channel 24

সর্বশেষ

  • করোনায় বাংলা ভাষার অন্যতম কবি শঙ্খ ঘোষের মৃত্যু

  • ব্রাজিলে মুমূর্ষু রোগীদের সহমর্মিতায় 'হ্যান্ড অব গড'

  • তামিম-নাজমুলের ব্যাটে ক্যান্ডি টেস্টে দারুণ শুরু বাংলাদেশের

  • রংপুরে উৎপাদিত আলুর অর্ধেকই পঁচে যায় সংরক্ষণের অভাবে

  • চিকিৎসকসহ নানা সংকটে সিলেট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ও হাসপাতাল

  • ফরিদপুরে ছাত্রলীগের সাবেক নেতৃবৃন্দের প্রশংসনীয় উদ্যোগ

  • ময়মনসিংহে প্রধানমন্ত্রীর দেয়া ঘরে থাকছেন না ৭০ ভাগ পরিবার

  • ঈদকে সামনে রেখে অনলাইনে বাড়ছে গয়না বিক্রি

  • চট্টগ্রামে দীর্ঘ হচ্ছে শিশুদের করোনা আক্রান্তের তালিকা, বাড়ছে প্রাণহানিও

  • বড় পতনের পর ঘুরে দাঁড়ানোর ইঙ্গিত পুঁজিবাজার

  • যুক্তরাষ্ট্রে জর্জ ফ্লয়েড হত্যায় অভিযুক্ত পুলিশ কর্মকর্তা দোষী সাব্যস্ত

  • লকডাউনের মধ্যেই অভ্যন্তরীণ রুটে বিমান চলাচল শুরু

  • লকডাউনে গলি মহল্লার ভিড় এখন মূল সড়কে

  • স্কুল বন্ধ থাকায় অনিশ্চয়তায় কোটি শিক্ষার্থীর জীবন, বেড়েছে বাল্যবিবাহ

  • শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে টস জিতে ব্যাট করছে বাংলাদেশ

নাইজেরিয়ায় গর্ভবতী নারীদের হাসপাতালে নিতে অর্থ জমিয়ে কিনেছেন হাইফোআলাফিয়া

নাইজেরিয়ায় গর্ভবতী নারীদের হাসপাতালে নিতে অর্থ জমিয়ে কিনেছেন হাইফোআলাফিয়া

নাইজেরিয়ার উত্তরাঞ্চলে যোগাযোগের দুরবস্থায় সময়মতো হাসপাতালে যেতে না পারায় বার্দো গ্রামে প্রতি বছর প্রাণ হারান অনেক গর্ভবতী নারী। তবে, সমাধানে উপায় বের করেছেন ওই গ্রামেরই এক মেয়ে। অন্য নারীদের কাছ থেকে অর্থ সংগ্রহ করে কিনেছেন গাড়ি। যাতে পাল্টে গেছে শোকের গল্প।

নাইজেরিয়ার উত্তরাঞ্চলের প্রত্যন্ত গ্রাম বার্দো। এখান থেকে সবচেয়ে কাছের হাসপাতালটির দুরত্বও ত্রিশ কিলোমিটারের বেশি। মোটরযান নেই বললেই চলে। যোগাযোগের এমন বেহাল দশায় সবচেয়ে অসুবিধায় পরেন প্রসূতি নারীরা। সময়মতো হাসপাতালে পৌঁছাতে না পারায় ঝরে যায় অনেক প্রাণ। এমন পরিস্থিতিতে হাল ধরেছেন এই গ্রামেরই মেয়ে হালিমা। 

গ্রামের অন্য নারীদের নিয়ে অর্থ জমিয়ে সেই টাকায় কেনা হয় একটি গাড়ি। নাইজেরিয়ান ভাষায় এর নাম রাখেন হাইফোআলাফিয়া অর্থাৎ মায়ের স্বাস্থ্যরক্ষাকারী।

হালিমা জানান, আমি গ্রামের সব নারীদের একযায়গায় ডাকলাম। আমার কর্মপরিকল্পনার কথা জানালাম। তারা অল্প অল্প সঞ্চয় করে কয়েকমাসেই তিন হাজার ডলার জমা করে। সবার চেষ্টাতেই সফল হয়েছি।

গড়ে প্রতিমাসে ত্রিশজন গর্ভবতী নারী এই গাড়ির সেবা নিচ্ছেন।

গাড়ি চালক ইউনুস মোহাম্মাদ জানান, আমি সবসময় প্রস্তুত থাকি যেকোন জরুরি পরিস্থিতিতে গাড়ি চালিয়ে রোগীদের হাসপাতালে পৌছে দিতে আর এই মহৎ কাজটি করতে পেরে আমি খুব গর্বিত।

কেবলমাত্র মাতৃত্বকালীন জটিলতায় প্রতি বছর পঞ্চাশ হাজারের বেশি নারীর মৃত্যু হয় আফ্রিকার সর্বাধিক জনবহুল এ দেশটি।

 

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

আন্তর্জাতিক খবর