক (এমডি) প্রশান্ত কুমার হালদারসহ (পি কে হালদার) ২০ জনের ব্যাংক হিসাব ও পাসপোর্ট জব্দের নির্দেশ দেন বিচারপতি মোহাম্মদ খুরশিদ আলম সরকারের একক হাইকোর্ট বেঞ্চ। এছাড়া, প্রতিষ্ঠানের বর্তমান চেয়ারম্যান এমএ হাশেমসহ কোম্পানির পরিচালকদের সম্পদের হিসাব দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

একইসঙ্গে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত আর্থিক খাতের কোম্পানি ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফিন্যান্স সার্ভিস লিমিটেড পরিচালনার জন্য স্বাধীন পরিচালক ও চেয়ারম্যান হিসেবে বাংলাদেশ ব্যাংকের সাবেক গভর্নর ইব্রাহিম খালেদকে নিয়োগ দেন হাইকোর্ট।

পি কে হালদার ছাড়াও যাদের ব্যাংক হিসাব ও পাসপোর্ট জব্দের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে তারা হলেন—কোম্পানির ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম. নুরুল আলম, পরিচালক জহিরুল আলম, এমএ হাশেম, নাসিম আনোয়ার, বাসুদেব ব্যানার্জী, পাপিয়া ব্যানার্জী, মোমতাজ বেগম, নওশেরুল ইসলাম, আনোয়ারুল কবির, প্রকৌশলী নুরুজ্জামান, আবুল হাশেম, মো. রাশেদুল হক, পি কে হালদারের মা লীলাবতী হালদার, স্ত্রী সুস্মিতা সাহা, ভাই প্রিতুষ কুমার হালদার, চাচাতো ভাই অমিতাব অধিকারী, অভিজিৎ অধিকারী, ব্যাংক এশিয়ার সাবেক পরিচালক ইরফান উদ্দিন আহমেদ, পি কে হালদারের বন্ধু উজ্জ্বল কুমার নন্দী।

মামলায় অভিযোগ করা হয়েছে, পি কে হালদার বিভিন্ন আর্থিক প্রতিষ্ঠানের দায়িত্বে থেকে লোপাট করেছেন অন্তত সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকা। তিনি প্রথমে রিলায়েন্স ফিন্যান্স এবং পরে এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালকসহ (এমডি) বেশ কয়েকটি প্রতিষ্ঠানের গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করেছেন। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে রয়েছে—ইন্টারন্যাশনাল লিজিং অ্যান্ড ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস, পিপলস লিজিং অ্যান্ড ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিসেস, এফএএস ফিন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেড ও বাংলাদেশ ইন্ডাস্ট্রিয়াল ফিন্যান্স কোম্পানি (বিআইএফসি) প্রভৃতি।

পি কে হালদারের বিরুদ্ধে ওইসব প্রতিষ্ঠানের গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন ও নতুন আরও কিছু কাগুজে প্রতিষ্ঠান তৈরির মাধ্যমে প্রায় তিন হাজার ৬০০ কোটি টাকা আত্মসাৎ ও বিদেশে পাচার করার অভিযোগ ওঠে।

এদিকে দেশব্যাপী ক্যাসিনো অভিযানের ধারাবাহিকতায় পি কে হালদারের বিরুদ্ধে প্রায় ২৭৫ কোটি টাকা অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ আনা হয়। এ ঘটনায় দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) সহকারী পরিচালক মামুনুর রশীদ বাদী হয়ে মামলা করেন।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

জাতীয় খবর