channel 24

সর্বশেষ

  • তুরস্কে দাবানলে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৮

  • নিজ দেশে ফিরতে অস্বীকৃতি জানালেন বেলারুশ দৌড়বিদ

  • টিভি পর্দায় আজকের খেলা

  • বরিশাল থেকে রাজধানীর উদ্দেশে ছেড়েছে তিনটি লঞ্চ

  • মডেল পিয়াসা গ্রেপ্তার

  • রোহিঙ্গা ক্যাম্পের নিরাপত্তা ব্যবস্থার পুনর্বিন্যাস

  • সিরাজগঞ্জে ব্রিজের অভাবে ২৫ গ্রামের মানুষের দুর্ভোগ

  • বেড়াতে গিয়ে পিকাপের ধাক্কায় বাবার মৃত্যু

  • ভুয়া পরিচয়ে নিয়মিত টকশো করতেন ইশিতা!

  • বিধি-নিষেধে ঢাকায় কমেছে গ্রেপ্তার-জরিমানা

  • রংপুরে বখাটের ছুরিকাঘাতে আহত মাদরাসাছাত্রীর মৃত্যু

  • এবার এমপি শিমুলের বিরুদ্ধে জিডি করলেন সুজিত সরকার

  • এক স্বামীকে নিয়ে দুই বধূর টানাটানি

  • ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে চিরুনি অভিযানের নির্দেশ

  • চতুর্থবারের মতো বিপিএল শুরুর সূচি দিলো বাফুফে

মিয়ানমারে অস্ত্র বিক্রি নিষিদ্ধের আহ্বান জাতিসংঘের

মিয়ানমারে অস্ত্র বিক্রি নিষিদ্ধের আহ্বান জাতিসংঘের

মিয়ানমারে অস্ত্র বিক্রির ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপের আহ্বান জানিয়েছে জাতিসংঘ। গত ফেব্রুয়ারি মাসে মিয়ানমারের নির্বাচিত সরকারকে উৎখাত করা সামরিক সরকারকে নিন্দা জানিয়ে একটি প্রস্তাব গ্রহণ করেছে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদ।

বিবিসির খবরে বলা হয়, আইনগতভাবে জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে পাস হওয়া এই প্রস্তাব মানা বাধ্যতামূলক না হলেও, রাজনৈতিকভাবে এটি গুরুত্বপূর্ণ। পরিষদে পাস হওয়া প্রস্তাবে অং সান সু চি-সহ রাজনৈতিক বন্দিদের মুক্তি এবং শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভকারীদের ওপর সহিংসতা বন্ধেরও আহ্বান জানানো হয়। 

মিয়ানমার বিষয়ক জাতিসংঘের বিশেষ দূত ক্রিস্টিন স্কোরানের বার্গেনার জানিয়েছেন, মিয়ানমারে বর্তমানে বড় ধরনের গৃহযুদ্ধের সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। আবার যে সামরিক শক্তি ক্ষমতা দখল করেছে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার সুযোগও কমে আসছে।

জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে এই প্রস্তাবের পক্ষে ১১৯টি দেশ সমর্থন জানিয়েছে। শুধুমাত্র বেলারুশ বিপক্ষে ভোট দেয়। আর রাশিয়া ও চীনসহ ৩৬টি দেশ ভোট দানে বিরত থেকে।  মিয়ানমারে সবচেয়ে বেশি অস্ত্র বিক্রি করে থাকে রাশিয়া ও চীন। যেসব দেশ ভোটদানে বিরত ছিল তাদের অনেক সদস্যই জানিয়েছেন, এটি মিয়ানমারের অভ্যন্তরীণ সমস্যা। তবে এই প্রস্তাবে মিয়ানমার থেকে ১১ লাখের বেশি রোহিঙ্গা মুসলমান জনগোষ্ঠীকে বিতাড়িত করার বিষয়ে কোন কথা না বলায় সমালোচনো করেছে। 

জাতিসংঘে ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত ওলফ স্কোগ বলেছেন, এই প্রস্তাবের মাধ্যমে মিয়ানমারের সামরিক জান্তা, তাদের ক্ষমতার অপব্যবহার এবং নিজেদের জনগণের ওপর সহিংসতাকে তুলে ধরা হয়েছে। সেই সঙ্গে আড়াল থেকে এসব বিষয় বিশ্বের নজরে আনা হয়েছে।

তবে মিয়ানমারের জাতিসংঘ বিষয়ক দূত কাইউ মোয়ে তুন এই প্রস্তাবকে 'দুর্বল প্রস্তাব' বলে বর্ণনা করেছেন। ওই অভ্যুত্থানের পর থেকেই ৭৫ বছর বয়সী সু চি গৃহবন্দী রয়েছেন এবং তার সম্পর্কে এরপর থেকে খুব কমই জানা গেছে। এর মধ্যে শুধু তাকে আদালতে হাজির হতে দেখা গেছে। গত নভেম্বরের নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ এনে অভ্যুত্থানের মাধ্যমে ক্ষমতার পরিবর্তন ঘটায় সামরিক বাহিনী।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

আন্তর্জাতিক খবর