channel 24

সর্বশেষ

  • লা লিগায় বার্সেলোনার প্রতিপক্ষ ওসাসুনা

  • বুন্দেসলিগায় হাইভোল্টেজ ম্যাচে রাতে মুখোমুখি বায়ার্ন-ডর্টমুন্ড

  • নওগাঁয় বিদ্যুতের মিটার চুরির হিড়িক

  • দেশি পেঁয়াজে সয়লাব চট্টগ্রামের খাতুনগঞ্জ

  • আবারো সচল ঢাকার চারপাশে নদীরক্ষা প্রকল্পের কাজ

  • ফেনীতে হঠাৎ বিস্ফোরণে মা-মেয়েসহ দগ্ধ ৩

  • ২০ ঘণ্টা পেরোলেও স্বাভাবিক হয়নি কুষ্টিয়ার রেল চলাচল

  • জয়পুরহাটে নিষিদ্ধ পপির আবাদে ঝুঁকছেন অনেকে

  • আসন্ন নির্বাচনে 'নন্দীগ্রাম' থেকে প্রার্থীতার ঘোষনা দিলেন মমতা

  • নিরাপত্তা পরিষদের বৈঠকে চাপের মুখে মিয়ানমারের জান্তা সরকার

  • বিমান বাংলাদেশের বহরে যুক্ত হলো 'শ্বেতবলাকা'

  • ব্যর্থতা ঝেড়ে ধারাবাহিক সফল হতে চান নাজমুল শান্ত

  • ঘরোয়া ক্রিকেটে ফিরতে চান মাশরাফী বিন মোর্ত্তজা

  • দ. এশিয়ার শক্তিশালী অর্থনীতিতে রূপান্তরিত হচ্ছে বাংলাদেশ

  • আটতলা থেকে ঝাঁপ দিলেন কৃষি ব্যাংকের মহাব্যবস্থাপক

করোনা মোকাবিলায় ব্যর্থ হওয়ায় ইতালির প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগ

করোনা মোকাবিলায় ব্যর্থ হওয়ায় ইতালির প্রধানমন্ত্রীর পদত্যাগ

ইতালিতে করোনার ভয়াবহ পরিস্থিতির মধ্যে হঠাৎ করে পদত্যাগ করলেন দেশটির বর্তমান প্রধানমন্ত্রী প্রফেসর ‘জুসেপ্পে কন্তে’। মতবিরোধসহ নানা কারণে দলীয় নেতাকর্মীদের সাথে বনিবনা না হওয়ায় সোমবার এ ঘোষণা দেন তিনি।

কিছুদিন আগে হঠাৎ করেই বর্তমান জোট সরকারের একটি অংশ মাত্ত্বেও রেঞ্জির দল ‘ভিভা ইতালিয়া’ তাদের সমর্থন প্রত্যাহার করলে সংখ্যাগরিষ্ঠতা হারায় কন্তে সরকার। পরে দেশটির প্রেসিডেন্ট সার্জিও মাত্তারেল্লার কাছে আস্থাভোট চেয়ে অনুমতি নেন প্রধানমন্ত্রী জুসেপ্পে কন্তে।

এতে গত সপ্তাহে দেশটির নিম্নকক্ষে আস্থাভোটে কন্তের পক্ষে আসে ৩২১ ভোট। আর বিপক্ষে আসে ২৫৯ ভোট। তবে ভোট দেয়া থেকে বিরত থাকে ২৭ জন সাংসদ। 
পরে দেশটির সিনেট বা উচ্চকক্ষেও আস্থাভোটে ১৫৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন জুসেপ্পে কন্তে। তবে সিনেটে তার বিপক্ষে ভোট পড়ে ১৪০টি। আর ভোট দেয়া থেকে বিরত থাকে ১৬ জন সিনেটর। এতে পুনরায় দেশ পরিচালনার জন্য অনুমতি পায় বর্তমান কন্তে সরকার।

কিন্তু সোমবার হঠাৎ করেই কন্তে তার পদত্যাগের ঘোষণা দেন। তবে অধিকাংশ ইতালিয়ান রাজনৈতিক ব্যক্তিরা মনে করছেন ‘রাষ্ট্রপতি মাত্তারেল্লা কন্তের পদত্যাগ পত্র জমা না নিয়ে তাকে দেশ পরিচালনার জন্য আরও গতিশীল জোট গঠন করতে বলতে পারেন। অথবা খুব দ্রুত আবার নির্বাচনের ঘোষণাও দিতে পারেন। 
এছাড়াও এবিষয়ে দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রী রবের্তো স্পারেন্সা বলেন, ‘কঠিন সময়ে কিভাবে দেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে হয় সেটা প্রফেসর কন্তে খুব ভালো করে জানে। আমরা আমাদের পাশে কন্তেকে দেখতে চাই’।

তবে প্রধানমন্ত্রী কন্তের পদত্যাগের ঘোষণার পরপরই নতুন করে নির্বাচনের জন্য আহ্বান জানিয়েছেন সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী মাত্ত্বেও সালভিনি। তবে বর্তমানে পরিস্থিতিতে আবারো নির্বাচন হলে কোন সরকার ক্ষমতায় আসবে তার উপর নির্ভর করবে প্রবাসীদের ভবিষ্যৎ। যদি আবারো ডানপন্থী নেতা মাত্ত্বেও সালভিনি ক্ষমতায় আসেন তাহলে হয়তো অনিয়মিত অভিবাসীদের ভবিষ্যৎ অনেকটা কঠিন হয়ে পড়বে।

এবিষয়ে দেশটির অভিবাসী নীতিমালা নিয়ে কাজ করা বাংলাদেশী মাহফুজ রহমান সজিব বলেন, ‘রাষ্ট্রপতি যদি নতুন করে নির্বাচনের জন্য বলেন তাহলে অনেক অভিবাসীর বৈধ হবার স্বপ্ন পূরণে বড় ধরনের বিপত্তি বাঁধতে পারে। আর নির্বাচনে যদি সাবেক স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ডানপন্থী নেতা মাত্ত্বেও সালভিনি ক্ষমতায় আসতেন তাহলে বর্তমান ঘোষিত সানাতোরিয়ায় (রাজক্ষমা) অনেক বড় ধরনের প্রভাব ফেলার সম্ভাবনা থাকতে পারে’। তবে আবারো হয়তো ক্ষমতার আসন কন্তের দখলেই যাবে বলে মনে করছেন স্থানীয় রাজনৈতিক ব্যক্তিবর্গরা।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালে জাতীয় নির্বাচনের পর বর্তমান প্রধানমন্ত্রী জুসেপ্পে কন্তে’কে প্রধানমন্ত্রী করে দি মায়িও’র ‘ফাইভ স্টার মুভমেন্ট’ ও সালভিনির ‘লেগা নর্থ’ মিলে সরকার গঠিত হয় দেশটিতে। পরে ২০১৯ সালে ‘লেগা নর্থ’র সাথে কোন ইস্যুতে দ্বি-মত হওয়ায় সেসময় প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে পদত্যাগ করেন কন্তে। পরে ‘ডেমোক্র্যাটিক পার্টি’ ও ‘ফাইভ স্টার মুভমেন্ট’ মিলে সরকার গঠন করলে আবারো প্রধানমন্ত্রী দায়িত্বে আসেন প্রফেসর জুসেপ্পে কন্তে।

 

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

আন্তর্জাতিক খবর