channel 24

সর্বশেষ

  • ঘোলাটে হচ্ছে রোকেয়া বিশ্ববিদ্যালয় পরিস্থিতি, ভিসির কুশপুত্তলিকা পোড়ালো ছাত্রলীগ

  • দিনাজপুরে আইনজীবী সমিতির দুই গ্রুপের সংঘর্ষে আহত ১০

  • বনানী কবরস্থানে চিরশয়নে এইচ টি ইমাম

  • তিস্তা নিয়ে ভারতের অবস্থান অপরিবর্তিত: ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী

  • তদন্তে লেখক মুশতাকের মৃত্যু স্বাভাবিক: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

  • প্রধানমন্ত্রীর সাথে ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এস জয়শঙ্করের সৌজন্য সাক্ষাত

  • দক্ষিণাঞ্চলে আরেকটি পরমাণু বিদ্যুৎকেন্দ্র নির্মাণ করা হবে: প্রধানমন্ত্রী

  • অপরাধ যাই হোক, শিশুদের সাজা সর্বোচ্চ ১০ বছর: হাইকোর্ট

  • দক্ষ নাবিক তৈরিতে চট্টগ্রামে আধুনিক শিপ ব্রিজ সিমুলেটর স্থাপন

  • করোনার ভ্যাকসিন নিলেন প্রধানমন্ত্রী

  • খাগড়াছড়িতে শিক্ষার্থীকে ধর্ষণ চেষ্টা মামলায় শিক্ষক কারাগারে

  • ধনঞ্জয়ের হ্যাটট্রিক ছাপিয়ে কাইরন পোলার্ডের ছয় ছক্কা

  • আবারও কথিত 'ক্রসফায়ারে' রামুতে যুবকের মৃত্যু, মাদক কারবারি দাবি র‍্যাবের

  • নিউজিল্যান্ডে প্রথমবারের মত অনুশীলনে টিম বাংলাদেশ

  • 'উন্নয়নশীল তালিকাভুক্তির অপেক্ষায় থাকা ১২ দেশের মধ্যে বাংলাদেশেরই রপ্তারি কমবে'

মিয়ানমারে জান্তা সরকারের হত্যার হুমকিতেও টলেনি গণতন্ত্রকামীরা

মিয়ানমারে জান্তা সরকারের হত্যার হুমকিতেও টলেনি গণতন্ত্রকামীরা

রাষ্ট্রীয় টিভিতে সেনা সরকারের দেয়া হত্যার হুমকিও টলাতে পারেনি গণতন্ত্রকামীদের। উল্টো সেনাশাসনের বিরুদ্ধে অসহযোগ আন্দোলনে বাড়ছে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের অংশগ্রহণ। ইয়াঙ্গুন-নেপিদোসহ বিভিন্ন শহরের বন্ধ রয়েছে দোকানপাট। জনগণের স্বতঃস্ফূর্ত এই বিক্ষোভকে বলা হচ্ছে বসন্ত বিপ্লব।

জনবিক্ষোভে পুলিশি নির্মমতায় এ পর্যন্ত ৩ জনের মৃত্যুতে ক্ষোভে ফুঁসছে মিয়ানমারের গণতন্ত্রকামীরা। যার নাম দেয়া হয়েছে স্প্রিং রেভুলেশন বা বসন্ত বিপ্লব।

বিক্ষোভ প্রতিহত করতে নয়া ফরমান জারি করে জান্তা সরকার। তবে, রাজপথে নামলেই প্রাণনাশের হুমকি উপেক্ষা করেই চলছে প্রতিবাদ। সাঁজোয়া যান ও দাঙ্গা পুলিশের কড়া প্রহরার মধ্যেই ইয়াঙ্গুনে মার্কিন দূতাবাসের সামনের সড়ক অবরোধ করা হয়।

অসহযোগ আন্দোলন সমর্থনে শাটার টেনে দেয়া হয় ইয়াঙ্গুন-নেপিদোসহ বিভিন্ন শহরের দোকান-পাটে। টানিয়ে দেয়া হয় নোটিশ। অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান।

এক গণতন্ত্রকামী বলছেন, 'দেশজুড়ে সর্বাত্মক ধর্মঘটে সমর্থন জানিয়েই আমি আমার দোকান বন্ধ রেখেছি। অবিলম্বে জান্তা সরকারকে ক্ষমতা ছাড়তে হবে।'

আরেকজন বলছেন, 'কোনো স্বৈরশাসক চাই না আমরা। জয়ী না হওয়া পর্যন্ত আমরা ঘরে ফিরবো না। দরকার হলে প্রতিদিনই রাজপথে নামবো।'

বিক্ষোভ দমনে বলপ্রয়োগে ক্ষুদ্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়ে যুক্তরাষ্ট্র বলছে, প্রয়োজনে বার্মিজ বাহিনীর ওপর আরো কড়া অবরোধ আরোপ করা হবে। পুলিশের নিন্দায় সরব যুক্তরাজ্য, জার্মানি, জাপান ও সিঙ্গাপুর। সব বন্দির নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করেছেন জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতেরেস।

 মহাসচিব বলেন, 'অবিলম্বে দমন-পীড়ন ও সহিংসতা বন্ধ, বন্দিদের মুক্তি ও নভেম্বরের নির্বাচনে দেয়া জনরায়ের প্রতি সম্মান জানাতে সেনাবাহিনীর প্রতি আহ্বান জানাচ্ছি। আধুনিক পৃথিবীতে এভাবে সেনা অভ্যুত্থানের কোনো স্থান নেই।'

মিয়ানমার এসিসট্যান্স অ্যাসোসিয়েশন ফর পলিটিক্যাল প্রিজনার্স বলছে, গেল ৩ সপ্তাহে রাজনীতিক, মানবাধিকার ও সংস্কৃতিকর্মীসহ গ্রেপ্তার হয়েছেন সাড়ে ৬শ' জন।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

আন্তর্জাতিক খবর