channel 24

সর্বশেষ

  • ইতালিতে কমছে দৈনিক মৃতের সংখ্যা

  • বিসিজি টিকা দেয়া দেশে করোনায় আক্রান্ত ও মৃত্যু হার কম

  • বিশ্বব্যাপী করোনায় প্রাণহানির সংখ্যা ৬৯ হাজার ছাড়িয়েছে

  • এন্টি ভাইরাল ড্রাগ এর প্রথম ব্যাচ তৈরি করেছে বীকন ফার্মাসিউটিক্যালস

  • করোনার মাঝেই সুন্দরবনে মধু সংগ্রহ

  • বিশ্বজুড়ে প্রাণহানি প্রায় ৬৭ হাজার, যুক্তরাষ্ট্রে মৃত্যু বাড়ার শঙ্কা

  • বিদেশি ফুটবলারদের চুক্তি নিয়ে শঙ্কায় বসুন্ধরা, সিদ্ধান্তহীনতায় আবাহনী

  • করোনা মোকাবিলায় বিমানের ক্রুদের নার্সিং প্রশিক্ষণ দিচ্ছে সুইডেন

  • মহামারির ইতিহাস

  • 'প্রধানমন্ত্রীর ঘোষিত প্রণোদনা প্যাকেজ বাস্তবায়ন চ্যালেঞ্জিং'

  • হঠকারী একটি সিদ্ধান্তে ভোগান্তি পোহাতে হলো হাজারো মানুষকে

  • দিনাজপুরে অসহায়দের নিত্য প্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রী দিলেন হুইপ ইকবালুর রহিম

  • মানবিক কারণে কয়েকটি দেশ থেকে প্রবাসীদের ফিরিয়ে আনার সিদ্ধান্ত

  • চট্টগ্রামে করোনার চিকিৎসা হবে ১২টি হাসপাতালে

  • শ্রমিকদের ঘরে ঘরে ত্রাণ পৌঁছে দিবে সিএমপি

পরমাণু চুক্তির কোনো শর্ত আর মানবে না ইরান

পরমাণু চুক্তির কোনো শর্ত আর মানবে না ইরান

২০১৫ সালে স্বাক্ষরিত পরমাণু চুক্তির কোন শর্ত আর মানবে না ইরান। যুক্তরাষ্ট্র কর্তৃক ইরানি জেনারেল কাশেম সুলেইমানকে হত্যার পর দেশটি এ ঘোষণা দিল।

দেশটির পররাষ্ট্র মন্ত্রনালয় এক বিবৃতিতে আরো জানায়, এখন থেকে ইউরেনিয়াম ব্যবহারের পরিধি বৃদ্ধিতে কোন বিধিনিষেধ মানবে না ইরান।

এদিকে, ইরাক থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারে প্রস্তাব পাশ করেছে দেশটির পার্লামেন্ট। ১৮০ জন আইন প্রণেতা প্রস্তাবের পক্ষে ভোট প্রদান করেন।

সুলেইমানিকে হত্যার প্রতিবাদে তুরস্কের ইস্তামবুলে মার্কিন কনস্যুলেট ভবন ঘেরাও করে বিক্ষোভ করেন শত শত মানুষ। আর সব পক্ষকে সংযত আচরনের আহ্বান জানিয়েছে পোপ ফ্রান্সিস।

এদিকে, প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প টুইটে জানান যুক্তরাষ্ট্রের স্বার্থে আঘাত হানলে পাল্টা আঘাত করা হবে।

২০১৫ সালের চুক্তির আলোকে ইরান স্পর্শকাতর পরমাণু কার্যক্রম সীমিত করতে সম্মত হয়েছিলো এবং আন্তর্জাতিক পর্যবেক্ষকদের পরিদর্শনের অনুমতি দিয়েছিলো অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহারের বিনিময়ে।

কিন্তু প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ২০১৮ সালে এ চুক্তি থেকে সরে দাঁড়ান এবং বলেন যে তিনি পরমাণু কর্মসূচি কমিয়ে আনা ও ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র কর্মসূচি স্থগিত করতে ইরানকে একটি নতুন চুক্তিতে বাধ্য করবেন।

ইরান তার এ বক্তব্য প্রত্যাখ্যান করে এবং ধীরে ধীরে পরমাণু চুক্তি বিষয়ে দেয়া প্রতিশ্রুতি থেকে সরে আসতে থাকে। এবং কাসেম সোলাইমানি হত্যাকাণ্ডের আগেই পরমাণু চুক্তি বিষয়ে সর্বশেষ অবস্থান জানাবে বলে আশা করা হচ্ছিলো।

ইরানের রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম রবিবারই ঘোষণা দেয় যে তারা ২০১৫ সালের চুক্তির আলোকে পরমাণু কর্মসূচি সীমিত করার প্রতি আর কোনো শ্রদ্ধা প্রদর্শন করবেনা। বিবৃতিতে বলা হয়, ইরান তার পরমাণু সমৃদ্ধকরণ কর্মসূচি অব্যাহত রাখবে কোনো সীমাবদ্ধতা ছাড়াই।

তবে বিবৃতিতে স্পষ্ট করে বলা হয়নি যে তারা চুক্তি থেকে নিজেদের পুরোপুরি প্রত্যাহার করে নিলো কি-না। কারণ এই বিবৃতিতেই বলা হয়েছে যে তারা জাতিসংঘের পরমাণু পর্যবেক্ষক সংস্থাকে সহায়তা অব্যাহত রাখবে।

ইরান বলছে তারা চুক্তির সুফল পেলেই কেবল আবার প্রতিশ্রুতি পালনের দিকে ফিরে যেতে প্রস্তুত।

সংশ্লিষ্ট সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

আন্তর্জাতিক খবর