channel 24

সর্বশেষ

  • তুরস্কে দাবানলে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৮

  • নিজ দেশে ফিরতে অস্বীকৃতি জানালেন বেলারুশ দৌড়বিদ

  • টিভি পর্দায় আজকের খেলা

  • বরিশাল থেকে রাজধানীর উদ্দেশে ছেড়েছে তিনটি লঞ্চ

  • মডেল পিয়াসা গ্রেপ্তার

  • রোহিঙ্গা ক্যাম্পের নিরাপত্তা ব্যবস্থার পুনর্বিন্যাস

  • সিরাজগঞ্জে ব্রিজের অভাবে ২৫ গ্রামের মানুষের দুর্ভোগ

  • বেড়াতে গিয়ে পিকাপের ধাক্কায় বাবার মৃত্যু

  • ভুয়া পরিচয়ে নিয়মিত টকশো করতেন ইশিতা!

  • বিধি-নিষেধে ঢাকায় কমেছে গ্রেপ্তার-জরিমানা

  • রংপুরে বখাটের ছুরিকাঘাতে আহত মাদরাসাছাত্রীর মৃত্যু

  • এবার এমপি শিমুলের বিরুদ্ধে জিডি করলেন সুজিত সরকার

  • এক স্বামীকে নিয়ে দুই বধূর টানাটানি

  • ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে চিরুনি অভিযানের নির্দেশ

  • চতুর্থবারের মতো বিপিএল শুরুর সূচি দিলো বাফুফে

বেনেত সরকারকে ঘিরে ইসরায়েলিদের সংশয়

বেনেত সরকারকে ঘিরে ইসরায়েলিদের সংশয়

নতুন প্রধানমন্ত্রী নাফতালি বেনেতের সরকার কতদিন টিকবে, তা নিয়ে সংশয়ে খোদ ইসরায়েলিরাই। আর কট্টরপন্থী বেনেতকে ' দখলদারদের নেতা' মনে করেন ফিলিস্তিনিরা। শঙ্কা তার আমলে বাড়বে অবৈধ ইহুদি বসতি। বিশ্লেষকরা বলছেন,ইরানের পরমাণু চুক্তি ঘিরে আগামীতে উত্তেজনা বাড়বে তেলআবিব-ওয়াশিংটনের।

নতুন জোট সরকার নিয়ে অনেকটাই বিভক্ত ইসরায়েলিরা। চলছে পাল্টাপাল্টি বিক্ষোভও। ডান, বাম এবং আরব-সব দল মিলে একটি সরকার। যেটা ইসরায়লিরা এর আগে ভাবতেই পারেনি।

নেতানিয়াহু-ই ভালো ছিলেন। ইসরায়েল আজ বিভক্ত। করোনা, অর্থনৈতিক সংকটসহ নানা সমস্যায় আমরা।

নেতানিয়াহুর একসময়ের ঘনিষ্ঠ বেনেতের আমলেও খুব একটা সুখবর নেই ফিলিস্তিন ও ইরানসহ যুদ্ধবিধ্বস্ত মধ্যপ্রাচ্যের দেশগুলোর।

হামাসের মুখপাত্র ফাউজি বারহাম বলেন, ‘জানি, নতুন সরকারও অবৈধ দখলদারিত্ব থামাবে না। তবে তাদের বলছি, পবিত্র আল- আকসার নিরাপত্তায় আমরা সদাজাগ্রত।’

ফিলিস্তিনের কলোনাইজেশন এণ্ড ওয়াল রেসিস্টেন্স কমিশনের চেয়ারম্যান ওয়ালিদ আসাফ বলেন, ‘যুদ্ধবাজ নেতানিয়াহু জেরুজালেম এবং জর্ডান ভ্যালীকে ইসরায়েলের সঙ্গে একীভূত করতে চেয়েছিলেন। ইসরায়েল-ফিলিস্তিন শান্তি প্রক্রিয়াকে পুরো নস্যাৎ করেন তিনি। তার বিদায়, বিশ্বের জন্য বড় বিজয় ‘

ইরানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র সয়েদ খাতিবজেদাহ বলেন, ‘দখলদারদের নেতৃত্বে যে-ই আসুক, সবারই মনোভাব এক। ইরান প্রশ্নে তাদের অবান্তর হুমকি-ধামকীতে আমরা মোটেও ভীত নই।’

রিপাবলিকান ঘেষা নেতানিয়াহুর নীতি থেকে সরে যুক্তরাষ্ট্রের বর্তমান ডেমোক্রেট প্রশাসনের সঙ্গে মিত্রতা বাড়াবে নাফতালি সরকার।

ইসরায়েলের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইয়াইর লাপিদ, ‘এ অঞ্চলে ইসরায়েলের শক্তিমত্তাবৃদ্ধির কার্যক্রম বহাল থাকবে। নেতানিয়াহু মনে করত, যুক্তরাষ্ট্রে রিপাবলিকানরাই তার বন্ধু, আমরা সব দলের সঙ্গে কাজ করতে চাই’।

বিশ্লেষকরা বলছেন, যুক্তরাষ্ট্র- ইরানের পরমাণু চুক্তি পুনর্বহালে দুরত্ব বাড়বে, তেলআবিব-ওয়াশিংটনের।

জেরুজালেম ইনস্টিউট ফর স্ট্রাটেজি এণ্ড সিকিউরিটির প্রেসিডেন্ট ইফরাইম ইনবার বলেন, ‘ইরানের পরমাণু চুক্তির ঘোর বিরোধী ইসরায়েল। হয়ত বাইডেন দ্রুতই ৬ জাতির এ চুক্তিতে ফিরবেন, যা তেলআবিব-ওয়াশিংটন সর্ম্পকে তিক্ততা বাড়াবে।’

অধিকৃত পশ্চিম তীর, পূর্ব জেরুজালেম ও সিরিয়ার গোলান মালভূমিতে ইসরায়েলের স্থায়ী কতৃত্বে বিশ্বাসী নাফতালি বেনেত। যিনি পশ্চিম-তীরে ইহুদি বসতি স্থাপনকারী সংগঠন ইয়েশা কাউন্সিলের সাবেক প্রধান। মানুষ তাকে ডাকে বসতি স্থাপনকারীদের নেতা। স্বাধীন ফিলিস্তিনেরও ঘোর বিরোধী তিনি।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

আন্তর্জাতিক খবর