channel 24

সর্বশেষ

  • চলে গেলেন ক্যারিবিয়ান কিংবদন্তি এভারটন উইকস

  • ব্রাহ্মণবাড়িয়া গ্যাস ফিল্ডে শ্রমিকদের কর্মবিরতি

  • করোনায় মধ্যপ্রাচ্যের অবস্থা সংকটাপন্ন: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

  • মেডিকেল টেকনোলজিস্ট হিসেবে নিয়োগের দাবিতে স্বাস্থ্যকর্মীদের মানববন্ধন

  • সরকারি প্রণোদনা পেতে করোনার সনদ জালিয়াতি

  • চাঁপাইনবাবগঞ্জে ভূমি অফিসের দুর্নীতিতে অতিষ্ঠ সেবা গ্রহিতারা

  • মৌলভীবাজারে অবৈধ মজুদকৃত ৭০ টন পলিথিন জব্দ

  • কুষ্টিয়ায় শতকোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত বাঁধেও থামানো যাচ্ছে না নদীভাঙন

  • মহাখালীতে হচ্ছে ১০০০ শয্যার আইসোলেশন সেন্টার

  • সরকারি চাকরি যেন আলাদিনের চেরাগ

  • গাইবান্ধায় ১৭৪ বস্তা সরকারি চালসহ আটক ২

  • ট্রান্সকম গ্রুপের চেয়ারম্যান লতিফুর রহমানের দাফন সম্পন্ন

  • দেশে করোনার ভ্যাকসিন আবিষ্কারের দাবি গ্লোব বায়োটেকের

  • এন 95 মাস্ক সরবরাহে দুর্নীতি, ৫ জনকে দুদকে তলব

  • শতবর্ষে পদার্পণের দিনে বিশ্বে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সুনাম ফেরানোর আশা

লিবিয়ায় ২৬ বাংলাদেশিকে গুলি করে হত্যা

লিবিয়ায় ২৬ বাংলাদেশিকে গুলি করে হত্যা

লিবিয়ার দক্ষিণাঞ্চলীয় শহর মিজ্দাহ-তে (ত্রিপলী হতে ১৮০ কি.মি. দক্ষিণে) ২৬ বাংলাদেশিসহ মোট ৩০ জনকে গুলি করে হত্যা করেছে স্থানীয় এক মানবপাচারকারীর পরিবারের সদস্যরা। বাকি চারজন আফ্রিকারই নাগরিক।

লিবিয়ার জাতিসংঘ সমর্থিত সরকারের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বিবৃতিতে জানায়, এই ঘটনায় আরও ১১ জন বাংলাদেশি মারাত্মকভাবে আহত হয়েছেন।

 

বৃহস্পতিবার রাত পৌনে নয়টার দিকে তাদের ফেইসবুক পেজে জানায়, নিহত বাংলাদেশিরা মিজদা শহরে ওই মানবপাচারকারীর জিম্মায় ছিলেন। তাকে আগেই হত্যা করা হয়।

 

 

স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, অভিযুক্ত পাচারকারী মঙ্গলবার রাতে অভিবাসীদের হাতে কোনোভাবে খুন হন। এরপর তার সহযোগী এবং আত্মীয়স্বজনেরা জিম্মি অভিবাসীদের ক্যাম্পে নির্বিচারে গুলি চালালে ঘটনাস্থলে ২৬ জন বাংলাদেশিসহ মোট ৩০ জন মারা যান।

 

প্রাণে বেঁচে যাওয়া এক বাংলাদেশীর সাথে টেলিফোনে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়। তিনি কোনো প্রকারে প্রাণে বেঁচে বর্তমানে একজন হৃদয়বান লিবিয়ানের আশ্রয়ে আত্মগোপন করে আছেন।

সেখান থেকে তিনি দূতাবাসকে এই মর্মে জানান যে, ১৫ দিন পূর্বে বেনগাজী থেকে মরুভূমি পাড়ি দিয়ে কাজের সন্ধানে মানবপাচারকারীরা তাদেরকে লিবিয়ার ত্রিপলী শহরে নিয়ে আসার পথে তিনিসহ মোট ৩৮ জন বাংলাদেশী মিজ্দাহ শহরে মুক্তিপণ আদায়ের উদ্দেশ্যে দুষ্কৃতিকারীদের হাতে জিম্মি হন। জিমি¥ অবস্থায় তাদেরকে অত্যাচার, নির্যাতন করার একপর্যায়ে অপহৃতব্যক্তিবর্গ মূল অপহরণকারী লিবিয়ান ব্যক্তিকে হত্যা করে এবং এর জের হিসেবে অন্যান্য দুষ্কৃতিকারীরা আকষ্মিকভাবে তাদের উপর এলোপাতাড়ি গুলিবর্ষণ করে যাতে আনুমানিক ২৬ জন বাংলাদেশী নিহত হয়, যাদের মৃতদেহ মিজদাহ হাসপাতালে সংরক্ষিত 

রয়েছে। অবশিষ্ট বাংলাদেশীরা হাতে-পায়ে, বুকে-পিঠে গুলিবিদ্ধ হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

 

বাংলাদেশ দূতাবাস হতে মিজদাহ হাসপাতালের পরিচালক টেলিফোনে এ বিষয়ে বাংলাদেশ দূতাবাসকে জানান যে, উক্ত মৃতদেহসমূহ বর্তমানে মিজদাহ হাসপাতালের মর্গে পরিবর্তী প্রক্রিয়ার জন্য সংরক্ষিত রয়েছে। অন্যদিকে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের মহাপরিচালকের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেন এবং উক্ত মৃতদেহ সমূহের বিষয়ে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে জানান।

 

অন্যদিকে ঘটনায় আহত আনুমানিক ১১ জন বাংলাদেশীদেরকে জিনতান হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করে অধিকতর উন্নত চিকিৎসার জন্য ত্রিপলী মেডিকেল সেন্টারে (টিএমসি) প্রেরণের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে।

ত্রিপলী মেডিকেল সেন্টারে পৌছার পর দূতাবাস হতে আহতদের সাথে সাক্ষাৎ করে ঘটনার বিশদ বিবরণ গ্রহণ করাসহ নিহতদের পরিচয় উদঘাটনের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। তাছাড়াও আহতদের চিকিৎসার ব্যাপারে দূতাবাস হতে সর্বোচ্চ সহযোগিতা করা হবে।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

আন্তর্জাতিক খবর