channel 24

সর্বশেষ

  • খুলনাসহ বিভিন্ন জেলায় এখনও বাস চলাচল বন্ধ...

  • সড়ক আইনের কিছু বিষয় নিয়ে চিন্তা করছেন প্রধানমন্ত্রী: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী...

  • যান চলাচলে বিঘ্ন ঘটার কোনো কারণ নেই: ওবায়দুল কাদের

  • বিচারপতি আবু জাফর সিদ্দিকীর ছেলে জুম্মান সিদ্দিকীকে...

  • বিশেষ বিবেচনায় হাইকোর্টে সনদ দেয়ার ঘটনা চ্যালেঞ্জ করে রিট

  • অর্থপাচার: ইটিভির সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুস সালামের মামলা...

  • বাতিল করেছেন হাইকোর্ট; আপিল করবে দুদক: আইনজীবী

  • পিইসি পরীক্ষায় ১৫ শিক্ষার্থী বহিষ্কার কেন অবৈধ নয়; হাইকোর্টের আদেশ দুপুরে

  • সশস্ত্র বাহিনী দিবস: শিখা অনির্বাণে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা...

  • বীরশ্রেষ্ঠসহ খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধাদের পরিবারকে প্রধানমন্ত্রীর সংবর্ধনা

  • বিচারপতি আবু জাফর সিদ্দিকীর ছেলে জুম্মান সিদ্দিকীকে...

  • বিশেষ বিবেচনায় হাইকোর্টে সনদ দেয়ার ঘটনা চ্যালেঞ্জ করে রিট

  • স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর আশ্বাসে পরিবহন ধর্মঘট প্রত্যাহার...

  • খুলনাসহ দেশের বিভিন্ন জেলায় এখনও বাস চলাচল বন্ধ

আবরারকে বাঁশ বা স্ট্যাম্প জাতীয় জিনিস দিয়ে আঘাত করা হয়েছে

আবরারকে বাঁশ বা স্ট্যাম্প জাতীয় জিনিস দিয়ে আঘাত করা হয়েছে

নিহত আবরারে ফাহাদের হাত, পা ও পিঠে আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে। সোমবার (৭ অক্টোবর) দুপুরে ময়না তদন্ত প্রতিবেদন শেষে ঢাকা মেডিকেলের ফরেনসিক বিভাগের প্রধান ডা. সোহেল মাহমুদ এ কথা বলেন।

ফরেনসিক বিভাগের প্রধান ডা. সোহেল মাহমুদ তিনি বলেন, আবরারকে বাঁশ বা স্ট্যাম্প জাতীয় জিনিস দিয়ে আঘাত করা হয়েছে। প্রচুর রক্ত ক্ষরণ হওয়ায় তার মৃত্যু হয়েছে।

এদিকে ডিএমপির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার কৃষ্ণপদ রায় বলেন, আবরারকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে বলে আমরা প্রাথমিকভাবে প্রমাণ পেয়েছি। এটি যে হত্যাকাণ্ড সে বিষয়ে কোনও সন্দেহ নেই। সিসিটিভি ফুটেজ আমাদের কাছে রয়েছে। ইতোমধ্যে ৬ জনকে আটক করা হয়েছে। তারা হলের শিক্ষার্থী। তাদেরকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।

কুষ্টিয়ার ছেলে আবরার ফাহাদ, বাবা মায়ের বড় সন্তান। পড়তেন বুয়েটের তড়িৎ প্রকৌশল বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষে। থাকতেন শেরে বাংলা হলের ১০১১ নম্বর রুমে। সবশেষ শনিবার (৫ অক্টোবর) বিকেল ৫টা ৩২ মিনিটে নিজের ফেসবুক পেজে বাংলাদেশ ভারত সম্পর্ক নিয়ে স্ট্যটাস দেন আরবার। পরদিন রোববার (৬ অক্টোবর) রাত আটটার দিকে ফাহাদকে ডেকে নেয়া হয় ২০১১ নম্বর কক্ষে। ভোররাতে হলের সিঁড়িতে পাওয়া যায় তার মরদেহ। পুলিশ জানায়, সিসি ক্যামেরার ছবি দেখে অপরাধীদের শনাক্ত করা হয়েছে। ফেসবুকে ভারতবিরোধী স্ট্যাটাস দেয়ার কারণে এই হত্যাকাণ্ড বলে অভিযোগ করেছেন তার সহপাঠীরা। মৃত্যুর খবর শোনার পরে কান্নায় ভেঙে পড়েন আবরারের স্বজনরা। তারা বলছেন, আবরার কখনো কোনো রাজনৈতিক দলের সাথে সম্পৃক্ত ছিলেন না।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

জাতীয় খবর