channel 24

সর্বশেষ

  • হাটহাজারী মাদ্রাসার পাশে চিরশায়িত হলেন আল্লামা শফী

  • এইচপি দলের শ্রীলঙ্কা সফর বাতিল হওয়ায় বিকল্প পথে বিসিবি

  • ব্যাটিং পরামর্শকের দায়িত্ব নিচ্ছেন না ম্যাকমিলান

  • আমদানির খবরে কমতে শুরু করেছে পেঁয়াজের দাম

  • আজ শুরু আইপিএলের ১৩তম আসর

  • নড়াইলে কিশোরীদের মনোজগতের পরিবর্তনে কাজ করছে আত্মশুদ্ধি কেন্দ্র

  • ভারতে আল-কায়েদার ৯ সদস্য আটক

  • চট্টগ্রামের খাতুনগঞ্জে পেঁয়াজের দাম নিন্মমুখী

  • গত সপ্তাহে দৈনিক গড় লেনদেন ১১'শ কোটি টাকার বেশি

  • মহামারিতে ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পে ক্ষতি প্রায় ২ হাজার কোটি টাকা

  • করোনায় জামদানি ব্যবসায়ীদের নাকাল অবস্থা

  • মানবসম্পদ সূচকে ১২৩তম অবস্থানে বাংলাদেশ

  • অসাধারণ জয়ে আসর শুরু করলো বায়ার্ন মিউনিখ

  • আল্লামা আহমদ শফীর জানাজা সম্পন্ন

  • নারায়ণগঞ্জে মসজিদে বিস্ফোরণ: তিতাসের বরখাস্ত আট কর্মকর্তা গ্রেপ্তার

সাগীরা মোর্শেদ হত্যা: ৪ জনকে আসামি করে চার্জশিট, ২৫ জন অব্যাহতি

সাগীরা মোর্শেদ হত্যা: ৪ জনকে আসামি করে চার্জশিট, ২৫ জন অব্যাহতি

আলোচিত সগিরা মোর্শেদ হত্যা মামলায় চারজনকে আসামি করে চার্জশিট দিয়েছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেসটিগেশন (পিবিআই)। একই সাথে গ্রেফতার অন্য ২৫ জনকে দায় থেকে অব্যাহতি দেয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৬ জানুয়ারি) এই চার্জশিট জমা দেওয়া হয়। চার্জশিটে সগিরা মোর্শেদ হত্যাকাণ্ড সম্পর্কে আরও চাঞ্চল্যকর তথ্য বেরিয়ে এসেছে।

উচ্চ আদালতের নির্দেশে মিস মামলাটির সুষ্ঠু তদন্ত করে পিবিআই। তদন্তে ত্রিশ বছর পর উন্মোচিত হয়, সগিরা মোর্শেদ ছিনতাইকারীদের হাতে নয়, পরিকল্পিত হত্যাকাণ্ডের শিকার হয়েছেন। শেখ হাসিনাসহ আওয়ামী লীগের শীর্ষ নেতৃবৃন্দকে হত্যার জন্য একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলার পর যেভাবে জজ মিয়া নাটক সাজানো হয়েছিল, ঠিক একইভাবে সগিরা মোর্শেদকে হত্যার পর ছিনতাই নাটক সাজানো হয়েছিল। ছিনতাই নাটক সাজাতে সগিরা মোর্শেদ হত্যা মামলার আলামত গায়েব ও পোস্টমর্টেম রিপোর্ট পর্যন্ত গায়েব করে ফেলা হয়।

কাকতালীয় হলেও সত্য, দুইটি মামলারই আলামত গায়েবের সঙ্গে দুই সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জড়িত। বিএনপির সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী লুৎফুজ্জামান বাবর একুশে আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার তদন্ত ভিন্ন দিকে ঘুরিয়ে জজ মিয়া নাটক সাজিয়েছিলেন। ওই সময়ের আরেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মেজর জেনারেল মাহমুদুল হাসান খুনের মামলার তদন্ত ভিন্ন দিকে ঘুরিয়ে দিতে ছিনতাই নাটক সাজিয়েছিলেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, গত বছরের ১০ নবেম্বর মামলার সন্দেহভাজন আসামি আনাছ মাহমুদ ওরফে রেজওয়ানকে (৫৯) ঢাকার রামপুরা থেকে গ্রেফতার করা হয়। তার স্বীকারোক্তি মোতাবেক গত ১২ নবেম্বর ডাঃ হাসান আলী চৌধুরী (৭০) ও তার স্ত্রী সায়েদাতুল মাহমুদা শাহিনকে (৬৪) ধানম-ি থেকে গ্রেফতার করা হয়। তাদের দেয়া তথ্য মোতাবেক গত ১৩ নবেম্বর মোঃ মারুফ রেজাকে (৫৯) বেইলি রোডের বাসা থেকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতাকৃতরা আদালতে সগিরা হত্যায় নিজেদের জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে জবানবন্দী দেন। এজন্য এ চারজনকে অভিযুক্ত করে সগিরা মোর্শেদ হত্যা মামলার চার্জশীট দাখিল করা হচ্ছে। তবে আগের তদন্তকারী কর্মকর্তা যেহেতু মিন্টু নামে এক ছিনতাইকারীকে অভিযুক্ত করে চার্জশীট দিয়েছিলেন, এজন্য তার নামও চার্জশীটে রাখা হচ্ছে। তবে তদন্তে সগিরা মোর্শেদ হত্যাকা-ের সঙ্গে মিন্টুর কোন সংশ্লিষ্টতার তথ্য পাওয়া যায়নি।

প্রসঙ্গত, ত্রিশ বছর পর সগিরা মোর্শেদ হত্যার রহস্য উন্মোচন করা তদন্তকারী সংস্থা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই) প্রধান ডিআইজি বনজ কুমার মজুমদার জনকণ্ঠকে জানান, ১৯৮৯ সালের ২৫ জুলাই বিকেল পাঁচটার দিকে মোসাম্মৎ সগিরা মোর্শেদ সালাম (৩৪) তার ভিকারুননিসা স্কুলের দ্বিতীয় শ্রেণী পড়ুয়া মেয়ে সারাহাত সালমাকে (৮) আনতে যান। স্কুলের সামনে পৌঁছামাত্রই অজ্ঞাতনামা দুষ্কৃতিকারীরা তার হাতে থাকা স্বর্ণের বালা টেনে খুলে নেয়ার চেষ্টা করে। বালা নিতে না পেরে সগিরার কাছে থাকা হাতব্যাগ নেয়ার চেষ্টা করে। এতে বাধা দিলে ধস্তাধস্তি হয়। ধস্তাধস্তির এক পর্যায়ে তাকে গুলি করে। চিকিৎসাধীন অবস্থায় ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে সগিরার মৃত্যু হয়। সগিরার পোস্টমর্টেম হয়। এ ঘটনায় সগিরার স্বামী আব্দুস ছালাম চৌধুরী বাদী হয়ে রমনা থানায় একটি খুনের মামলা দায়ের করেন। মামলার আলামত হিসেবে সগিরার হাতে থাকা স্বর্ণের বালা ও হাতব্যাগ জব্দ করা হয়। তা পুলিশের করা জব্দ তালিকায় দেখানো হয়।

১৯৯০ সালে ডিবির পরিদর্শক আব্দুল জলিল শেখ ছিনতাইকারী মিন্টুর বিরদ্ধে আদালতে চার্জশীট দাখিল করেন। আদালতে মামলার চার্জশীটের সঙ্গে আলামত হিসেবে স্বর্ণের বালা, হাতব্যাগ, গুলির খোসা ও পোস্টমর্টেম রিপোর্ট দেয়া হয়।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

জাতীয় খবর