channel 24

সর্বশেষ

  • অলিম্পিকের গেমস ভিলেজে ভূমিকম্পের হানা

  • শ্বাসকষ্ট-সহ নানা সমস্যায় হাসপাতালে ভর্তি বুদ্ধদেব গুহ

  • করোনা টিকার জন্য ভোটার হওয়ার হিড়িক

  • সাগরে নিম্নচাপ, ভারি বৃষ্টি ও বন্যার আশঙ্কা

  • ময়মনসিংহ মেডিকেলে একদিনে আরও ২২ জনের মৃত্যু

  • ব্যাংক বন্ধ আজ

  • আফগানিস্তানের প্রতিরক্ষা মন্ত্রীর বাসায় হামলা, নিহত ৪

  • লকডাউনে কর্মস্থ‌লে আসতে বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্দেশ, ব্যবস্থা নিল পুলিশ

  • অবকাঠামো উন্নয়নের অভাবে রাজস্ব হারাচ্ছে ভোমরা স্থল বন্দর

  • অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে প্রথম জয়ে প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দন

  • তবুও পা মাটিতেই রাখছেন মাহামুদউল্লাহ

  • আফগানিস্তানে ৭৭ তালেবান যোদ্ধাকে হত্যা

  • পথেঘাটে থাকেন বৃদ্ধ বাবা-মা, তিন ছেলে আটক

  • করোনাকালে রেমিট্যান্স ছাড়া অর্থনীতির সব ক্ষেত্রেই নেতিবাচক ধারা: সিপিডি

  • টি টোয়েন্টিতে অজিদের বিরুদ্ধে টাইগারদের প্রথম জয়

ফলের রাজার উপকারিতা

ফলের রাজার উপকারিতা

জাতীয় ফলের স্বাদ, গন্ধ বা জনপ্রিয়তা নিয়ে নতুন করে বলার আর কিছু নেই। দেশের মানুষ সারা বছর অধীর আগ্রহে অপেক্ষায় থাকে গ্রীষ্মকালের জন্য। সুধু স্বাদ বা গন্ধই না, ফলের রাজার রয়েছে অনেক উপকারিতা। এই গ্রীষ্মের আমও ইতিমধ্যে বাজারে চলে এসেছে। তবে আম খাওয়ার আগে আসুন জেনে নেয়া যাক আমের কিছু উপকারিতা।

ফলের রাজার পুষ্টিগুণ

বিভিন্ন ভিটামিন ও খনিজ লবণে ভরপুর আমের পুষ্টউপাদান অতুলনীয়। এতে আছে ভিটামিন সি, এ এবং বি-৬। পটাশিয়াম, কপার ও অ্যামাইনো এসিডেরও প্রাচুর্য্য রয়েছে আমে। আমে আরও রয়েছে লিশিয়েন জিলাইক এসিড, বিটা ক্যারোটিন, আলফা ক্যারোটিন, ক্যাফিক এসিড ইত্যাদি। আর এইসব উপাদান দেহের জন্য প্রচন্ড উপকারী।

নানা জাতের আম

পুরো পৃথিবীতে প্রায় ৩৫ প্রকারের আম পাওয়া যায়। প্রতিটাই স্বাদে, গন্ধে অতুলনীয়। এর মাঝে বাংলাদেশে উল্লেখযোগ্য প্রজাতি গুলো হচ্ছে,  হিমসাগর, আম্রপালি, মল্লিকা,  সূর্যপূরী, পাহুতান, ত্রিফলা, অরুনা, সুবর্ণরেখা, গোপালভোগ, মিশ্রিদানা, নিলাম্বরী, খিরসা, ফজলি, ল্যাংড়া, মিশ্রিদানা, নিলাম্বরী, গোপাল খাস, কেন্ট, কালীভোগ, কাচামিঠা, আলফানসো, বারোমাসি, সূর্যপূরী, পাহুতান, ত্রিফলা, অরুনা ইত্যাদি।

এবার জেনে নেয়া যাক আমের যত স্বাস্থ্যগুণ-

হৃদরোগের মহঔষধ

ইদানীং আশঙ্কাজনক হারে বেড়ে যাচ্ছে হৃদরোগের ঝুঁকি ও এতে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা। তবে পরিমাণ মত আম আপনাকে মুক্তি দিতে পারে এই ঝুঁকি থেকে। আমের বিটা ক্যারোটিন ও ভিটামিন এ আপনাকে রাখবে হৃদরোগমুক্ত।

মিনারেলের অভাব পূরণ

শরীরে মিনারেলের ঘাটতি হলে দেখা দিতে পারে নানান রোগ। তবে আমে আছে প্রচুর পরিমাণে পটাশিয়া ও কপার। যে কোনো ভারি কাজের পর আম খেলে দূর হবে এইসকল খনিজের ঘাটতি। 

আম বাড়াবে স্মরণশক্তি

আমে রয়েছে গ্লুটামিক অ্যাসিড যা মস্তিষ্কের কোষ উজ্জীবিত করে থাকে। যা মনযোগ বাড়াতে সহায়তা করে। তাই শিশুদের খেতে দিতে হবে আম। মস্তিষ্কের চাপ বা মানসিক চাপ কমাতেও আম খাওয়া যেতে পারে।

আরো পড়ুন: জেনে নিন মধুর গুণাগুণ

কমায় সর্দি-ঠান্ডা

আমে রয়েছে প্রচুর ভিটামিন এ এবং ডি। এবং এই দুটি ভিটামিনই ঠান্ডার সমস্যার বিরুদ্ধে বিশাল কার্যকর। তাই ঠান্ডা বা সর্দি দেখা দিলে খেতে পারেন আম। এটি আপনার সুস্থ হয়ে ওঠাকে ত্বরান্বিত করবে।

আম খাওয়ার পূর্বে অবশ্যই যে বিষয় গুলো খেয়াল রাখবেন

উপকারী ফল হলেও খুব বেশি পরিমাণে একসঙ্গে খাওয়া ঠিক না। পাকা আমে চিনির পরিমাণ থাকে বেশি যা ডায়বিটিস রোগির জন্য হতে পারে সমস্যার কারণ। আমে ফাইবারের উপস্থিতিও থাকে। তাই বেশি আম খেলে বদহজমও হতে পারে।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

লাইফস্টাইল খবর