channel 24

সর্বশেষ

  • সিরাজগঞ্জে ছাত্রলীগের দুগ্রুপের সংঘর্ষ, আহত ৫০

  • ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বাড়ির আঙ্গিনায় গাঁজা চাষ, ১ নারী আটক

  • মর্নিং বার্ড লঞ্চ শত্রুতামূলকভাবে ডোবানো হয়েছে: নৌ পুলিশ

  • ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট করোনায় আক্রান্ত

  • ১৮২০ তৃণমূল ফুটবলার আর্থিক সহায়তা পাচ্ছে

  • খুলনায় আটক পাটকলের ২ শ্রমিক নেতা কারাগারে

  • এশিয়া কাপ স্থগিতের শঙ্কায় আকরাম খান

  • করোনায় ফেনীর সিভিল সার্জনের মৃত্যু

  • ইংল্যান্ড-ওয়েস্ট ইন্ডিজ টেস্ট দিয়ে মাঠে গড়াচ্ছে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট

  • নানা পরিচয়ে একের পর এক ব্যবসা বাগিয়েছেন রিজেন্টের মালিক

  • বাংলাদেশ থেকে এক সপ্তাহের জন্য ফ্লাইট বাতিল ঘোষণা দিলো ইতালি

  • মৃতের হাত বেঁধে টাকা আদায়: প্রশান্তি হাসপাতালের বিরুদ্ধে ১ কোটি টাকা ক্ষতিপূরণ চেয়ে রিট

  • প্যাপিনোমেলনের পুষ্টিগুণ

  • মরিচ গাছের পাতা কুকড়ানো বা লিফ কার্ল রোগ

  • আম্পানে ক্ষতিগ্রস্ত ঘেরে চিংড়ির রোগ নির্ণয় ভ্রাম্যমাণ মৎস্য ক্লিনিক

শ্বেতাঙ্গ পুলিশের নৃশংসতায় ৯ রাজ্যে বিক্ষোভ; ৪ পুলিশ অফিসার বরখাস্ত

শ্বেতাঙ্গ পুলিশের নৃশংসতায় ৯ রাজ্যে বিক্ষোভ; ৪ পুলিশ অফিসার বরখাস্ত

করোনায় বিপর্যস্ত যুক্তরাষ্ট্রে পুলিশি নৃশংসতায় এক কৃষ্ণাঙ্গর মৃত্যুতে টানা দুদিন ধরে বিক্ষোভে উত্তাল রয়েছে মার্কিন মুল্লুক। সবচেয়ে খারাপ অবস্থা মিনেসোটায়। দোকানপাট ভাঙচুর ও থানায় আগুন দেয়া হয়েছে সেখানে। সমালোচনার মুখে বরখাস্ত করা হয়েছে ৪ পুলিশ অফিসারকে।

ঘটনার সূত্রপাত, ২৫ মে যুক্তরাষ্ট্রের মিনোসোটার শহর মিনেপোলিসে। জালিয়াতির অভিযোগে আটক জর্জ ফ্লয়েড নামে এক কৃষ্ণাঙ্গকে হাঁটুর মধ্যে চেপে ধরে শ্বাসরোধে হত্যা করেন এক শ্বেতাঙ্গ পুলিশ অফিসার। বাঁচার আকুতি জানিয়েও শেষ রক্ষা হয়নি ফ্লয়েডের।

পুলিশের এমন নির্মমতায় ক্ষোভে ফুসছে গোটা যুক্তরাষ্ট্র। টানা ৩ দিন ধরে বিক্ষোভ অব্যাহত মিনেসোটায়। আগুন দেয়া হয় মিনেপোলিসের থানায় জ্বালিয়ে দেয়া হয় বেশ কিছু ব্যবসা প্রতিষ্ঠান।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাজ্যে মোতায়েন করা হয়েছে ন্যাশনাল গার্ড। রাজ্যে যে তাণ্ডব চলছে তা হৃদয়বিদারক। তবে মিনেপোলিসের যে ঘটনার জন্য এ প্রতিবাদ তা অন্য যে কোনো সময়ের চেয়ে আলাদা।  

নিউইয়র্ক, কলোরাডো, শিকাগো, লস অ্যাঞ্জেলেস, ক্যালিফোর্নিয়া, মেমফিস এবং টেনেসিতেও ব্যাপক বিক্ষোভ হয়। করোনাকালে ১০ জনের বেশি জমায়েত এবং ৬ ফুট দূরত্ব বজায় রাখার নীতি থাকলেও বিচারের দাবিতে রাজপথে শত শত মানুষ।

যুক্তরাষ্ট্রে কৃষ্ণাঙ্গদের প্রতি আচরণ অমানবিক। বছরের পর পর ধরে এ দৃশ্য দেখে আসছি। এটা চলতে পারে না। এভাবে আমাদের দমিয়ে রাখা যাবে না।

যেহেতু তিনি একজনের প্রাণ নিয়েছেন তাই ঐ পুলিশকে হয় যাবজ্জীবন কারাদণ্ড অথবা মৃত্যুদণ্ড দিতে হবে।

২০১৪ সালে মিজৌরির ফার্গুসনে শ্বেতাঙ্গ পুলিশের হাতে কৃষ্ণাঙ্গ হত্যার জেরে গোটা যুক্তরাষ্ট্রে টানা কয়েক সপ্তাহ বিক্ষোভ চলে। এতে বিপাকে পড়েন, তৎকালীন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা।

 

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

আন্তর্জাতিক খবর