channel 24

সর্বশেষ

  • নির্বাচনের কারণে একুশে বইমেলা শুরু ২ ফেব্রুয়ারি: বাংলা একাডেমি

  • ‌আখেরি মোনাজাতে শেষ হলো বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব

  • ঢাকা সিটি নির্বাচন: ইসির অযোগ্যতায় তারিখ বিভ্রাট: ফখরুল...

  • ভোটের তারিখ যেদিনই হোক, আমরা প্রস্তুত: তাবিথ...

  • নির্বাচন পেছানোর মাধ্যমে জনদাবির বিজয় হয়েছে: ইশরাক...

  • নির্বাচিত হলে ঢাকাকে আধুনিক নগরী গড়ে তোলা হবে: আতিক

  • নাইমুল আবরারের মৃত্যু: হাইকোর্টে প্রথম আলো সম্পাদক...

  • মতিউর রহমানসহ ৬ জনের আগাম জামিন আবেদন...

  • আদালতের বিষয়, গণমাধ্যমের স্বাধীনতার সাথে সম্পৃক্ত নয়: তথ্যমন্ত্রী

  • তথ্যপাচার ও ঘুষ লেনদেন: পুলিশের ডিআইজি মিজান ও...

  • দুদক পরিচালক এনামুল বাছিরের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট

  • রিফাত হত্যা: আসামি রাকিবুলকে জামিন দিয়েছেন হাইকোর্ট

  • মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার পাল্লাতল চা বাগানে...

  • একই পরিবারের তিন নারীসহ ৫ জনকে হত্যা...

  • পারিবারিক কলহের জেরে এ ঘটনা, ধারণা পুলিশের

মিয়ানমারের মিথ্যা তথ্য প্রচারের প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ

মিয়ানমারের মিথ্যা তথ্য প্রচারের প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ

রোহিঙ্গা ইস্যুতে মিথ্যা তথ্য প্রচারের প্রতিবাদ জানিয়েছে বাংলাদেশ। রোববার (২৪ নভেম্বর) পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ প্রতিবাদ জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, মিয়ানমারের স্টেট কাউন্সিলর অফিসের মুখপাত্র গত ১৫ নভেম্বর সংবাদ সম্মেলনে মিথ্যা দাবি করে যে, 'বাংলাদেশের অসহযোগিতার কারণে প্রত্যাবাসন শুরু করা যাচ্ছে না।' এর প্রতিবাদ করে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানায়, এসব অযৌক্তিক ও মিথ্যা দাবি করে মূলত রাখাইনে যে সহায়ক পরিবেশ তৈরির দায়িত্ব রয়েছে মিয়ানমারের, সেটি তারা এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছে। এটি প্রতিষ্ঠিত সত্য, রোহিঙ্গা সমস্যা সৃষ্টি হয়েছে মিয়ানমারে তাদের ওপর ধারাবাহিকভাবে নিষ্ঠুর নির্যাতনের কারণে। মিয়ানমারের বর্তমান সরকারও আগের সরকারের নীতি অব্যাহত রেখেছে। এই সমস্যা মিয়ানমার তৈরি করেছে এবং এর সমাধানও মিয়ানমারকেই করতে হবে। রোহিঙ্গা সমস্যা দীর্ঘায়িত হওয়ার জন্য মিযানমারই দায়ী।

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, রোহিঙ্গা সমস্যা জিইয়ে রাখার কোনও ইচ্ছা বাংলাদেশের নেই। প্রত্যাবাসন সংক্রান্ত চুক্তি বাস্তবায়নে বাংলাদেশের আগ্রহ তার কাজের মাধ্যমে প্রশ্নাতীতভাবে প্রমাণিত হয়েছে। গত আগস্টে মিয়ানমার কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে রোহিঙ্গারা পরিষ্কার জানিয়ে দেয়, রাখাইনে নিরাপদ পরিবেশ তৈরি হলে তারা ফেরত যাবে। মিয়ানমার দাবি করছে, কতিপয় রোহিঙ্গা ফেরত গেছে। কিন্তু এটি প্রমাণ করে না যে, এর ফলে সেখানকার পরিস্থিতির কোনও উন্নতি হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, মিয়ানমার দাবি করছে, সেখানকার পরিস্থিতি নাকি উন্নতি হয়েছে। এটি যদি সত্য হয়ে থাকে-তবে জাতিসংঘ, মিডিয়া এবং রোহিঙ্গা নেতাদের রাখাইন পরিদর্শনের সুযোগ করে দেওয়া হোক। যাতে করে তারা ঠিক সিদ্ধান্ত নিতে পারে।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

জাতীয় খবর