channel 24

সর্বশেষ

  • ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় দুটি ট্রেনের সংঘর্ষে নিহত ১৬, আহত ৬২...

  • নিহতরা হলেন- মুজিবুর, মরিয়ম, ফারজানা, কাকলী ও কুলসুম (চাঁদপুর)...

  • ইয়াসিন, সুজন, আল আমিন, রিপন, ইউসুফ ও পেয়ারা বেগম (হবিগঞ্জ)...

  • জাহেদা (মৌলভীবাজার), শিশু আবিদা (হবিগঞ্জ) ও সোহামনি (ব্রাহ্মণবাড়িয়া)...

  • এখন পর্যন্ত ৭ জনের মরদেহ পরিবারের কাছে হস্তান্তর...

  • আহতদের চিকিৎসা খরচ বহন করবে সরকার...

  • তূর্ণা নিশীথার চালকের ভুলেই এই দুর্ঘটনা: রেলমন্ত্রী...

  • তদন্তে ৫টি কমিটি; তূর্ণা নিশীথার চালক ও সহকারী সাময়িক বরখাস্ত...

  • রেল চালকদের আরও উন্নত প্রশিক্ষণের তাগিদ প্রধানমন্ত্রীর

  • সরকারের অবহেলায় বারবার রেল ও সড়কে দুর্ঘটনা: ফখরুল

  • স্বৈরাচারবিরোধী আন্দোলনে নিহত নূর হোসেনকে নেশাখোর বলায়...

  • সমালোচনার মুখে পরিবারের কাছে জাপা মহাসচিব রাঙ্গার দুঃখ প্রকাশ...

  • ক্ষমা চেয়ে লাভ নেই, জনগণ ক্ষমা করবে না: ওবায়দুল কাদের

  • আয়কর মেলা শুরু ১৪ নভেম্বর; ৩ হাজার কোটি টাকা...

  • রাজস্ব আদায়ের লক্ষ্য: এনবিআর চেয়ারম্যান

  • হাবিবুল্লাহ রাজনের পরিবর্তে জেলে থাকা রাজন ভূঁইয়ার মুক্তি

  • আগামী অর্থবছরে আরও ৭৬০টি সাইক্লোন সেন্টার হবে: সংসদে দুর্যোগ প্রতিমন্ত্রী

বুয়েটে সিট ফাঁকা করে দিলো নিহত আবরারের পরিবার

বুয়েটে সিট ফাঁকা করে দিলো নিহত আবরারের পরিবার

উচ্চশিক্ষার জন্য ঢাকায় এসে লাশ হয়ে ফিরতে হয়েছে, কুষ্টিয়ার ছেলে আবরার ফাহাদকে। এবার বুয়েটে হলের সিটও ফাঁকা করে দিয়েছে তার পরিবার। গুটিয়ে নিয়েছে ব্যবহার্য জিনিসপত্র। দ্রুত বিচারকাজ শুরুর তাগিদ দিয়েছেন আবরারের বাবা। এভাবে যাতে আর কাউকে স্বজন হারাতে না হয়, সেই আকুতি আবরার ফাহাদের ভাইয়ের।

আরও আগেই স্মৃতির আঁখরের বাহ্যিকতা মুছে ফেলেছে আবরার ফাহাদ। বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের এই শিক্ষার্থীর জীবন প্রদীপ নিভে গেছে ২৪ দিন হয়ে গেছে। এখনো শুনশান পড়ে আছে শেরেবাংলা হলে ১০১১ নম্বর কক্ষটি। নিজের রুমের ঠিক ওপরে থাকা দোতলার ২০১১ নম্বর কক্ষে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীদের হাতে নির্মম নির্যাতনের শিকার হয়েই ৬ অক্টোবর মারা যান আববার।

কুষ্টিয়ার বাড়িতে আবরার ফাহাদের নিথর দেহ ফিরেছে আগেই। এবারে ফিরছে তার ব্যবহৃত বিছানাপত্র ও পড়ার উপকরণ। যা নিতে এসেছিলেন তার বাবা, ভাই ও স্বজনরা। এসময় শোক ছাপিয়ে বিচারের দাবিই হয়ে ওঠে মুখ্য।

আবরারের বাবা বলেন, মামলা যেভাবে আগাচ্ছে তাতে আমরা খুশি কিন্তু এভাবেই দ্রুত গতিতে যেন মামলা আগায় এবং এর বিচার প্রক্রিয়াও যেন দ্রুত হয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে সেই দাবিই করছি।

নিহত আবরারের কাছে রুমমেটদের কোন দাবি-দাওয়া থাকলে তা জানাতে বলেন তার ভাই। আবেগঘন পরিবেশে বড় ভাইয়ের হয়ে বিদায় নেন। বলেন, এমন দুঃখ যেন আর কারো জীবনে না আসে।

এই হলের বেশিরভাগই ছিলেন বন্ধু-সহপাঠী, কেউ রুমমেট, এক অর্থে ছিলেন আবরারের স্বজন। তাদের কণ্ঠেও ঝরেছে নিরাপদ হলের দাবি।

সহপাঠিরা বলছেন, এখানে সবাই সমান, ক্ষমতার চর্চা বন্ধ করতে হবে। আমরা সবার মিলে চেষ্টা করবো নতুন যারা আসবে তারা যেন একটা সুস্থ, স্বাভাবিক পরিবেশ পায়।

সন্তানকে বড়ো প্রকৌশলি বানাতে পড়োতে পাঠিয়েছিলেন আবরারের বাবা-মা। কিন্তু পড়াশোনা শেষ হবার আগেই ফিরে গেল সেই সন্তানের নিথর দেহ, ফিরিয়ে নিতে হল তার ব্যবহৃত আসবাবপত্রগুলোও। কিন্তু এমনটি যেন আর কোন পিতা-মাতার ভাগ্যে না ঘটে তাই চান আবরারের পরিবার।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

জাতীয় খবর