channel 24

সর্বশেষ

  • বাংলাদেশ ম্যাচের আগে শক্তি বাড়াল ওয়েস্ট ইন্ডিজ

  • আরিয়ানের তদন্তকারী সমীরের বিরুদ্ধে ঘুষের অভিযোগ

  • আবাসিক হোটেল থেকে ঢাবি শিক্ষার্থীর ঝুলন্ত ম র দে হ উদ্ধার

  • গুনে গুনে পাঁচ গোল হজম করল বায়ার্ন মিউনিখ

  • আরিয়ান-কাণ্ডে নতুন মোড়: অন্যতম সাক্ষী কিরণ গোসাভি আটক

  • প্রেমে ব্যর্থ হয়েই সুমাইয়াকে খু ন করে মনির

  • স্ত্রীর ইচ্ছাপূরণে ১৯ লাখ টাকার গহনা দান করে দিলেন স্বামী

  • পাটুরিয়ায় কাত হয়ে যাওয়া ফেরির উদ্ধারকাজ ফের শুরু

  • দৌলতখানে নৌকা সমর্থিত প্রার্থীর অফিসে ভাঙচুর

  • একই রাতে হোঁচট খেল বার্সা-রিয়াল

  • কলকাতায় ‘বঙ্গবন্ধু সংবাদ কেন্দ্র’ উদ্বোধন করবেন তথ্যমন্ত্রী

  • সাম্প্রদায়িক হামলায় অস্ট্রেলিয়ায় প্রবাসীদের মানববন্ধন

  • রামেকে ক রো না য় ৫ জনের প্রাণহানি

  • বাংলাদেশকে আরও ৩৫ লাখ ফাইজারের টিকা দিচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র

  • বিশিষ্ট সমাজসেবী আনোয়ারা বেগমের চতুর্থ মৃত্যুবার্ষিকী আজ

কলা খেলে ওজন বাড়ে, নাকি ঠান্ডা লাগে?

কলা খেলে ওজন বাড়ে, নাকি ঠান্ডা লাগে?

সকালের নাস্তায় অথবা হালকা ক্ষুধার বড় সমাধান কলা, সেই সাথে স্বাস্থ্যের জন্য অনেক উপকারী। তবে কলা নিয়ে বিতর্কেরও শেষ নেই। অনেকেরই ধারণা, কলা খেলে ওজন বেড়ে যায়, আবার এই ফল খেলে ঠান্ডা লাগে, এটি খেলে ওজন কমে বলেও ধারনা করেন অনেকে।

অন্য যে কোন ফলের চেয়ে কলায় শর্করার পরিমাণ বেশি। যেমন এককাপ পরিমাণে কাটা আপেলে ৬০ ক্যালোরি থাকে। অন্যদিকে ওই পরিমাণ কলায় থাকে প্রায় ১৩০ ক্যালোরি। কলায় ক্যালোরি যেমন বেশি ঠিক তেমনই এতে থাকে বিভিন্ন পুষ্টিগুণও বেশি। যা শরীরের জন্য অনেক উপকারী।

এছাড়াও কলায় পটাসিয়াম, মিনারেল, ভিটামিন সি’তে পরিপূর্ণ। ভিটামিন, মিনারেলের পাশাপাশি অ্যান্টি-অক্সিডেন্টও পাওয়া যায় কলায়।

তবে কলায় পটসিয়ামের মাত্রা বেশি থাকায় যারা রেনাল ফেলিওরে ভুগছেন কিংবা পটাসিয়ামে অসুবিধা আছে তাদের কলা না খাওয়াই ভাল। এছাড়া কলায় রয়েছে পর্যাপ্ত পরিমাণ ফাইবার। যা হজমে সহায়তা করে আবার পেটও ভরে রাখে। এর ফলে অন্য খাবার খাওয়ার আগ্রহ কমে যায়। যার কারণে ওজন বাড়ার আশঙ্কা কম।

পুষ্টিবিদরা জানাচ্ছেন, যারা কলা খেতে পছন্দ করেন তারা বিভিন্ন খাবারের পরিবর্তে খাদ্য তালিকায় কলা রাখতে পারেন। এটি ওজন কমাতে সাহায্য করবে।

আসুন জেনে নেই প্রতিদিন একটি করে কলা খেলে কি কি উপকার হতে পারে

► পটাশিয়াম এবং খনিজের ভালো উৎস হওয়ায় কলা উচ্চ রক্তচাপ কমাতে সাহায্য করে।

► যাদের ঘুমের সমস্যা রয়েছে তারা বিছানায় যাওয়ার আগে কলা খেতে পারেন। এতে থাকা পটাশিয়াম মন শান্ত রাখতে সাহায্য করে। সেই সঙ্গে শরীরের ক্লান্তি দূর করে। ফলে সহজেই ঘুম আসে।

► পর্যাপ্ত পরিমাণে ফাইবার থাকায় কলা কোষ্ঠকাঠিন্য কমাতে সাহায্য করে।

► কলায় যদিও শর্করার পরিমাণ বেশি থাকে তারপরও ডায়াবেটিস রোগীরা কম করে কলা খেলে কোনো সমস্যা হয় না। কারণ এতে থাকা ফাইবার শর্করার পরিমাণ নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে।

► যারা জিমে যাওয়ার আগে ব্রেকফাস্ট করেন তারা যদি এই তালিকায় কলা রাখেন তাহলে উপকার পাবেন। কারণ কলা শক্তির উৎস। সহজে আপনি ক্লান্ত হয়ে পড়বেন না।

তবে ভারি খাবারের সঙ্গে কলা খাবেন না। খাবার খাওয়ার এক থেকে দেড় ঘণ্টা পরে কলা খাবেন। আর কলা খেলে ঠান্ডা লাগে, এ ধারণা একেবারেই সঠিক নয়। তবে যাদের অ্যালার্জির সমস্যা রয়েছে, যেমন : অ্যাজমা, নাকে পানি ঝরা, হাঁচি এসব সমস্যা রয়েছে, তাদের ক্ষেত্রে কলা খেলে সমস্যা হতে পারে।

অনেকে সরাসরি কলা খেতে পছন্দ করেন না। তারা কলার স্মুদি বানিয়ে খেতে পারেন। আবার সকালের নাস্তায় কলা ও ওটসের স্মুদিও খেলে সারাদিন তরতাজা থাকবেন। পেট ঠান্ডা রাখতে কলা ও সাবু মেখে খেয়ে নিন। 

 

এফএইচ

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

লাইফস্টাইল খবর