channel 24

সর্বশেষ

  • আয়কর রিটার্ন দাখিলের সময় বাড়লো ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত

  • অপরাজেয় থাকার লক্ষ্যে বরিশালের মুখোমুখি চট্টগ্রাম

  • আসানসোলে গ্রামের একমাত্র হিন্দুর শেষকৃত্য করলেন মুসলিম প্রতিবেশীরা

  • করোনা ভ্যাকসিনের ৩ কোটি ডোজ বিনামূল্যে দেবে সরকার

  • 'জিয়াউর রহমানের নাম মুছে ফেলার ঘটনা সহ্য করা হবে না'

  • N-95 মাস্ক কেলেঙ্কারি: জেএমআই'র চেয়ারম্যানের জামিন কেন বাতিল নয়, হাইকোর্টের রুল

  • নুরসহ ৬ জনের ধর্ষণ মামলার তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের সময় পিছিয়েছে

  • সম্রাট অসুস্থ, অভিযোগ গঠনের বিষয়ে আদেশ পেছালো

  • সাবেক মেয়র আনিসুল হকের তৃতীয় মৃত্যুবার্ষিকীতে শ্রদ্ধা

  • কারাগারে বিয়ের পর ধর্ষণ মামলার আসামির জামিন

  • শেষ দিনে কর অঞ্চলগুলোতে রিটার্ন দাখিলে ভিড়

  • দিনাজপুরে চার চোখ ও দুই মাথার বাছুর

  • চাপাইনবাবগঞ্জে তিন দশক পর খাস জমি বুঝে পেল ভূমিহীন পরিবার

  • আখ নিয়ে বিপাকে কৃষক

  • কুষ্টিয়ায় ডোপ টেস্টে ধরা পড়ে ৮ পুলিশ স্থায়ী বরখাস্ত

মার্কিন নির্বাচনে সুইংস্টেটে বড় ফ্যাক্টর মুসলিম ভোট

মার্কিন নির্বাচনে সুইংস্টেটে বড় ফ্যাক্টর মুসলিম ভোট

ডোনাল্ড ট্রাম্প দায়িত্ব নেয়ার পর থেকে ৭ মুসলিম দেশের নাগরিকদের যুক্তরাষ্ট্র প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা, জেরুজালেমকে ইসরায়েলের রাজধানী ঘোষণার মতো সিদ্ধান্ত ক্ষুব্ধ করেছে মুসলিম বিশ্বকে। এ অবস্থায় এবারের নির্বাচনে ৭১ শতাংশ মুসলিম ভোটারই জো বাইডেনকে ভোট দিতে চান, ট্রাম্পকে ভোট দেবেন মাত্র ১৮ শতাংশ। বিশ্লেষকরা বলছেন, সুইংস্টেটখ্যাত মিশিগান, ফ্লোরিডা, উইসকনসিন ও পেনসিলভেনিয়াতে এবার বড় ফ্যাক্টর হতে চলছে মুসলিম ভোট।

৩২ কোটি মানুষের দেশ যুক্তরাষ্ট্রে মুসলিম নাগরিকের সংখ্যা প্রায় সাড়ে ৩৪ লাখ। যা দেশটির মোট জনসংখ্যার ১ শতাংশ। এই মুসলিম ভোটারদের বেশিরভাগই থাকেন মিশিগান, ফ্লোরিডার মতো সুইংস্টেটগুলোতে। কেবল মিশিগানেই মুসলিম ভোটার আছেন ২ লাখ ৭০ হাজার। যাদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ স্বাস্থ্যসেবা, শিক্ষা ও বিচারিক ব্যবস্থা। 

মিশিগান মুসলিম কমিউনিটি কাউন্সিল ড. মাহমুদ আল হাদিদি বলেন, মুসলিমরা যুক্তরাষ্ট্রেরই অংশ, তারা ভিনগ্রহের কোনো বাসিন্দা নন, তাদের সম্মানের চোখে দেখতে হবে। নিরপরাধ অনেকের পেছনে অহেতুক সন্ত্রাসী নজরদারি করা হয়।

২০১৭ সালে দায়িত্ব নেয়ার পরই মুসলিম ৭টি দেশের মানুষের যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দিয়ে নির্বাহী আদেশ জারি করেন ট্রাম্প। এতে তারওপর ক্ষুদ্ধ অনেক মুসলিম ভোটার। 

নাইন-ইলেভেন হামলার আগে অন্তত ৮০ ভাগ অ-কৃষ্ণাঙ্গ মুসলিম ভোটার রিপাবলিকানদের ভোট দিতেন। তবে ২০০৮ থেকে ডেমোক্রেটমুখী তারা। বলা হয়, ২০১৬ সালের নির্বাচনে এই ভোটারদের ৮২ শতাংশ হিলারিকে ভোট দিয়েছেন। এছাড়া ১৮র মধ্যবর্তী নির্বাচনে তাদের মাত্র ১০ শতাংশের ভোট গেছে রিপাবলিকানদের বাক্সে।

যুক্তরাষ্ট্রে মুসলিম ভোটার বৃদ্ধির হার
২০১৬.........৬০%
২০১৭....৬৮%
২০১৮...৭৫%
২০১৯....৭৩%
২০২০...৭৮%

ডা. আবদুল আল সাইয়েদ জানান, আমি সবসময়ই বলে আসছি নিজের শক্তিমত্তার জন্যই ভোট দিতে হবে। মুসলিমরা ভাবতে শিখেছে, তাদের ভোট, জয়-পরাজয় নির্ধারণে মুখ্য ভূমিকা পালন করে। 

ইনস্টিটিউট ফর সোস্যাল পলিসি অ্যান্ড আন্ডারস্টান্ডিং-আইএসপিইউ বলছে, বর্তমানে ৩০ শতাংশ মুসলিম মনে করেন ট্রাম্প অর্থনীতির জন্য ভালো এবং মধ্যপ্রাচ্যে অহেতুক যুদ্ধ থেকে ফিরে এসেছেন। ৩১ শতাংশ শেতাঙ্গ মুসলিম ট্রাম্পকে সমর্থন করলেও ৮ শতাংশ কৃষ্ণাঙ্গ এবং ৬ শতাংশ এশীয় মুসলিম তার বিপক্ষে।

জরিপ বলছে, চলতি বছরের ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার আন্দোলনে সমর্থনে দিয়েছেন ৬৫ শতাংশ মুসলিম। 

যুক্তরাষ্ট্রে মুসলিম ভোটার
মোট ভোটার: ৩৪ লাখ ৫০ হাজার
শেতাঙ্গ: ৪১  %
এশীয়: ২৮  %
কৃষ্ণাঙ্গ: ২০ %
হিস্পানিক: ৮% 
জন্মসূত্রে মার্কিনী: ১৮ %
ন্যাটিভ আমেরিকান: ২৪%

গেল ৭ মাসে মুসলিম ভোটব্যাংক টানতে বিভিন্ন রাজ্যে অন্তত দেড়শ ইভেন্ট করেছে ডেমোক্রেটিক পার্টি। আর রিপাবলিকানরা বলছে, যুক্তরাষ্ট্রে মুসলিমদের ধর্মীয় স্বাধীনতা, অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি এবং শিক্ষার সম অধিকার নিশ্চিতে কাজ করছে তারা। 

ইনস্টিটিউট ফর সোস্যাল পলিসি অ্যান্ড আন্ডারস্ট্যান্ডিংয়ের গবেষণা পরিচালক ডালিয়া মোগাহেড বলেন, শুধু ধর্মীয় কারণ নয়, মুসলমানরা এখন ভাবতে শিখেছে, তাদের ভোটব্যাঙ্ক একটা শক্তি। বিশেষ করে স্থানীয়ভাবে প্রার্থীদের ভাগ্য নির্ধারণে এবং পরিবর্তন আনতে এটি গুরুত্বপূর্ণ।

কাউন্সিল অন আমেরিকান ইসলামিক রিলেশন-সিএআইআরের সবশেষ জনমত জরিপ বলছে, যুক্তরাষ্ট্রজুড়ে ৭১ শতাংশ মুসলিমই বাইডেনকে ভোট দেয়ার পক্ষপাতি। ১৮ শতাংশ ভোট দিতে চান ট্রাম্পকে। আর ১১ ভাগ কোনো উত্তরই দেননি।

 

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

আন্তর্জাতিক খবর