channel 24

সর্বশেষ

  • মধ্যরাত থেকে যেসব এলাকায় মোটরসাইকেল চলাচল বন্ধ

  • যশোরে স্বতন্ত্র প্রার্থীর কর্মীদের হামলায় নৌকার ২০ কর্মী আহত

  • পান্থপথে ময়লার গাড়ির ধাক্কায় মৃত্যু : ডিএনসিসির সেই চালক গ্রেপ্তার

  • রোহিঙ্গা ক্যাম্পের ক্রমবর্ধমান সহিংসতা সীমান্তের বাইরেও ছড়িয়ে পড়তে পারে: প্রধানমন্ত্রী

  • আমতলীতে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় চেয়ারম্যান রাফেজা বেগম

  • ২২ কোটি টাকা লোকসানের বোঝা মাথায় নিয়ে আখ মাড়াই শুরু

  • শেরপুরে আ.লীগ নেতাকে বহিষ্কারের দাবিতে মহাসড়ক অবরোধ

  • করোনার নতুন ধরন ‘ভয়ংকর’, দেশে দেশে সতর্কতা

  • আকর্ষণীয় বেতনে চাকরি দিচ্ছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়

  • নতুন সময়ে মাঠে গড়াবে দ্বিতীয় দিনের খেলা

  • সন্ত্রাসীদের কোনো ধর্ম নেই: ভারতের হাইকমিশনার

  • চরের অবশিষ্ট মানুষকে দ্রুত বিদ্যুৎ দিতে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ

  • যাদের কারণে হুমকির মুখে শোয়েবের ১৮ বছরের রাজত্ব

  • পাকিস্তান ম্যাচ শুরুর আগে ভয়ে কাঁপছিলেন কোহলিরা: ইনজামাম

  • মারা গেলেন পৃথিবীর প্রবীণতম নারী

কুন্দুজে মসজিদে হামলার দায় স্বীকার আইএসের

কুন্দুজে মসজিদে হামলার দায় স্বীকার আইএসের

আফগানিস্তানের কুন্দুজ শহরে একটি শিয়া মসজিদে হামলার দায় স্বীকার করেছে আইএস খোরাসান।

শুক্রবার (৮ অক্টোবর) রাতে টেলিগ্রামে এক বিবৃতির মাধ্যমে এর দায় স্বীকার করে আইএসকে। হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে অন্তত ৫০, আহত শতাধিক। এদিন জুমার নামাজের সময় সাইদ আবাদ মসজিদে এ হামলা হয়। এসময় মসজিদে ৩ শতাধিক মুসল্লি নামাজ পড়ছিলেন।

আরও পড়ুন: ফের ফেসবুক, মেসেঞ্জার ও ইনস্ট্রাগ্রামের সার্ভার ডাউন

শুক্রবার টেলিগ্রাম চ্যানেলে প্রকাশিত এক বিবৃতিতে জিহাদি গোষ্ঠীটি বলেছে, মসজিদের ভেতরে জড়ো হওয়া শিয়া মুসলমানদের ভিড়ের মধ্যে একজন আইএস আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণ করে। খবর এএফপির।

তবে দ্বিতীয় বিবৃতিতে আইএসকে বলছে, ‌'হামলার অপরাধী একজন উইঘুর মুসলিম।' যাদেরকে তালেবান যোদ্ধারা আফগানিস্তান থেকে বিতারিত করে দিয়েছিল।

জাতিসংঘের হিসেব মতে, নিহতের সংখ্যা ৫০ হলেও কুন্দুজের পুলিশ প্রধান বলছে, এ সংখ্যা ১০০ ছাড়িয়েছে।

কুন্দুজ আফগানিস্তান ও তাজিকিস্তানের মধ্যে একটি গুরুত্বপূর্ণ অর্থনৈতিক ও বাণিজ্যিক স্থান। তালেবান ক্ষমতা দখলের পর এই স্থানটি ভয়াবহ সংঘাতপূর্ণ এলাকায় পরিণত হয়েছে। এখানকার শিয়া মুসলমানরা প্রায় সুন্নি চরমপন্থিদের হিংসাত্মক হামলা শিকার হন। হাসপাতাল, মসজিদ, সভা সমাবেশ ও যানবাহনসহ বিভিন্ন স্থানে হামলা চালিয়ে তাদের হত্যা করা হয়।

এর কয়েকদিন আগে কাবুলের একটি মসজিদে হামলায় বেশ কয়েকজন নিহত হওয়ার পর আবার এই সহিংসতার ঘটনা ঘটল।

এফএইচ/

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

আন্তর্জাতিক খবর