channel 24

সর্বশেষ

  • স্বাস্থ্যের সাবেক ডিজির গাড়ি চালক শত কোটি টাকার মালিক

  • দীর্ঘ বিরতির পর দলগত অনুশীলনে টিম বাংলাদেশ

  • কুমিল্লায় ভুয়া মেজর পরিচয় প্রদানকারী এক প্রতারক গ্রেপ্তার

  • ভোলায় ১০ মিনিটের টর্নেডোর আঘাতে লণ্ডভণ্ড শতাধিক ঘরবাড়ি

  • সৌদি এয়ারলাইন্সের টিকিট কিনতে ভিড়-ভোগান্তি

  • সিআরআই'র ম্যাগাজিন 'হোয়াইট বোর্ড' এর উদ্বোধন

  • মহিষ চুরির অভিযোগে চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রের বয়স ১৯ দেখিয়ে মামলা!

  • স্বাস্থ্যের সাবেক ডিজির গাড়ি চালকের ঢাকায় ২৪টি ফ্ল্যাট, ৩টি বাড়ি

  • টেকনাফে ৫ লাখ ইয়াবা জব্দ, রোহিঙ্গাসহ আটক ৭

  • মসজিদে অবৈধ বিদ্যুৎ সংযোগ দেয়ার অভিযোগে আটক মিস্ত্রী ২ দিনের রিমান্ডে

  • কোয়ারেন্টিনে টিম বাংলাদেশ

  • ভারত থেকে আসা বেশিরভাগ পেঁয়াজই নষ্ট

  • চালের কুড়ার তেলের উপকারিতা

  • পেঁয়াজের বিকল্প হিসাবে পাতা পেঁয়াজের ব্যবহার

  • চাঁদপুরে পাটাপুতা নিয়ে দ্বন্দে ভাইয়ের হাতে ভাই খুন

ইসির ভেতরেই লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড নেই: ইসি মাহবুব

ইসির ভেতরেই লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড নেই: ইসি মাহবুব

সিটি নির্বাচনকে সুষ্ঠু করতে কমিশন সঠিকভাবে দায়িত্ব পালন করেনি বলে মন্তব্য করেছেন নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার।

রবিবার (২৬ জানুয়ারি) সকালে নির্বাচন ভবনে সাংবাদিকদের কাছে এমন মন্তব্য করেন তিনি। এসময় তিনি জানান, নির্বাচন কমিশনের ভেতরেই লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড নেই।

মাহবুব তালুকদার অভিযোগ করেন, অনুষ্ঠিত ৩টি কমিশন সভার কোনটিতেই আচরন বিধি, অনিয়ম বা প্রার্থীদের অভিযোগ সম্পর্কে আলোচনা হয়নি। বলেন, নির্বাচন কমিশনে রাজনৈতিক দল বা প্রার্থীর পক্ষ থেকে আসন্ন সিটি করপোরেশন নির্বাচন সম্পর্কে যে সব অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে বা অভিযোগপত্র প্রেরিত হয়েছে, তা নিয়ে কমিশনে কোনো প্রকার আলোচনা ও সিদ্ধান্ত গ্রহণের লক্ষণ দেখা যাচ্ছে না। এসব অভিযোগের পেছনে যে অসন্তোষ আছে, তা বিস্ফোরিত হলে সিটি করপোরেশন নির্বাচন যথোপযুক্তভাবে অনুষ্ঠিত হবে না, যা কোনোভাবেই কাম্য নয়। এর দায়ভার নির্বাচন কমিশনকে বহন করতে হবে।

তিনি আরও বলেন, ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশন নির্বাচন সম্পর্কে আমার কিছু বক্তব্য রয়েছে। এই নির্বাচন সম্পর্কে কমিশনের যেভাবে দায়িত্ব পালন করা প্রয়োজন, তা হচ্ছে না। উক্ত নির্বাচনের শিডিউল ঘোষণার পর থেকে আজ পর্যন্ত যে তিনটি কমিশন সভা অনুষ্ঠিত হয়, তার কোনোটিতে ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচনের আচরণবিধি, অনিয়ম বা প্রার্থীদের অভিযোগ সম্পর্কে কোনো আলোচনা হয়নি এবং কোনো কমিশন সভায় এসব বিষয় এজেন্ডাভুক্ত হয়নি। ২৮ জানুয়ারি যে কমিশন সভা অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে, তাতেও ঢাকা সিটি করপোরেশন সম্পর্কে কোনো বিষয় এজেন্ডাভুক্ত নয়।

ইসি বলেন, অত্যন্ত দুঃখের সঙ্গে বলতে হচ্ছে, ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচন সম্পর্কে আমি বিগত ৯, ১৩, ১৬ ও ২০ জানুয়ারি তারিখে যে চারটি ইউও নোট প্রদান করেছি, তা রীতিমত উপেক্ষা করা হয়েছে এবং আমলে নেয়া হয়নি। এসবের বিষয়বস্তু সম্পর্কে কোনো আলোচনা হয়নি বা প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাও গৃহীত হয়নি। যদি আমার বক্তব্য অগ্রহণযোগ্য হয়, তাহলেও আমাকে তা জানানো উচিত ছিল।

মাহবুব তালুকদার বলেন, বিগত ১৬ জানুয়ারি প্রদত্ত ইউও নোটের মাধ্যমে কমিশন সচিবালয়ের সিনিয়র সচিব ও ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের দুই রিটার্নিং অফিসারের কাছে আমি প্রার্থীদের বিভিন্ন অভিযোগ সম্পর্কে তথ্যাদি জানাতে বলেছিলাম। এসব অভিযোগের বিষয়ে কি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে ২০ জানুয়ারি তারিখের মধ্যে আমার কাছে পেশ করার জন্য নির্দেশ দিয়েছিলাম। কিন্তু আমার সেই নির্দেশ উপেক্ষিত হয়েছে এবং কোনো তথ্যই আমাকে সরবরাহ করা হয়নি।

তিনি আরও বলেন, নির্বাচন কমিশন সভায় আমার প্রস্তাব বা সুপারিশ সংখ্যাগরিষ্ঠতার কারণে অগৃহীত হয়। আমাকে সংখ্যালগিষ্ঠ হিসেবে না দেখে আমার বক্তব্যের বিষয়বস্তুর মেরিটকে বিবেচনায় নেয়া সমীচীন বলে মনে করি। আমার ধারণা কমিশন সভায় আমার বক্তব্য প্রদানের স্থান সংকুচিত হয়ে পড়েছে। নির্বাচন কমিশনের অভ্যন্তরেই কোনো লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড নেই। আমরা নির্বাচন কমিশনের স্বাধীনতা ও মর্যাদা রক্ষা করতে চাই। আমাদের কর্মকাণ্ডে তা দৃশ্যমান হওয়া বাঞ্ছনীয়।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

জাতীয় খবর