channel 24

সর্বশেষ

  • দীর্ঘ দিন বন্ধ থাকায় মানবেতর দিন কাটাচ্ছে জাবি'র দোকান মালিকরা

  • ঢাবি শিক্ষার্থীদের কল্যাণে নতুন নতুন পদক্ষেপ নেয়া হচ্ছে: এ কে আজাদ

  • হলি ফ্যামিলি হাসপাতালে চালু হল হিমঘর

  • ১ অক্টোবর থেকে সৌদি ও ওমান প্রবাসীরা দেশে ফিরতে পারবেন

  • মৃত কিশোরীর জীবিত ফিরে আসার ঘটনা বিচারিক তদন্তের নির্দেশ

  • বান্দরবান পর্যটন কেন্দ্রগুলোতে বাড়ছে পর্যটক, মানা হচ্ছে না স্বাস্থ্যবিধি

  • আতঙ্ক নয়, সচেতনতাই করোনা প্রতিরোধে মুখ্য ভূমিকা রাখবে: তাপস

  • পরাজিত হলে শান্তিপূর্ণভাবে ক্ষমতা হস্তান্তরের প্রতিশ্রুতি প্রত্যাখ্যান ট্রাম্পের

  • টানা বৃষ্টিতে তিস্তাসহ কয়েকটি নদীর পানি বৃদ্ধি

  • প্রতি ভরিতে স্বর্ণের দাম কমলো ২৪৪৯ টাকা

  • নানা সংস্কারের ফলে পুঁজিবাজার নিয়ে সবার প্রত্যাশা বেড়েছে

  • রপ্তানি পণ্যে যুক্ত হলো প্রক্রিয়াজাত কাজুবাদাম

  • ইংলিশ লিগ কাপ: রাতে নামছে লিভারপুল ও ম্যান সিটি

  • উয়েফা সুপার কাপ: রাতে মুখোমুখি বায়ার্ন-সেভিয়া

  • উয়েফার বর্ষসেরা ফুটবলারের সংক্ষিপ্ত তালিকা

চীনে মাত্র ১০ দিনে হাসপাতাল নির্মাণ!

চীনে মাত্র ১০ দিনে হাসপাতাল নির্মাণ!

আলাদিনের চেরাগের দৈত্যের যাদু নয়। নয় কোনো অলৌকিক স্থাপনা। মাত্র ১০দিনেই হাসপাতাল তৈরি করছে চীন। দেশটির উহান শহরে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তদের চিকিৎসায় জরুরি ভিত্তিতে শুরু হয়েছে এক হাজার শয্যার হাসপাতালের নির্মাণ কাজ। আগামী মাসে এমন অস্বাভাবিক দ্রুততায় আরেকটি হাসপাতাল তৈরি করবে চীন।

বিশ্বময় আতঙ্ক ছড়ানো রহস্যময় করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ শুরু চীনের উহান শহর থেকে। যাতে এরইমধ্যে প্রাণ গেছে অনেকের।

ভাইরাস প্রতিরোধে উহানের বাসিন্দাদের শহর ত্যাগে বিধিনিষেধ জারি করা হয়েছে। হাসপাতাল আর ফার্মেসিতে আক্রান্ত রোগীদের ভীড় সামাল দিতে হিমশিম খাচ্ছে চিকিৎসকরা।

এমন পরিস্থিতি মোকাবেলায় উহানে জরুরী ভিত্তিতে দুইটি বিশেষায়িত হাসপাতাল নির্মাণ শুরু হয়েছে। এরমধ্যে ফেব্রুয়ারীর প্রথম সপ্তাহের মধ্যে এক হাজার শয্যার হাসপাতালটির নির্মাণ কাজ শেষের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ২৫ হাজার স্কয়ার মিটার এলাকা জুড়ে প্রায় ৪০ টি এক্সভেটর দিয়ে দিনরাত চলছে খনন কাজ।

চীনের বিভিন্ন শহর থেকে অভিজ্ঞ প্রকৌশলীরা নির্মাণকাজের তদারকি করছেন। বিভিন্ন প্রদেশ থেকে হাজার খানেক বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক পাঠানো হয়েছে উহানে। ১৩শ শয্যা বিশিষ্ট দ্বিতীয় হাসপাতালটির কাজও ফেব্রুয়ারীর মাঝামাঝি শেষ হবে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

জ্যেষ্ঠ ফেলো ইয়াংঝং হুয়াং বলেন, অল্প সময়ে বিশাল বিশাল প্রকল্প শেষের রেকর্ড রয়েছে চীনের। এখানকার প্রকৌশলীরাও বিশ্বসেরা। তাই যথাসময়েই শেষ হবে হাসপাতালের নির্মাণ কাজ।   

তবে এটিই প্রথম নয়। এরআগে ২০০৩ সালে, সার্স রোগীদের চিকিৎসায় মাত্র সাত দিনে বেইজিংয়ের হাসপাতাল নির্মাণ করে রেকর্ড গড়ে চীন।  যাতে এক্স-রে রুম, আইসিইউ, ল্যাবরেটরিসহ আধুনিক হাসপাতালের প্রায় সব সুবিধাই ছিলো। এতে সাতশোর বেশি রোগীকে জরুরী ভিত্তিতে চিকিৎসা দেয়া হয়।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

আন্তর্জাতিক খবর