channel 24

সর্বশেষ

  • মেসিডোনিয়ায় ১৪৪ বাংলাদেশি অভিবাসন প্রত্যাশী আটক

  • রাঙ্গামাটিতে বিআরডিবি পরিদর্শকের বিরুদ্ধে দুদকের মামলা

  • চট্টগ্রামে জাল নোট প্রতারক চক্রের ১ সদস্য আটক

  • পাহাড়ে বাড়ছে অস্ত্রের ঝনঝনানি, দুই দশকে প্রাণ গেল ৮ শ' জনের

  • করোনায় যুক্তরাষ্ট্রে আরও ৬০ হাজার আক্রান্ত

  • রিজেন্ট হাসপাতালের মিরপুর শাখাও সিলগালা

  • 'বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থাগুলোকে সরকারি নীতি-কৌশলের সাথে যুক্ত করতে হবে'

  • লিচুর পুষ্টিগুণ

  • মরিচ গাছের ঢলে পড়া রোগ

  • বৃষ্টির বাধায় ক্রিকেটের প্রত্যাবর্তন ম্যাচ

  • কোরবানির পশুর বেচা-বিক্রি নিয়ে উদ্বিগ্ন নাটোরের খামারীরা

  • স্বাস্থ্যখাতের লাগামহীন অনিয়ম নিয়ে সংসদে সমালোচনা

  • রোহিঙ্গা সমস্যার স্থায়ী সমাধানে দ্রুত প্রত্যাবাসনের পক্ষে ভারত

  • বান্দরবানে ৬ নেতাকর্মী হত্যার ঘটনায় এখনো মামলা হয়নি

  • কর্ণফুলি নদীতে লাইটার জাহাজ ডুবি

যুক্তরাষ্ট্রে কৃষ্ণাঙ্গ হত্যার জেরে এবার উত্তাল ফ্রান্স

যুক্তরাষ্ট্রে কৃষ্ণাঙ্গ হত্যার জেরে এবার উত্তাল ফ্রান্স

পুলিশের হেফাজতে কৃষ্ণাঙ্গ হত্যার ঘটনায় টানা অষ্টম দিনের মতো বিক্ষোভ চলছে যুক্তরাষ্ট্রে। তবে কমেছে সহিংসতা। কৃষ্ণাঙ্গ জর্জ ফ্লয়েডের মৃত্যুকে কেন্দ্র করে যুক্তরাষ্ট্রের মিনিয়াপলিসে যে বিক্ষোভের সূত্রপাত, তা এখন রুপ নিয়েছে বর্ণবাদ বিরোধী বিক্ষোভে। প্রতিদিনই ছড়াচ্ছে বিশ্বের নতুন নতুন দেশে।

সরকারি নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে ফ্রান্সের প্যারিসের রাজপথে নামে ২০ হাজারের বেশি বিক্ষোভকারী। এক পর্যায়ে যা সহিংস রুপ নেয়। পুলিশের টিয়ার গ্যাস নিক্ষেপেও থামেনি পরিস্থিতি।

বিক্ষোভ হয়েছে আর্জেন্টিনা, ব্রাজিল, নেদারল্যান্ডসসহ আরো অনেক দেশে। করোনার ভয় আর বিধি নিষেধ বাধা হতে পারেনি।
 
এক আন্দোলনকারী বলছেন, 'ফ্যাসিবাদ, বর্ণবাদ আর পুঁজিবাদ আকড়ে ধরেছে যুক্তরাষ্ট্রকে। এর বিরুদ্ধে সোচ্চার হচ্ছে মার্কিনিরা। তাদের প্রতি সমর্থন জানাচ্ছি।'

তবে গেলো কয়েকদিনের সহিংসতা কিছুটা কমেছে যুক্তরাষ্ট্রে। এর মাঝেও শহরে শহরে বিক্ষোভে নেমেছেন মার্কিনিরা। অনেক জায়গায় হাঁটু গেড়ে বিক্ষোভকারীদের সমর্থন দিতে দেখা যায় পুলিশ সদস্যদেরকেও।

সমাবেশ হয়েছে হোয়াইট হাউসের সামনে। ওয়াশিংটন ডিসিতে মোতায়েন করা হয়েছে প্রায় দুই হাজার সেনা সদস্য। লস অ্যাঞ্জেলস আর নিউইয়র্কে কারফিউ উপেক্ষা করে বিক্ষোভ করায় আটক হয়েছেন অর্ধশতাধিক। 

এক বিক্ষোভকারী বলছেন, 'সত্যি বলতে এই আন্দোলন বর্ণবৈষম্য রুখে দিবে এমনটা ভাবছি না। অধিকার রক্ষায় সচেষ্ট হতে হবে। পরবর্তী প্রজন্মের সামনে এমন উদাহরণই রাখতে চাচ্ছি।'

পুলিশ অন্যায়ভাবে সাধারণ মানুষকে আটক করছে। এমনকি সাংবাদিকদেরও ছাড় দিচ্ছে না তারা।

রয়টার্সের জরিপ বলছে, বেশিরভাগ আমেরিকানই বিক্ষোভের পক্ষে আর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ট্রাম্পের নেয়া পদক্ষেপের বিপক্ষে।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

আন্তর্জাতিক খবর