channel 24

সর্বশেষ

  • রাজধানীতে ঢাবি'র সাবেক ছাত্রের রহস্যজনক মৃত্যু

  • পদ্মাসেতুর রেল প্রকল্পে পিলারের উচ্চতা ও রাস্তার প্রশস্ততায় ত্রুটি

  • সিনহা হত্যার পর ঢেলে সাজানো হচ্ছে কক্সবাজার জেলা পুলিশ

  • ধরিত্রীকে বাঁচাতে প্রধানমন্ত্রীর ৫ পরামর্শ

  • ২৯ ও ৩০ সেপ্টেম্বর বিমানের বিশেষ ফ্লাইট

  • ফুটবল নির্বাচন: ঢাকায় ভোট চেয়েছেন আসলাম-জনির সমন্বয় পরিষদ

  • অনিশ্চিত শ্রীলঙ্কা সফর, বন্ধ ক্রিকেটারদের করোনা পরীক্ষা

  • আশুলিয়ার বিএসটিআইয়ের অভিযানে নকল পণ্য জব্দ, কোম্পানি সিলগালা

  • লক্ষ্মীপুরে কলেজ ছাত্রকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ

  • দিনভর ভোগান্তির পর সৌদির টিকিট পেয়ে কারও কারও স্বস্তি

  • আইনজীবী সেজে বৃদ্ধ কৃষকের গরু বেচা টাকা আত্মসাৎ!

  • হাসপাতালের বর্জ্য নিয়ে ঢাকার দুই সিটি মেয়রের ক্ষোভ

  • মসজিদে বিস্ফোরণে হতাহত পরিবারকে ৫ লাখ টাকা করে প্রধানমন্ত্রীর সহায়তা

  • না ফেরার দেশে চলে গেলেন অস্ট্রেলিয়ান ক্রিকেটার ডিন জোনস

  • অটোপাশ নয়, স্কুলের মূল্যায়নে নবম শ্রেণিতে উঠবে জেএসসি শিক্ষার্থীরা

চীনে মাত্র ১০ দিনে হাসপাতাল নির্মাণ!

চীনে মাত্র ১০ দিনে হাসপাতাল নির্মাণ!

আলাদিনের চেরাগের দৈত্যের যাদু নয়। নয় কোনো অলৌকিক স্থাপনা। মাত্র ১০দিনেই হাসপাতাল তৈরি করছে চীন। দেশটির উহান শহরে করোনা ভাইরাসে আক্রান্তদের চিকিৎসায় জরুরি ভিত্তিতে শুরু হয়েছে এক হাজার শয্যার হাসপাতালের নির্মাণ কাজ। আগামী মাসে এমন অস্বাভাবিক দ্রুততায় আরেকটি হাসপাতাল তৈরি করবে চীন।

বিশ্বময় আতঙ্ক ছড়ানো রহস্যময় করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ শুরু চীনের উহান শহর থেকে। যাতে এরইমধ্যে প্রাণ গেছে অনেকের।

ভাইরাস প্রতিরোধে উহানের বাসিন্দাদের শহর ত্যাগে বিধিনিষেধ জারি করা হয়েছে। হাসপাতাল আর ফার্মেসিতে আক্রান্ত রোগীদের ভীড় সামাল দিতে হিমশিম খাচ্ছে চিকিৎসকরা।

এমন পরিস্থিতি মোকাবেলায় উহানে জরুরী ভিত্তিতে দুইটি বিশেষায়িত হাসপাতাল নির্মাণ শুরু হয়েছে। এরমধ্যে ফেব্রুয়ারীর প্রথম সপ্তাহের মধ্যে এক হাজার শয্যার হাসপাতালটির নির্মাণ কাজ শেষের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ২৫ হাজার স্কয়ার মিটার এলাকা জুড়ে প্রায় ৪০ টি এক্সভেটর দিয়ে দিনরাত চলছে খনন কাজ।

চীনের বিভিন্ন শহর থেকে অভিজ্ঞ প্রকৌশলীরা নির্মাণকাজের তদারকি করছেন। বিভিন্ন প্রদেশ থেকে হাজার খানেক বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক পাঠানো হয়েছে উহানে। ১৩শ শয্যা বিশিষ্ট দ্বিতীয় হাসপাতালটির কাজও ফেব্রুয়ারীর মাঝামাঝি শেষ হবে বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

জ্যেষ্ঠ ফেলো ইয়াংঝং হুয়াং বলেন, অল্প সময়ে বিশাল বিশাল প্রকল্প শেষের রেকর্ড রয়েছে চীনের। এখানকার প্রকৌশলীরাও বিশ্বসেরা। তাই যথাসময়েই শেষ হবে হাসপাতালের নির্মাণ কাজ।   

তবে এটিই প্রথম নয়। এরআগে ২০০৩ সালে, সার্স রোগীদের চিকিৎসায় মাত্র সাত দিনে বেইজিংয়ের হাসপাতাল নির্মাণ করে রেকর্ড গড়ে চীন।  যাতে এক্স-রে রুম, আইসিইউ, ল্যাবরেটরিসহ আধুনিক হাসপাতালের প্রায় সব সুবিধাই ছিলো। এতে সাতশোর বেশি রোগীকে জরুরী ভিত্তিতে চিকিৎসা দেয়া হয়।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

আন্তর্জাতিক খবর