channel 24

সর্বশেষ

  • ডোপিংয়ে পৃষ্ঠপোষকতা: ৪ বছর আন্তর্জাতিক ক্রীড়ায় নিষিদ্ধ রাশিয়া...

  • অংশ নিতে পারবে না টোকিও অলিম্পিক ও কাতার বিশ্বকাপে

  • এসএ গেমস ক্রিকেটে শ্রীলঙ্কাকে ৭ উইকেটে হারিয়ে স্বর্ণ বাংলাদেশের

  • মানহীন সান্ধ্যকালীন কোর্সের কারণে বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে...

  • শিক্ষার পরিবেশ নষ্ট হচ্ছে: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাবর্তনে রাষ্ট্রপতি

  • অর্থনৈতিক অঞ্চলে নারী উদ্যোক্তারা বিশেষ সুবিধা পাবেন: প্রধানমন্ত্রী

  • নেতৃত্বের দুর্বলতায় বিএনপি অস্তিত্ব সংকটে: ওবায়দুল কাদের

  • রাজনীতিতে আওয়ামী লীগের জায়গা নেই: মির্জা ফখরুল

  • ঝিনাইদহের মহেশপুর সীমান্ত দিয়ে অবৈধভাবে প্রবেশের সময়...

  • এক ভারতীয় নাগরিক ও ১২ বাংলাদেশি আটক

  • এসএ গেমস: ক্রিকেট: ফাইনালে শ্রীলঙ্কার দেয়া ১২৩ রানের টার্গেটে...

  • ব্যাট করছে বাংলাদেশ; স্কোর: শ্রীলঙ্কা ১২২ (হাসান মাহমুদ ৩/২০)

  • এসএ গেমস আর্চারিতে দশ স্বর্ণের সবকটি জিতলো বাংলাদেশ

  • একুশে পদকপ্রাপ্ত পদার্থবিজ্ঞানী অধ্যাপক অজয় রায় মারা গেছেন...

  • সর্বস্তরের শ্রদ্ধা জানাতে কাল সকালে নেয়া হবে শহীদ মিনারে...

  • মরদেহ দান করা হয়েছে বারডেম হাসপাতালকে

পুলিশ কেস রিপোর্ট থেকে ডেথ সার্টিফিকেট, সবই দিতেন তিনি!

পুলিশ কেস রিপোর্ট থেকে ডেথ সার্টিফিকেট, সবই দিতেন তিনি!

পুলিশ কেস রিপোর্ট, জন্ম সনদ, ডেথ সার্টিফিকেট, মেডিকেল ছুটিসহ বিভিন্ন কাজের জাল ছাড়পত্র দেয়া চক্রের এক সদস্যকে আটক করেছে র‍্যাব।

সোমবার সকালে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে অভিযান চালিয়ে আরিফ নামের এ চতুর্থ শ্রেণির এক কর্মচারীকে আটক করা হয়। এসময় তাকে সাথে নিয়ে হাসপাতালে অভিযান চালায় র‍্যাব।

উদ্ধার করা হয় জাল সিল, চিকিৎসকের ভুয়া স্বাক্ষরসহ বেশ কিছু আলামত।

পরে র‍্যাব কর্মকর্তা মেজর জাহাঙ্গীর জানান, দীর্ঘ দিন ধরে সাধারণ মানুষের সাথে প্রতারণা করতো এ চক্র। দালাল চক্রের মাধ্যমে মূলত জালিয়াতি চক্রটির কাছে বিভিন্ন জাল সনদ ও ইনজুরি সার্টিফিকেটের চাহিদা যায়। তারা মোটা অঙ্কের টাকা নেয়ার পর অল্প সময়ের মধ্যেই জাল সনদ সরবরাহ করে। পুলিশের যেকোনো মামলায় প্রতিবেদনের জন্য অনেক ক্ষেত্রে ইনজুরি সনদ দরকার হয়, যা নরমালি একটা অফিসিয়াল সিস্টেমের মধ্যে হাসপাতাল থেকে পেতে হয় এবং তা সময়সাপেক্ষ। এ সুযোগটি নিয়ে দালাল চক্রটি অল্প সময়ের ব্যবধানে জালিয়াতি চক্রটির কাছ থেকে মেডিকেল লিভের জন্য মেডিকেল সনদ, ইনজুরি সনদ সরবরাহ করত। এ ক্ষেত্রে যথাযথ কর্তৃপক্ষের স্বাক্ষরও তারা জাল করতো।

তিনি আরও বলেন, মেডিকেল কলেজের মাধ্যমে যেকোনো প্রয়োজনে মেডিকেল সনদ নিতে গেলে সত্যতা থাকতে হয়, সময়ও লাগে। কিন্তু এ চক্রটি কেউ মারধরের শিকার হয়নি, ইনজুরি হয়নি কিন্তু তার ইনজুরি সনদ দরকার, তাদের জাল ইনজুরি সনদ সরবরাহ করে আসছে। যার ওপর ভিত্তি করে অনেকে ভুতুড়ে মামলাও দায়ের করছেন। দীর্ঘদিন ধরে চক্রটি এ জালিয়াতি করে আসছে।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

জাতীয় খবর