channel 24

সর্বশেষ

  • করোনায় মধ্যবিত্তদের সহায়তায় সিএমপির 'চলছে গাড়ি, মধ্যবিত্তের বাড়ি' কর্মসূচী

  • করোনায় মৃতদেহ সৎকারে বিপাকে বিশ্বের সব দেশ

  • করোনায় বিশ্বে প্রাণহানি প্রায় ৫৯ হাজার; আক্রান্ত ১০ লাখের বেশি

  • ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে মানুষের ঢল

  • পণ্যের পর্যাপ্ত সরবরাহ থাকলেও ক্রেতা নেই রাজধানীর কাঁচাবাজারে

  • ব্রিটেনে ২৪ ঘণ্টায় রেকর্ড ৬৮৪ জনের প্রাণহানি

  • চট্টগ্রামে করোনা আক্রান্ত প্রথম একজন শনাক্ত, বাড়ি লকডাউন

  • সাধারণ ছুটিতে বিপাকে ছিন্নমূল ও খেটেখাওয়া মানুষেরা

  • করোনার থাবায় নাস্তানাবুদ গোটা বিশ্ব, আক্রান্ত ছাড়ালো ১০ লাখ

  • খুলনায় বেশিরভাগ হাসপাতালে মিলছে না চিকিৎসা, ভোগান্তিতে রোগীরা

  • কিশোরগঞ্জে অটোরিকশার সিরিয়ালকে কেন্দ্র করে সংঘর্ষ, নিহত ১

  • যে ছবি ভাইরাল হয়েছে

  • অনেক পণ্যের দাম কমলেও চট্টগ্রামে বেড়েছে চাল, ডালের মূল্য

  • একমাস লকডাউনের ঘোষণা সিঙ্গাপুরের

  • চট্টগ্রামে ত্রাণ বিতরণে সমন্বয় নেই, নেই হতদরিদ্রদের তালিকা

হিংসার আগুনে জ্বলে দিল্লি এখন ভুতুড়ে নগরী

হিংসার আগুনে জ্বলে দিল্লি এখন ভুতুড়ে নগরী

প্রায় অর্ধশত মানুষের প্রাণহানির এক সপ্তাহ পরও এখনো থমথমে দিল্লি। যেন এক যুদ্ববিধ্বস্ত নগরী। সড়কগুলো যেন যুদ্ধবিধ্বস্ত ধ্বংসস্তূপ। সহিংসতার থামার পর ক্রমেই স্পষ্ট হচ্ছে তাণ্ডবের ভয়াবহতা।

চিকিৎসাধীন অনেকেই বর্ণনা দিচ্ছেন দাঙ্গার নির্মমতা। মুস্তাফাবাদের একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন শাবানা পারভীন। গর্ভবতী এ নারীও সেদিনের প্রতিহিংসার শিকার।

শাবানা বলেন, 'দুর্বৃত্তরা আমার ঘরে ঢুকে বেদম পিটাতে থাকে। পায়ে এবং হাতে চোট লাগে। ওদের বললাম আমি গর্ভবর্তী কিন্ত তারপরও নিপীড়ন থামেনি। প্রতিবেশি এক হিন্দু পরিবারের সহায়তায় হাসপাতালে এসেছি।'

শাবানার মত হাসপাতালে মৃত্যুশয্যায় থাকা অনেকেই ভুলতে পারছেন না ভয়াবহ সেদিনের কথা।

সালিম কাসার নামে বকেজন বলছেন, 'হেলমেট পড়ে ধারালো ছুরি, স্টিক এবং রড নিয়ে এসে আমার ভাইকে গণহারে মারতে থাকে একদল দুর্বৃত্ত। পরে তাকে আগুনে ফেলে দেয়। সেখান থেকে লাফিয়ে বেরিয়ে আসার পর, ফের তাকে গুলি করে ফেলে দেয় জ্বলন্ত আগুনে।'

এমন উত্তপ্ত পরিস্থিতিতেই পশ্চিমবঙ্গে সফরে ভারতের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। তার এ সফরের প্রতিবাদে আগে থেকেই মাঠে ছিলো তৃণমূল-বাম ও কংগ্রেস নেতাকর্মীরা। বিভিন্ন স্থানে চলে বিক্ষোভ। পুলিশের সঙ্গে ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া।

অবশ্য অমিত শাহর সমর্থনে রাজপথে ছিলো বিজেপিও। দুপুরে শহীদ মিনার মঞ্চে ওঠেন অমিত শাহ। ঘোষণা দেন, যে করেই হোক বাংলায় নাগরিকত্ব আইন কার্যকর করবেন।

অমিত শাহ বলেন, 'সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন-সিএএ নিয়ে সংখ্যালঘুদের ভয় দেখাচ্ছে তৃণমূল। ৭০ বছরে এখানে আশ্রিত শরণার্থীদের নাগরিকত্ব ছিলো। বিজেপি তাই, হিন্দু-বৌদ্ধ, খ্রিষ্টান, জৈন এবং শিখদের নাগরিকত্ব দেয়ার ব্যবস্থা করেছে। মমতা যতই বিরোধীতা করুক মোদি সরকার সিএএ কার্যকর করবে।'

এদিকে, নাগরিকত্ব আইনের পক্ষে ভারতের বিভিন্নস্থানে মিছিল করেছে বিজেপি সমর্থকরা।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

আন্তর্জাতিক খবর